জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৫৫দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
৪৩মিনিট
:
৩৭সেকেন্ড

শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন

মসজিদগুলোতে মুসল্লিদের অংশগ্রহণ সীমিত রাখার পরামর্শ ইফার

ছবি : প্রতীকী

খবরের আলো :

 

 

বুধবার, ২৫ মার্চ :করোনার সংক্রমণ রোধে মসজিদগুলোতে জুমা ও জামাতে মুসল্লিদের অংশগ্রহণ সীমিত রাখার পরামর্শ দিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা)। এছাড়া করোনা সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা নিশ্চিত না হয়ে মসজিদে আসা যাবে না বলেও জানিয়েছে তারা।

বুধবার (২৫ মার্চ) প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইফা এ তথ্য জানিয়েছে। তবে কোন প্রক্রিয়ায় মসজিদে নামাজের সময় জামাতে মুসল্লি সীমিত রাখতে হবে তার কোনো সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেয়নি সংস্থাটি। মুসল্লিদের সুরক্ষা বিষয়েও নির্দিষ্ট কোনো পরামর্শ নেই তাদের।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনার সংক্রমণ রোধে মসজিদগুলোতে জুমা ও জামাতে মুসল্লিদের অংশগ্রহণ সীমিত রাখতে হবে। মসজিদ বন্ধ থাকবে না, তবে করোনা সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা নিশ্চিত না করে কেউ মসজিদে আসবেন না।

এ বিষয়ে জানতে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদকে একাধিকবার ফোন করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) আলেমদের সঙ্গে বৈঠক করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। এ দিন বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জের ভূমিপল্লী আবাসন জামে মসজিদের খতিব আহমাদুল্লাহ।

এ বিষয়ে খতিব আহমাদুল্লাহ-এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, সীমিত পরিসরে মসজিদে জামাত চলবে। সীমিত পরিসরের ব্যাখ্যাটা হলো এই যে, মসজিদের যারা স্টাফ (খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন, খাদেম) আছেন, যেভাবে সৌদি আরবের মক্কা মদিনায় নামাজ চলছে তারা সেভাবে জামাতে নামাজ আদায় করবেন। মসজিদে বন্ধ থাকবে না, মসজিদে আজান হবে, নামাজের আনুষ্ঠানিকতা চলবে।

তিনি বলেন, কে সুস্থ, কে অসুস্থ এটা বোঝার উপায় নেই। যেহেতু আমাদের সুস্থতা-অসুস্থতা বোঝার উপায় নেই, অতএব আমরা বাসা-বাড়িতে নামাজ পড়ব। মসজিদের স্টাফরা জামাতে নামাজ পড়বেন, আর  মসজিদের একেবারেই প্রতিবেশীদের মধ্যে যারা নিশ্চিত যে তিনি সুস্থ তারা আসবেন। ফাঁকা ফাঁকা হয়ে দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করবেন। মূলকথা যতক্ষণ পর্যন্ত আপনি সুস্থতা নিয়ে নিশ্চিত নন, সেক্ষত্রে মসজিদে না এসে বাসায় নামাজ পড়বেন। মানুষকে গণহারে মসজিদে আসার জন্য নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।

যদিও এমন কোনো নির্দেশনা ইসলামিক ফাউন্ডেশন সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নেই।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. আনিস মাহমুদ, আল হাইআতুল উলয়া লিল জামিআতিল কওমিয়া বাংলাদেশের কো চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস, মারকাযুত দাওয়ার শিক্ষা সচিব মুফতি মোহাম্মদ আবদুল মালেক, শায়খ জাকারিয়া ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের মহাপরিচালক মুফতি মীযানুর রহমান সাঈদ, মিরপুরের চামেয়া ইসলামিয়া দারুল উলুমের মুহতামিম মুফতি দিলাওয়ার হোসাইন, ঢাকা নেছারিয়া কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল কাফীলুদ্দীন সরকার সালেহী প্রমুখ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com