শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৩:৩৬ অপরাহ্ন

তালতলীতে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধুর আত্মহত্যা

খবরের আলো :

 

 

আমতলী(বরগুনা) প্রতিনিধি : স্বামী, শশুর ও শাশুরীর যৌতুকের দাবীতে অসহনীয় নির্যাতনের জ্বালা সইতে না পেরে মারিয়া বেগম (১৯) নামের এক গৃহবধু পিত্রালয় এসে আত্মহত্যা করেছে। সোমবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার পচাঁকোড়ালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
পরিবারিক ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পচাঁকোড়ালিয়া গ্রামের দিনমজুর মধু হাওলাদারের ৩ কন্যা সন্তানসহ ৫ সদস্যের পরিবার। দীর্ঘ দিন ধরে তিনি ব্রেইন ক্যান্সারে আক্রান্ত হলেও পরিবারের সদস্যদের বাঁচার তাগিদে ঢাকায় দিনমজুরের কাজ করে আসছে। ইতিমধ্যে গত বছরের প্রথম দিকে পার্শ্ববর্তী হাড়িপাড়া গ্রামের রহিম মোল্লার পুত্র সজিব মোল্লার সাথে দিনমজুর মধু হাওলাদারের প্রথমা কন্যা মারিয়ার বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছু দিন যেতে না যেতেই শশুর ও শাশুরীর কথামত স্বামী সজিব মোল্লা এক লক্ষ টাকা যৌতুকের জন্য চাপ দেয়। স্বামী, শশুর ও শাশুরীর যৌতুকের দাবী মেটাতে না পেরে মারিয়ার সাংসারিক জীবনে নেমে আসে চরম অশান্তি। প্রায় দিনই গৃহবধু মারিয়াকে শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়ে আসছিল স্বামী সজিবসহ শশুর-শাশুরী। স্বামী, শশুর ও শাশুরীর নির্যাতনের জ্বালা সইতে না পেরে গত ১৫ দিন আগে মারিয়া তার পিত্রালয় চলে আসে।
মারিয়ার মা রাবেয়া বেগম জানান, যৌতুকের দাবী মেটাতে না পেরে তার মেয়ে মারিয়া জামাইবাড়ী থেকে এসে স্বামী, শশুর ও শাশুরীর বিভিন্ন নির্যাতনের কথা বলেছে। ঘটনার আগে অনেক রাত পর্যন্ত মারিয়া তার স্বামীর সাথে মোবাইলে কথার কাটাকাটি করছিল। পরে দেখি ঘরের মাঁচায় একটি রুয়ার সাথে ওড়নায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ সুরাতহাল রিপোর্ট শেষে গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে প্রেরন করেন।
তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পুলক চন্দ্র রায় জানান, সুরাতহাল রিপোর্টে আত্মহত্যার প্রমান মিলেছে। তবে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার আগে স্বামী স্ত্রীর সাথে মোবাইলের কথোপকথন চেক করে ও ময়না তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী আইগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com