শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

তুমুল লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে কলকাতাকে হারিয়ে বিজয়ী ঢাকা

খবরের আলো রিপোর্ট :

 

 

বাজলো ঝুমুর তারার নূপুর’ শিরোনামে নাচের প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশের বেসরকারি টিভি চ্যানেল নাগরিক টিভির মঞ্চে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বেশ কিছুদিন ধরে। এতে অংশগ্রহণ করেছিল দুই বাংলার অর্থাৎ বাংলাদেশ ও কলকাতার শিল্পীরা।

উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা আর তুমুল লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে শেষ পর্যন্ত ‘বাজলো ঝুমুর তারার নূপুর’-এ বিজয়ী হলো ঢাকা, বাংলাদেশ। ৮ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টায় নাগরিক টিভিতে সম্প্রচার হয় অনুষ্ঠানটির গ্র্যান্ড ফিনাল। ৬৯তম এই চূড়ান্ত পর্বে, নাচের পাল্লা দিয়ে কলকাতার শিল্পীরা হেরে যায় ঢাকার কাছে। এই দলের তারকারা হলেন, ঈশানা, ভাবনা, জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া, স্পর্শিয়া, অমৃতা ও সাফা কবির।

বিজয়ী হিসেবে ঢাকা দল পেয়েছেন নাগরিক টিভির সৌজন্যে নগদ ৬ লাখ টাকা, ক্রেস্ট এবং কক্সবাজারে আনন্দ ভ্রমণের সুযোগ। আর রানারআপ বিজয়ী হিসেবে কলকাতার দল পেয়েছে নগদ ৩ লাখ টাকা এবং কক্সবাজার ঘুরে আসার প্রস্তাব। কলকাতা দলের হয়ে অংশ নিয়েছিলেন রিমঝিম, সোহিনী, এনা সাহা, লাভলী, তিথি ও প্রীতি।

গ্র্যান্ড ফিনালের পর্বটিতে কলকাতার সোহিনী পারফরমেন্স করেন ‘পাগলু থোরাসা করলে রোমান্স’ গানের সঙ্গে। ‘এই রাত তোমার আমার’ এবং হিন্দি জনপ্রিয় একটি সুরের মিশ্রণে তৈরিকৃত ফিউশন নাচ নিয়ে মঞ্চ মাতান বাংলাদেশের ঈশানা। কলকাতার এনা সাহা ছিলেন ‘সুন্দরী কমলা’ গানের সঙ্গে। বাংলাদেশের অমৃতা ‘আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে’সহ কয়েকটি গানের সমন্বয়ে একটি ফিউশন ড্যান্স নিয়ে মঞ্চ মাতিয়েছেন।

নাগরিক টিভি’র অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান কামরুজ্জামান বাবু বললেন, ‘প্রচার হওয়া ৬৯টি পর্বে দুই বাংলার ৩০জন তারকা অংশ নিয়ে নাচের এই মঞ্চকে কীভাবে লড়াইয়ের মঞ্চে তৈরি করেছেন সেটাই দেখেছেন দর্শকরা। অনেকেই নাচতে গিয়ে নাচ ভুলে গেছেন! কেউ কেউ নতুন করে সুযোগ চেয়েছেন। কিন্তু বিচারকরা তাদের সিদ্ধান্তে অটল ছিলেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঢাকা ও কলকাতার টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র শিল্পীদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করতে ও উভয় বাংলার সংস্কৃতির ঐতিহ্যের ধারা দুই বাংলার টেলিভিশন দর্শকদের মাঝে তুলে ধরার জন্যই অনুষ্ঠানটি নির্মাণ হয়। দুই দেশের শিল্পীদের অংশগ্রহণে নাচের এমন অনুষ্ঠান এর আগে হয়নি।’

নাগরিক টিভিই প্রথম দুই দেশের শিল্পীদের নিয়ে কোনও নাচের প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান করার উদ্যোগ নেয়। যার পৃষ্ঠপোষকতায় যুক্ত ছিলো ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড। পাওয়ার্ড বাই সোহানা ইলেকট্রনিক্স। এই আয়োজনে সহযোগিতায় ছিল মমতাজ হারবাল লিমিটেড।

এই প্রতিযোগিতায় লাইফ লাইনের প্রতিযোগী হিসেবে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশ থেকে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি, টিভি অভিনেত্রী সাদিয়া জাহান প্রভা ও জাকিয়া বারী মম। আর কলকাতা থেকে অংশ নিয়েছেন জি বাংলার ‘রাশি’ সিরিয়ালের গীতশ্রী, চিত্রনায়িকা পায়েল ও ঋ। প্রতিটি পর্বে প্রধান বিচারক হিসেবে ঢাকার ইলিয়াস কাঞ্চন এবং কলকাতার শতাব্দী রায় যুক্ত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com