জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা
৫৫দিন
:
১৯ঘণ্টা
:
৪৩মিনিট
:
৩৭সেকেন্ড

মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১০:১২ অপরাহ্ন

সীমিত আকারে চলছে দেশের বৃহত্তম কাপড়ের বাজার

খবরের আলো:

 

 

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীতে দেশের বৃহত্তম কাপড়ের বাজার শেখেরচর বাবুরহাট সীমিত আকারে চলছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সৃষ্ট আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে শর্তসাপেক্ষে ৫ মে পর্যন্ত এ কাপড়ের বাজার খোলা রাখার অনুমতি দিয়েছিল জেলা প্রশাসন।

গত ২৬ এপ্রিল জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক ও করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত নরসিংদী জেলা কমিটির সভাপতি সৈয়দা ফারহানা কাউনাইনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভা হয়। সভায় নরসিংদী চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আলী হোসেন শিশির, শেখেরচর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আবদুল বাকিরসহ বাবুরহাটের শীর্ষ ব্যবসায়ীরা অংশ নেন। সভায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে কাপড়ের বাজার চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

দেশের সর্ববৃহৎ পাইকারি কাপড়ের বাজার শেখেরচর বাবুরহাট। নরসিংদী জেলার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রাণকেন্দ্র এ বাজারটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে নরসিংদীর সদর উপজেলার শিলমান্দী ইউনিয়নে অবস্থিত।
ঈদের মৌসুমে প্রতিদিন এ হাটে প্রায় হাজার কোটি টাকার লেনদেন হয়ে থাকে।

করোনাভাইরাসের কারণে সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক গত ৯ এপ্রিল জেলা লকডাউন করার পর বাবুরহাট বন্ধ হয়ে যায়। এর প্রভাব পড়ে সারা দেশে।

বাবুরহাটের গামছা, লুঙ্গি, শাড়ি কাপড়, থ্রি পিস, প্যান্ট ও শার্ট পিসসহ বিভিন্ন কাপড়ের চাহিদা রয়েছে দেশজুড়ে। দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলার পাইকারি ক্রেতারা এসে এ বাজার থেকে কাপড় কিনে নিয়ে যান। বাবুরহাটের কাপড় দেশে চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা হয়। এ হাটকে কেন্দ্র করে জীবিকা নির্বাহ করেন শত শত কাপড় ব্যবসায়ী ও হাজার হাজার শ্রমিক।

সার্বিক দিক বিবেচনা করে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শর্তসাপেক্ষে সীমিত পরিসরে বাবুর হাট চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। শর্ত ভঙ্গ করলেই বন্ধ করে দেওয়া হবে বাবুর হাট। শর্তগুলো হলো—৫ মে পর্যন্ত বাবুর হাট বাজারে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শুধুমাত্র স্টক ডেলিভারি সিস্টেম চালু থাকবে। বাজারে কোনো দোকান খোলা থাকবে না। শুধু একটি শাটার খোলা রেখে পণ্য ডেলিভারি করতে হবে। বাবুরহাট বাজারের সকল আড়ত ও দোকানে পাইকারি ও খুচরা পণ্যের অর্ডার শুধু অনলাইনে/মোবাইল ফোনে গ্রহণ করতে হবে এবং সব লেনদেন অনলাইন/মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সম্পন্ন করতে হবে। ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য কোনো জনসমাগম করা যাবে না। প্রতিটি দোকানে সর্বোচ্চ তিনজন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অবস্থান করতে পারবে। বাজারে প্রবেশ ও বহির্গমনের জন্য দুটি গেট খোলা থাকবে। বাজারের প্রবেশ পথে থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে প্রবেশকারীদের শরীর তাপমাত্রা পরীক্ষা, বাজারের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা এবং বাজারে অবস্থানরত সকলকে আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধান করতে হবে। নরসিংদীর স্থানীয় গাড়িচালক ও গাড়িসমূহ দিয়ে আবশ্যিকভাবে পণ্য পরিবহনের ব্যবস্থা করতে হবে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ওপর যানবাহন রেখে মালামাল লোড-আনলোড করা যাবে না। শুধু পার্শ্ববর্তী মাঠ ব্যবহার করতে হবে। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, বাজারের সকল রাস্তা ও যানবাহন জীবাণুমুক্তকরণ এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সুরক্ষাবৃত্ত অঙ্কন করতে হবে। প্রবেশ ও বহির্গমন পথে আইনশৃঙ্খলারক্ষা বাহিনী পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে চার সদস্য বিশিষ্ট স্বেচ্ছাসেবক টিম রাখতে হবে। মাবধদী মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে কন্ট্রোল রুম স্থাপনের মাধ্যমে সব কার্যক্রম শর্তাবলী অনুসরণপূর্বক সম্পাদন ও সমন্বয় করতে হবে। বাজারে পর্যাপ্ত সিসি ক্যামেরা স্থাপন করতে হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com