জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৫৫দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
৪৩মিনিট
:
৩৭সেকেন্ড

রবিবার, ০৭ জুন ২০২০, ০১:৫০ পূর্বাহ্ন

শ্রীপুরের ইজ্জতপুর রেলওয়ে স্টেশন ৮ বছর ধরে বন্ধ রয়েছে ,দেখার কেউ নেই, অবহেলায় গুরুত্ব হারাচ্ছে স্টেশনটির

খবরের আলো:

 

 

শ্রীপুর প্রতিনিধি:গাজীপুরের শ্রীপুরে ইজ্জতপুর রেলওয়ে স্টেশনটি গত ৮ বছর যাবত বন্ধ রয়েছে । অবহেলায় অযত্নে গুরুত্ব হারাচ্ছে স্টেশনটি। স্থাপনা গুলি ভেঙ্গে পড়তে শুরু করেছে। বর্তমানে ঘর গুলি মাদক সেবনের আড্ডা খানা।১৯৬৫ সাল তদকালিন পূর্ব পাকিস্থান সরকারের আমলে এ স্টেশন চালু হয়। সে সময় এই এলাকায় অন্যকোন চলাচলের ব্যবস্থা ছিল না পায়ে হেটে রাজধানী ও জেলার সাথে যোগাযোগ করতে হতো। ট্রেনই ছিল একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম। বর্তমানেও জেলা শহর অথবা রাজধানীর সাথে যোগাযোগ করতে হলে কোন যায়গায় ৫ কিলোমিটার কোন জায়গায় ১০ কিলোমিটার রাস্তা অটোরিকসা অথবা পায়ে হেটে বাসের রাস্তায় যেতে হয়। গত ৮ বছর আগে এ স্টেশনে ৩ টি লোকাল ট্রেন যাত্রা বিরতি করত । গত ৮ বছর ধরে কোন ট্রেনই এখানে যাত্রা বিরতি করেনা। অর্ধ যুগের বেশী সময় ধরে ইজ্জতপুর রেলওয়ে স্টেশনটি অচল হয়ে পড়ে রয়েছে। জনবলের অভাবে ৮ বছর ধরে স্থায়ীভাবে বন্ধ রয়েছে। এলাকাবাসী রেলমন্ত্রী ও উন্নয়নের রুপকার মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছে স্টেশনটি মেরামত করে দ্রুত চালুর দাবী জানান।স্টেশনটি চালু থাকলে কম সময়ে জেলা শহর এবং রাজধানীসহ বিভিন্ন এলাকায় সহজে অল্প খরচে রেলের মাধ্যমে যাতায়ত করা যায়, এই এলাকার ব্যবসাযীদেও মাল আনা নেওয়ার এক মাত্র রাস্তা ছিল রেল। কিন্তু বাসে মাধ্যমে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে যেতে হলে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে হয় তাতে মুল্যবান সময় নষ্ট হয়।শাহজাহান মিয়া জয়দেবপুর স্টেশন মাস্টার জানান ইজ্জতপুর স্টেশনটি দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ রয়েছে জনবল সংকট, সরকার জনবল নিয়োগ দেয়া শুরু করেছে নিয়োগ সম্পূর্ণ হয়ে গেলে পরে তাছাড়া ডাবল লাইনের কাজ চলছে লাইনের কাজ হয়ে গেলে ইজ্জতপুর স্টেশনটি চালু হয়ে যাবে বলে জানান।এলাকাবাসি সমস্যার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে স্থানীয় সংসদ সদস্য এরই মাঝে স্টেশনটি চালু করাতে রেল মন্ত্রনালয়ে অনুরোধ জানিয়েছে। তিনি আশা করছেন জনবল নিয়োগ করেও অন্যান্য সমস্যা সমাধান করে অচিরেই এই আবারো চালু করা হবে এই স্টেশনটি।গাজীপুর ৩ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ বলেন আশপাশের ১৫টি গ্রামের মানুষ জেলা শহর ও রাজধানীর সাথে সহজ যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম ছিল এ স্টেশনটি। ফলে সহজ ও নিরাপদ যাত্রা বিঘ্নিত হয়ে যাত্রীদের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বিন্দুবাড়ী ইজ্জতপুরসহ কয়েকটি এলাকার মানুষ মিলে প্রায় পৌনে ৪০০ এলাকাবাসীর স্বাক্ষর সংবলিত একটি লিখিত আবেদন রেলওয়ের মহাপরিচালক বরাবর জমা দেন তাতেও কোন কাজ হচ্ছে না এ নিয়ে জনমনে হতাশা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com