বুধবার, ১৫ জানুয়ারী ২০২০, ১০:০৯ অপরাহ্ন

স্বামীর পরকীয়ার জের ধরে যৌতুকের দাবী করায় আদালতে স্ত্রীর মামলা

খবরের আলো :

 

 

এস এম জীবন: পটুয়াখালি জেলার বাউফল উপজেলার আতোষখালি গ্রামে যৌতুক লোভী স্বামী রুহুল আমিনের অত্যাচারের বিরুদ্ধে পটুয়াখালি সিনিয়র জুডিশিয়াল মাজিস্ট্রেট ২য় আমলী আদালতে স্ত্রী তানিয়া আক্তার বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানাযায়, ২০১৫ সালের ২৭মার্চ একই গ্রামের আমির হোসেনের পুত্র রুহুল আমিনের সাথে ইসলামি শরীয়া মোতাবেক মামলার বাদী তানিয়া আক্তারের সাথে বিবাহ সম্পন্ন হয়। তানিয়া দৈনিক খবরের আলোকে বলেন, বিবাহের পর রুহুল আমিন ও তানিয়ার সংসার জীবন কিছুদিন ভালো কেটেছিলো। পরে তানিয়ার স্বামী রুহুল বিভিন্ন সময় তার মা-বাবার প্রবঞ্চনায় নানান অযুহাতে আমার কাছে স্বর্নালংকার, আসবাব পত্র সহ টাকা জন্য চাপ দিতো। পরে এ সকল বিষয় আমি আমার স্বল্পআয়ী বাবার কাছে জানালে তিনি আমার সুখের জন্য আমার স্বামীর আবদার গুলো পুরুন করতেন। তানিয়া আরো বলেন, আমার যৌতুক লোভী স্বামীর চাহিদা পুরোন কারায় সে বাবার বাবার দূর্বলতার সুযোগ খুজতে বিভিন্ন অজুহাতে আমাকে মারধর করা শুরু করে এবং আমি সংসার জীবনে শান্তি ফিরিয়ে আনতে আমি সন্তান সম্ভবা হই। কিন্তু সন্তান সম্ভবা হওয়ার কথা শুনে আমার স্বামী আমার সাথে আরো খারাপ আচরন শুরু করে আমার সন্তান নষ্ট করার জন্য আমাকে জোড় পূর্বক ঔষধ সেবনে বাধ্য করে আমার সন্তান নষ্ট করে ফেলে। এভাবে দুই তিনবার করার পর আমি গোপনে আমার সন্তান নষ্ট কারন খুজতে গিয়ে জানতে পারি আমার স্বামী তার ব্যবহারিত মুঠো ফোনে অন্য নারীদের সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পরে। আমি পরকীয়ার খবর জানতে পেরে তার কাছে জানতে চাইলে সে বিভিন্ন সময় এ বিষয় আমার সাথে মিথ্যা কথা বলে। পরকীয়ার সূত্র ধরে সে আমার প্রতি আরো বেশি শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করা শুরু করে। এ বিষয় আমার পিত্রালয়ের পক্ষ থেকে রুহুল আমিনের পিতা আমার শশুরের সাথে কথা হলে তারা আর হবেনা বলে চলে যায়। পরে হঠাৎ একদিন আমার স্বামী ব্যবসার অজুহাতে আমার কাছে ২লক্ষ টাকা দাবী করলে আমি দিতে পারবো না বলায় আমার শশুর-শাশুড়ি ও স্বামী মিলে আমাকে মারধর সহ শারীরিক নির্যাতন করে আমার বাবার বাড়ী থেকে ২ লক্ষ টাকা নিয়ে আসতে বলে। আমি আমার বাবার বাড়ী এসে আমার বাবাকে জানালে আমার বাবা তার বেয়াই আমার শশুরকে আমার বাড়ীতে দাওয়াত দিয়ে বেড়াতে আসতে বলে। আমার স্বামী রুহুল আমিন সহ আমার শশুর বাড়ীর লোকজন আসলে তাদেরকে আপ্যায়ন করি। আপ্যায়ন শেষে আমাকে আমার স্বামী আমাদের পুরাতন ঘরে ডেকে নিয়ে পূর্বের ন্যায় আমার কাছে ২লক্ষ টাকা দাবী করে বলে টাকা না দিলে আমি আবার বিয়ে করবো। এ বিষয় তানিয়া বাদী হয়ে স্বামী রুহুল আমিন, শশুর আমির হোসেন ও শাশুড়ী ফুলভানুকে আসামী করে পটুয়াখালী সিনিয়র জুডিশিয়াল মাজিস্ট্রেট ২য় আমতলী আদালতে একটি মামলা দায়ের করে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com