জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৫৫দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
৪৩মিনিট
:
৩৭সেকেন্ড

শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন

পটুয়াখালীতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিন মেয়ের নিরাপত্তা চেয়ে মা শামিমার সংবাদ সম্মেলন

All-focus

খবরের আলো :

 
হাবিবুর রহমান মাসুদ, পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ বশিরুল গং এর অত্যাচার, নির্যাতন ও জীবন নাশের হুমকির প্রতিবাদে তিন কন্যা সন্তানের জননী শামিমা আক্তারের সাংবাদিক সম্মেলন।
বুধবার রাত ৮টায় পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে শামিমা আক্তারের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার বড় মেয়ে মরিয়ম আক্তার। লিখিতি বক্তব্যে শামিমা আক্তার বলেন, ৩০ বছর আগে আমার স্বামী মোতালেব আকন পটুয়াখালী পৌরসভাধীন পিটি রোড এলাকায় পটুয়াখালী মৌজার এস.এ ২৬২,৮৩৪,৯১২,২২৭২ নং খতিয়ানে হাল ৮০৬৯,৮০৭৩,৮০৭৪ নং দাগে ০.০৬৫০ একর জমি ক্রয় সূত্রে মালিক হয়ে একটি টিনসেড দোতলা ঘর উত্তোলন করে তিন কন্যা নিয়ে বসবাস করে আসছি। আমাদের ঘারের পাশে কিছু খালি জায়গা আছে। সম্প্রতি বশিরুল আলম ও বাদশা আলম দুই ভাই আমার খালি জায়গার কিছু অংশ ধরে পাকা দেয়াল নির্মান করে দখল করার চেষ্টা কারে। এ ব্যাপারে পৌর সভায় অভিযোগ করা হলে, পৌরসভার সার্ভেয়ার জমি মাপঝোপ না করে দেয়াল নির্মান না করার কথা বলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বশিরুল আলম গং ৭ ফেব্রæয়ারী সকালে আমার ঘরের পিছনে খালি জায়গায় বড়ই কাটা দিয়ে আটকে দেয়। এ সময় বাধা দিলে আমাকে ও আমার স্বামীকে গালিগালাছ করে বাড়ি ছাড়া করার হুমকি দেয়। পরদিন ৮ ফেব্রæয়ারী রাত আনুমানিক ১০.৩০ মিনিটের দিকে বশিরুল ও তার সহযোগিরা আমার ঘরে জোরপূর্বক প্রবেশ করে আমাকে ও আমার বৃদ্ধ অসুস্থ স্বামীকে মারধর করে আমার (শামমিা আক্তার) গলায় থাকায় স্বর্নের গহনা নিয়ে যায় এবং ঘরের সামনে টিনের বেড়া রাম দা দিয়ে কুপিয়ে কুপিয়ে তছনচ করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে এবং জীবন নাশের হুমকি দেয়। বশিরুল আলম আমাদেরকে হয়রানি করার জন্য ৯ ফেব্রæয়ারী আমার স্বামীকেসহ আমার আত্মীয় স্বজনদের নামে একটি মিথ্যা চাদাবাজি মামলা দায়ের করে। এ মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদেরকে হয়রানি করার প্রতিবাদে ১০ ফেব্রæয়ারী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে আমাদের পক্ষে এলাকার লোকজন মানববন্ধন করে মিথ্যা মামলা দায়েরকারীদের বিচার দাবী করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ১১ ফেব্রæয়ারী রাত আনুমানিক ১১ টার সময় একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী ঘরের সামনে ফের রামদা দিয়ে কুপিয়ে তছনচ করে, আমি প্রানের ভয়ে মেয়েদেরকে নিয়ে ঘরের দোতলায় উঠে ঝাপ আটকিয়ে জীবনকে রক্ষা করি। এ সময় সন্ত্রাসীরা উচ্চস্বরে ডাকচিৎকার দিয়ে বাড়ি ছাড়ার কথা বলে, বাড়ি না ছাড়লে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়। আমি আমার তিন মেয়ে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতা দিন কাটাচ্ছি বললেন শামিমা আক্তার। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকদের মাধ্যমে শামিমা আক্তার তার ও তার মেয়েদের নিরাপত্তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ সময় শামিমা আক্তারের তিন মেয়েসহ স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের সদস্য এ্যাড. বশিরুল আলম জানান, ৭ ফেব্রæয়ারী সকালে আমার জায়গা দিয়ে সীমানা দেয়াল নির্মান করার সময় শামিমা আক্তারের স্বামী মোতালেব আকনসহ তার আত্মীয় ৩ সন্ত্রাসী আমার কাছে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। এ চাদা টাকা দিতে অস্বীকার করায় আমাকে মারধর করে রক্তাক্ত জখম করে। আমি হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎিসা নেই। ডাক্তার আমাকে ঢাকা রেফার করেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করি। এ মামলা তেকে সন্ত্রাসী চাদাবাজদের রক্ষার জন্য শামিমা আক্তার আমাকে ও আমার ভাই এড. বাদশা আলমের বিরুদ্ধে মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। তার অভিযোগ সম্পুর্ন মিথ্যা।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com