শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

“এসএসসি পরীক্ষার্থী ২০১৯ আনিকা তাবাসুম আর নেই”

খবরের আলো :

 

মোঃ জসীম উদ্দিন চৌধুরীঃ টঙ্গী দত্তপাড়া সাহাজউদ্দিন সরকার স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থী ২০১৯ আনিকা তাবাসুম আর নেই। গত ৩০/০৯/২০১৮ রোজ শনিবার নিজ বাড়ী টঙ্গী দত্তপাড়া ছাদ হতে পড়ে গিয়ে মাঝায় আঘাত পায়।তাড়া-তাড়ি কওে তাকে ঢাকা পুঙ্গ হাসপাতালে ভর্তি করানোর পর জানা যায় -তার কোমরের হাড় ভেঙ্গে গেছে। ডাক্তারী পরীক্ষা করার পর জানা যায় তার কোমরে অপারেশন করতে হবে। সে মোতাবেকম তার জন্য তিন ব্যাগ রক্ত নেওয়া হয়। দুই ব্যাগ রক্ত দেওয়ার পর গত সোমবার অপারেশন থিয়াটারে নেওয়ার পথে আনিকা মৃত্যু বরন করেন।ইন্না———-রাজেউন।মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ১৬/১৭ বছর।মৃত্যুকালে সে এক ভাই,মা-বাবা সহ বহু আত্বীয়স্বজন রেখে গেছেন। যতটুকু জানা যায় আনিকা ছিলেন তার নানীর কলিজার টুকরা সে হিসেবে তার শেষ ইচেছ অনুযায়ী গত ০১/১০/২০১৮ ইং তার নানীর দেশের বাড়ী লক্ষ¥ীপুর জেলা রামগনজ উপজেলার কাঞ্চনপুর সাফালি পাড়া ভ’ইয়া/পাটাওয়ারী বাড়ীতে নানীর কবরের পাশে দাফন করা হয়।
এই ব্যাপারে আনিকা তাবাসুম যে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছিল সে প্রতিষ্ঠান টঙ্গী সাহাজউদ্দিন সরকার স্কুল এন্ড কলেজের একজন শিক্ষক জসীম উদ্দীন চৌধুরীর সাথে আলাপ কালে তিনি কান্না বিজড়িত কন্ঠে বলেন গত ২০১৪ সালে আমি আনিকাকে অত্র প্রতিষ্ঠানে ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে ভর্তি করাই। ভর্তির পর থেকে ৮ম শ্রেনী পর্যন্ত এই ৩ বছর সে আমার নিকটই প্রাইভেট পড়িত। আনিকাদের নানার বাড়ি আমার বাড়ির খুব কাছাকাছি হওয়াতে তাদের পরিবারের সাথে আমার খুব সু- সম্পর্ক বিদ্যমান ছিল।তার মা- বাবা খুবই ভালো মানুষ ছিলেন। আনিকাও ছিলেন শান্ত প্রকৃতির মেয়ে। সব সময় হাসি মুখে কথা বলে মানুষের মন জয় করে নিতেন। প্রতিষ্ঠানে যে কোনো অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সঙ্গীত পরিবেসনের সাথে দলীয় সঙ্গীতেও অংশ গ্রহন করে আসছেন।প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে আনিকার সম্পর্ক ছিল খুব ভালো। এতো তাড়া-তাড়ী মে সবাইকে চেড়ে চলে যাবে কখোনোও ভাবতেও পারি নাই।পূর্বেই আনিকার আম্মা জানিয়েছিলেন যে, তার মেয়ের সাথে বাতাসের(জ্বীনের আছর) দোষ আছে। যেদিন আনিকা ছাদ থেকে নিচে পড়েছে ,সাথে সাথে তার মা নিচে যাবার পর আনিকা তার মাকে বলেছে তোমাদের সামনেই ৪ জন লোক আমাকে ঠেলে ফেলে দিলো তোমরা দেখেও আমাকে ধনে রাখতে পারলে না।দোয়া করি মহান রাব্বুল আলামীন যেন তাকে জান্নাত দান করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com