জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৫৫দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
৪৩মিনিট
:
৩৭সেকেন্ড

বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০১:৫৯ অপরাহ্ন

গাজীপুরে তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেলের চিকিৎসক ও এক সাংবা‌দিক কোয়া‌রন্টিাই‌নে

খবরের আলো :

 

 

স্টাফ রি‌র্পোটার মোঃ জসীম উদ্দীন চৌধুরীঃ করোনাভাইরাসের প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দেয়ায় গাজীপুরে এক চিকিৎসককে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। ওই চিকিৎসক গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চর্ম ও যৌন রোগ বিভাগে কর্মরত ছিলেন। তাকে প্রথমে হাসপাতালের একটি কেবিনে ও পরে বাসায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

ওই হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. খলিলুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তিনি (চিকিৎসক) কয়েকদিন আগে দুবাই থেকে আসা এক প্রবাসীর চিকিৎসা দেন। এরপর থেকে তিনি জ্বর, কাশি ও গলা ব্যথায় আক্রান্ত হন। শনিবার সকালে হাসপাতালে ডিউটিতে আসার পর তার শারীরিক অবস্থা কিছুটা অবনতি দেখা দিতে থাকে। পরে ওই চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত মনে করে নিজেই কোয়ান্টেইনে যাওয়ার কথা বলেন। পরে তাকে হাসপাতালের একটি কেবিনে রাখা হয়। দুপুরের পর তাকে বাসায় হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। তার শরীরে করোনার প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দেয়ায় এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে পরিচালক জানান। তাকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে। এর মধ্যে আর কোনো সমস্যা না হলে বাইরে বের হওয়ার ছাড়পত্র দেয়া হবে।

গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুজ্জামান জানান, জেলায় শনিবার পর্যন্ত ১০৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে তার জন্য সব রকম চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। এতে কাউকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন।

অপরদিকে, নগরীর টঙ্গীতে বিদেশ ফেরত অনেকেই হোম কোয়ারেন্টাইন মানছেন না বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন। পুলিশের পক্ষ থেকে বিদেশ ফেরত ব্যক্তির আত্মীয়-স্বজনকে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হলেও হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে চলাফেরা করছেন তারা।
তালিকা অনুযায়ী গত এক সপ্তাহে বিদেশ ফেরত ১৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন দেয়া হলেও তারা অনেকটা আড্ডা, পরিবারের সঙ্গে ঘুরতে যাওয়া আর বিভিন্ন মার্কেটে কেনাকাটার মধ্য দিয়ে সময় কাটাচ্ছেন। হোম কোয়াইন্টাইন প্রাপ্ত একাধিক প্রবাসী জানান, আমরা নিজেদের নিরাপদ মনে করছি। আমাদের কোনো রোগ নেই।
এ বিষয়ে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক মো. তরিকুল ইসলাম বলেন, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের ওপর নজরদারি আছে। আইন ভঙ্গ করলে শাস্তির বিধান রয়েছে।
অন‌্যদি‌কে গাজীপুরের কাপাসিয়া মা ও শিশু
সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে কোয়ারেন্টাইনে এক সাংবাদিক।জানাযায় গাজীপুরের কাপাসিয়া মা ও শিশু স্বাস্থ্যকেন্দ্রে (বর্তমান কোয়ারেন্টাইন সেন্টার) নিয়ম না মেনে প্রবেশ করায় স্থানীয় এক সাংবাদিককে ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, শনিবার (২১ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে চ্যানেল আইয়ের স্থানীয় এক ক্যামেরাপারসন কাপাসিয়া মা ও শিশু কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্রে যান। নিয়ম না মেনে সেখানে প্রবেশ করেন তিনি।
তিনি বলেন, কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের সংস্পর্শে যাওয়ায় তার স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে। সাধারণ জনগণের নিরাপত্তার কথা বিবেচনায় তাকে শ্রীপুর থেকে কাপাসিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মা ও শিশু কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়েছে। সেখানে তাকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে।
শ্রীপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী বলেন, ঘটনাটি শুনে ওই সাংবাদিককে থানা চত্বরের বাইরে দীর্ঘক্ষণ পুলিশি নজরে রাখা হয়। পরে তাকে কাপাসিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মা ও শিশু কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্রে নিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com