বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

ঢাকায় আবারও আসছে মিয়ানমার প্রতিনিধি দল

ঢাকায় আবারও আসছে মিয়ানমার প্রতিনিধি দল

খবরের আলো ডেস্ক :

 

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা করতে বাংলাদেশে আবারও আসছে মিয়ানমারের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল। আগামী ২৮ থেকে ৩০ অক্টোবর এ প্রতিনিধি দল ঢাকা সফর করবে।সফরকালে প্রতিনিধি দলের কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের কথাও রয়েছে।এর আগে গত মে মাসে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের লক্ষ্যে যৌথ ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে ঢাকায় আসে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দল। ওই প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দেন মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিব মিন্ট থোয়ে। এবারও মিন্ট থোয়ে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন।মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে গত বছরের আগস্ট মাস থেকে নতুন করে রোহিঙ্গারা আসতে শুরু করে। এর আগে থেকেই ৪ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী কক্সবাজার অঞ্চলে বসবাস করছিল। আর এবার আরও প্রায় ৭ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী এসেছে। সব মিলেয়ে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী এখন কক্সবাজার অঞ্চলে বসবাস করছে।রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন সংক্রান্ত যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রথম বৈঠকে ‘ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট’ নামে একটি চুক্তি সই হয়েছিল, চুক্তি অনুযায়ী মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের আগামী দুই বছরের মধ্যে ফেরত নেয়া শেষ হবে। প্রতিদিন ৩০০ রোহিঙ্গাকে ফেরত নেবে মিয়ানমার।যেখানে প্রায় ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, সেখানে প্রতিদিন ফেরত পাঠানোর সংখ্যা মাত্র ৩০০, যা অতি নগণ্য। যদিও চুক্তিতে বলা হয়েছে তিন মাস পর এ সংখ্যা পর্যালোচনা করে বাড়ানো হবে। এ চুক্তি অনুযায়ী ২৩ জানুয়ারির মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হওয়ার কথা ছিল।তবে এখনও পর্যন্ত চুক্তির কোন আসানোরুপ অগ্রগতি নেই।প্রসঙ্গত, গত ৯ আগস্ট পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল মিয়ানমার সফর করে। এই প্রতিনিধি দলে পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুলও উপস্থিত ছিলেন।ওই সফরে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের আবাসন সুবিধা, চলাফেরা ও জীবনযাত্রাসহ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার অগ্রগতিও পর্যবেক্ষণ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের পর নিয়মিত বৈঠকে অংশ নিতে এবার ঢাকায় আসছে মিয়ানমার প্রতিনিধি দল।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com