বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১২:০৩ অপরাহ্ন

ঈশ্বরগঞ্জের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক যখন সরকারি ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক

খবরের আলো :

 

                                                                                                 অনুসন্ধানী প্রতিবেদন-১

 

মোঃ মিজানুর রহমান স্বাধীন : ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা ১৯৬৮ ইংরেজী সালে স্থাপিত ঈশ্বরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ একটি ঐতিহ্যবাহী কলেজ বেসরকারি হিসেবে কর্মকাণ্ড শুরু করলেও বিগত ১২ ইং সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইংরেজি তারিখে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ বেসরকারি কলেজ অধিশাখার স্মারক নং ৩৭.০০.০০০০.০৭০.০০২.০০৪.২০১৮-৯৮ এর মাধ্যমে সরকারিকৃত কলেজ শিক্ষক ও কর্মচারী আত্তীকরণ বিধিমালা-২০১৮ এর আলোকে ক্রমিক নং-৩,জেলা ময়মনসিংহ থানা/ উপজেলা ঈশ্বরগঞ্জ কলেজের নাম ঈশ্বরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ কে প্রজ্ঞাপন জারি করে ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইংরেজি তারিখ হতে সরকারিকরণ করা হয়।

জনাব মোঃ আব্দুল হাকিম, পিতা: নবী হোসেন, মাতা: উকিলেন নেছা,ঈশ্বরগঞ্জ সরকারি কলেজের একজন শরীরচর্চা শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন এবং একই সাথে তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করছেন। যেহেতু কলেজটিকে সরকারি ঘোষণা করা হয়েছে, সেহেতু একজন সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারী, সরকারি কর্মচারী আচরণ বিধিমালা ১৯৭৯ এর বিধি-২৫, অনুযায়ী রাজনীতি এবং নির্বাচনে অংশগ্রহণ সম্পর্কিত বিধান, (উপবিধি-১ থেকে উপবিধি-৭) (সংযুক্ত) বিধান মূল্যে কোন রাজনৈতিক দলের রাজনৈতিক দলের কোন অঙ্গ সংগঠনের সদস্য হইতে অথবা অন্য কোনো ভাবে যুক্ত হইতে পারিবেন না। অথচ তিনি সরকারি বিধিমালা লঙ্ঘন করে উক্ত দুটি পদ সমূহে বহাল তবিয়তে রয়েছে।

সাধারণ সম্পাদক হাকিম ওরফে হেকিম কলেজের সরকারি সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করলেও দায়িত্ব পালনে বিস্তর অবহেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় সাধারণ সম্পাদক হাকিম ওরফে হেকিম কলেজে অনুপস্থিত রয়েছে।  ঈশ্বরগঞ্জ সরকারি ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপাল মোঃ রফিকুল ইসলাম খান এর সাথে যোগসাজসে নিয়মিত অফিস না করেই সরকারদলীয় প্রভাব খাটিয়ে কলেজ থেকে নিচ্ছে বেতন-ভাতাসহ শিক্ষক হিসেবে সকল সুযোগ-সুবিধা।

কলেজের প্রিন্সিপাল মোঃ রফিকুল ইসলাম খান দৈনিক খবরের আলো কে বলেন শরীরচর্চা শিক্ষক সাধারণ সম্পাদক হাকিম ওরফে হেকিম অন্যান্য শিক্ষকদের ন্যায় কলেজ থেকে সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করে থাকেন। প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম খান এর কাছে শরীরচর্চা শিক্ষক হাকিম ওরফে হেকিম এর কলেজে অনুপস্থিতির বিষয়টি জানতে চাইলে প্রিন্সিপাল রফিকুল ইসলাম খান হেকিমের পক্ষে সাফাই গাইতে থাকে এবং তিনি বলেন হেকিম সাহেব আমার কাছ থেকে ছুটি নিয়ে গেছে। তবে হাকিম সাহেবের ছুটির বিষয়ে জানতে চাইলে প্রিন্সিপাল রফিকুল ইসলাম ছুটির বিষয়ে কোনো প্রমাণ পত্র দেখাতে পারেনি।

কলেজে অনুপস্থিতির বিষয়ে হাকিম সাহেবের কাছে জানতে চাইলে হাকিম সাহেব বলেন প্রিন্সিপাল স্যারের সাথে আমার রাস্তায় দেখা হয় এবং আমি কলেজে আসতে পারবো না বলে তাকে জানিয়ে দেই, রাস্তায় বসেই আমি ছুটি নিয়েছি।

প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম খান এর কাছে রাস্তায় বসে ছুটি দেয়া যৌক্তিক কিনা জানতে চাইলে তিনি হাকিম এর ব্যাপারে কৌশলে সাংবাদিকদের এড়িয়ে যায়।

সংবাদকর্মীদের উপস্থিতির পর ঈশ্বরগঞ্জ সরকারি ডিগ্রী কলেজের প্রিন্সিপাল মোঃ রফিকুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বিভিন্ন কৌশলে আলাপচারিতার মাঝে ব্যস্ত রেখে গোপনে সহকারি প্রিন্সিপালের ধারা শরীরচর্চা শিক্ষক সাধারণ সম্পাদক হাকিম ওরফে হেকিম কে কলেজে আসার জন্য সংবাদ পাঠায়। প্রায় ঘণ্টা খানেক পর সাধারণ সম্পাদক হাকিম ওরফে হেকিম দলীয় লোকজন নিয়ে কলেজে উপস্থিত হয়ে নিজের দোষ ত্রুটি আড়াল করতে নিজের পক্ষে সাফাই গাইতে থাকে এবং কলেজ থেকে সরকারি কোনো সুযোগ-সুবিধা ভোগ করে না বলে তিনি জানায়।

তিনি উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা, ঈশ্বরগঞ্জের কার্যনির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়ে সরকারি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন, যাহার নির্বাচন বিগত ২২ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজি তারিখে সম্পন্ন হয়েছে এবং(হাকিম সাহেব উক্ত নির্বাচনে পরাজিত হয়েছে), যাহা সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা ১৯৭৯ এর বিধি-২৫, উপবিধি-২৬ এর পরিপন্থী।

ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে শরীরচর্চা টিচার হাকিমের কলেজে অনুপস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দৈনিক খবরের আলো কে বলেন এই বিষয়ে তিনি অবগত না। তবে অভিযোগ আসলে তদন্ত সাপেক্ষে অপরাধী প্রমাণিত হলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে তিনি জানান।

শিক্ষাঙ্গনে শিক্ষকদের অনুপস্থিতি নিয়ে যখন সরকার জিরো টলারেন্সে অবস্থান করছে, ঠিক তখনই সরকারদলীয় ব্যক্তিরা শিক্ষাঙ্গনে দুর্নীতির আখড়া খুলে বসেছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com