মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

গাজীপুরের শ্রীপুরে প্রতিবন্ধী ছয় মাসের অ্ন্তসও্বা

খবরের আলো :

 

 

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃবাবা মারাগেছে অনেক আগেই। গর্ভধারিনী মা-ও বেঁচে নেই। বড় ভাইয়ের দারিদ্রতার সংসারে সে যেন এক দায়গ্রস্ত কন্যা। পেট তো আর অভাব বুঝেনা! তাই দু’বেলায় খাবারের আশায় পাশেই আফির উদ্দিন মাস্টারের বাড়ীতে খাওয়ার বিনিময়ে কাজ করতে যায় গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের ধনুয়া গ্রামের মৃত কাজিম উদ্দিন এর প্রতিবন্ধী কন্যা পাপিয়া-(ছদ্দনাম)। (৩৫)। কিন্তু পেটের জ্বালাই কাল হলো তার জীবনের। কাজের ফাঁকে আফির উদ্দিনের কু-নজর পরে তার দেহের উপর। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে একাধীকবার শারীরিক সম্পর্ক করেন আফির উদ্দিন মাস্টার।
এ বিষয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারী ভিকটিমের বড় ভাই আক্তার হোসেন বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
ধনুয়া গ্রামের পাথার এলাকায় সরকারী একটি পুকুরপাড়ে জির্ণ কুঠিরে বাস করে পাপিয়া-(ছদ্দনাম)। এক বেলা দু বেলা না খেয়ে কোন মতে দিন কাটতো তার। তবু ভালো ছিল সে। কিন্তু আফিরের কু-দৃষ্টি এখন তার জীবন কে অন্ধাকার আচ্ছন্ন করে তুলেছে বলে কাঁদতে কাঁদতে জানান ৬ মাসের অন্তসত্ত্বা পাপিয়া-(ছদ্দনাম)। তাই তার পেটের সন্তানের পিতার স্বীকৃতি চায় সে।
থানায় দেওয়া অভিযোগ ও পাপিয়ার-(ছদ্দনাম) ভাবী ভাষ্যমতে জানাযায়, পাপিয়া-(ছদ্দনাম) একই এলাকার আফির উদ্দিনের বাড়ীতে থেকে প্রায় ১বছর যাবৎ কাজ করতো। কিছু দিন যাবৎ তার শারীরিক পরিবর্তন দেখে সন্দেহ হলে গত ১৩ ফেব্রুয়ারী স্থানীয় একটি ডাক্তারের কাছে নিয়ে পরিক্ষা নিরিক্ষা করলে ডাক্তার জানায় সে ৬মাসের অন্তসত্ত্বা। পরে আমার বোন বাড়ীতে এসে আফির মাস্টার তার সাথে বিভিন্ন সময় শারীরিক সর্ম্পক করে বলে জানায়। এ কথা কাউকে বল্লে তাকে খুন করবে বলেও হুমকী দেওয়া হয়। পরবর্তীতে গত ১৪ ফেব্রুয়ারী আফির মাস্টারের নিয়োজিত লোকজন বোনের পেটের বাচ্চা নস্ট করার উদ্দেশ্য সি.এন.জিতে উঠিয়ে নিয়ে যায়। পরের দিন দুপুরে ফিরে আসে সে।
তিনি আরো জানান, ঐ পক্ষ থেকে ১ লক্ষ টাকা দিয়ে আমাদের সাথে আপোষ করতে বলেছে । আমরা গরীব মানুষ টাকা পয়সা নাই সরকারী জমিতে থাকি তাই বিচার পাচ্ছিনা। আমাদেরকে এ জমি থেকে উঠিয়ে দিবে এবং আমাদেরকে মাদকের ব্যবসায়ী বানিয়ে পুলিশে দিবে এমন হুমকিও দেওয়া হচ্ছে। তাই আমরা ভয়ে কোন কিছু বলতে পারিনা।
স্বরেজমিনে শুক্রবার দুপুর ১২টায় ভিক্টিমের বাড়ীতে গিয়ে দেখা যায়, অভিযুক্ত পরিবারের একাধিক সদস্য বিভিন্ন ধরনের হুমকী দিচ্ছে। তথ্য চাইতে গেলে এক পর্যাক্রমে সংবাদ কর্মীদের সাথেও উত্তেজিত হয় তারা।
এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত আফির উদ্দিন মাস্টার গা ঢাকা দিয়েছে বলেও জানা যায়। উপরোক্ত বিষয়ে ব্যক্তিগত মতামত নেওয়ার জন্য তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে একাধীকবার ফোন দিলেও কোন সারা পাওয়া যায়নি। তবে তার স্কুলের প্রধান শিক্ষক নুরজাহান বেগম জানান, আফির উদ্দিন মাস্টার ডেপুটেশনে পি.টি.আই ট্রেনিং-এ রয়েছে।
এ বিষয়ে গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুল আজিজ জানান, আমি গতকাল এ ঘটনা শুনেছি। ভিকটিম ও অভিযুক্তকে এক সাথে করে পরিষদে আনার কথা বলছিলাম। কিন্তু তারা কেহ আমার সাথে যোগাযোগ করেনি।
শ্রীপুর থানার কর্তব্যরত পুলিশের সহকারী উপ-পরির্দশক (এএসআই) রাকিব জানান, এ বিষয়ে লিখিত একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পরবর্তী আইনী প্রক্রিয়া গ্রহন করা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com