রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০১:১৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষায় মেয়ে কলেজ শিক্ষিকার সংবাদ সম্মেলন

খবরের আলো:

 

 

শেখ আমিনুর হোসেন, সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফ:সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আইন অমান্য করে পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের উদ্দেশ্যে খুন জখমের হুমকি, মিথ্যা মামলা দেওয়াসহ বিভিন্নভাবে হয়রানির প্রতিবাদে সংবাদ সম্মলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে এ অভিযোগ করে শ্যামনগর উপজেলার ফুলতলা গ্রামের জি এম নুর নবীর কন্যা কলেজ শিক্ষিকা নাসরীন বানু।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আমার পিতা উপ-মহা হিসাব রক্ষক (পদ্ধতি) পদে কর্মরত অবস্থায় অবসর গ্রহণ করে স্বপরিবারে ঢাকায় বসবাস করেন। বর্তমান তিনি শারিরীকভাবে মারাত্মক অসুস্থ। আমি শ্যামনগর আতরজান মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক হিসাবে কর্মরত আছি। শ্যামনগর থানার পরানপুর মৌজায় জে এল নং- ৭৪, খতিয়ান নং- ৪৬০, দাগ নং- ৭৩২, ৭৩৩, ৭৩৪, জমির পরিমান ১০.৭১ একর জমি পত্রিক সূত্র প্রাপ্ত হন আমার পিতা। সে অনুযায়ী আমরা দীর্ঘদিন ধরে ভোগদখল করে আসছি। উক্ত সম্পত্তি আমার পিতা আমার ভাই জি এম নুর রাজ্জাক ও আমার (নাসরিন বানু) নাম হেবানামা করে দেন। আমার ভাই ঢাকায় থাকার কারণে ওই সম্পত্তি পুরোটাই আমি দেখাশোনা করি। হেবানামা সূত্রে উক্ত সম্পত্তি আমি মিউটশন ও খাজনা দাখিলাও সম্পন করে ভোগদখলে আছি। আমার স্বামী আমার সাথে থাকে না। আমার ২টি সন্তান নিয়ে শ্যামনগরের ফুলতলায় বসবাস করি। আমি মহিলা মানুষ হওয়ার সুবাদে স্হানীয় সন্ত্রাসী প্রকৃতির ব্যক্তিরা উক্ত সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলের পায়তারা শুরু করে। যার নেতৃত্বে রয়েছে ভেটখালী এলাকার মৃত শেখ আজিজুর রহমানের ছেলে আমার মামাতো চাচা শেখ আফজালুর রহমান ও বর্তমান সাতক্ষীরায় বসবাসকারী মৃত শেখ আবুল হোসেনের ছেলে শেখ কুদরত- ই- খুদা। আমার উক্ত সম্পত্তি হারি নিয়ে মৎস্য ঘর পরিচালনা করে আসছিলেন পরানপুর এলাকার আলহাজ্ব খায়ের শেখার ছেলে মশিউর রহমান, সোহরাব শেখের ছেলে খলিল শেখ ও মৃত সাহাদাৎ শেখের ছেলে বাবুল শেখ। গত ২০১৮ সালের ডিসম্বর মাসে তাদের সাথে করা মৌখিক চুক্তির মেয়াদ শেষ হলে আমি ২০১৯ সালে তাদের আর হারি দেবা না বলে জানিয়ে দেয়। এতে উল্লখিত ব্যক্তিরা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার দুম্পর্কের চাচা আফজালুর রহমান ও ডাঃ শেখ কুদরত ই খুদার সাথে যোগসাজস করে তারা জমি দখলের চেষ্টা করছে। আমার ওই চাচারা ১৯৪৬ সালের একটি পুরাতন জরাজীর্ণ দলিলের বুনিয়াদে উক্ত সম্পত্তি তাদের বলে দাবি করে শ্যমনগর সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। ওই মামলার ভিত্তিতে তারা উক্ত সম্পত্তিতে নিষধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করলেও নিষধাজ্ঞাদেশ হয়নি। আমার সময় কাটে শিক্ষাদান করে। যে কারণে আমি খুববেশি সময়ও পাই না। গত ০৭.০১.২০১৯ তারিখ বিকাল ৫টার দিকে মৎস্য ঘের কর্মচারী রাখার উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে আফজাল শেখের বাহিনীরা আমার হাত ধরে টানাটানি করে, অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে এবং শীলতাহানির চেষ্টা করে। এঘটনায় আমি শ্যামনগর থানায় উল্লখিত ব্যক্তিদের নামে অভিযোগ দায়ের করেছি এবং সাতক্ষীরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। মশিউর রহমান, খলিল শেখ, বাবুল শেখ উক্ত সম্পত্তির হারি গ্রহিতা ছিলেন মাত্র। কিন্তু যেদিন থেকে ঘের আমার নিয়ন্রনে নিয়েছি তখন থেকে তারা অবৈধভাবে জোরপূর্বক ঘের দখল এবং সন্তানদের খুন, জখম ও হত্যার হুমকি অব্যাহত রেখেছে। আমি বর্তমান তাদের কারণে আমার ২টি সন্তান নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি ওই দখলদার শেখ আফজাল ও কুদরত ই খুদা এবং মশিউর, খলিল শেখ, বাবুল শেখদের হাত থেকে আমার পিতার পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা এবং আমার ও সন্তানদের জীবনের নিরাপত্তার দাবিতে  প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com