শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১১:১২ অপরাহ্ন

বিশ্বে সবচেয়ে বায়ু দূষিত দেশের তালিকায় প্রথম বাংলাদেশ

খবরের আলো  ডেস্ক :

 

 

বিশ্বের সবচেয়ে বায়ু দূষিত দেশের তালিকায় শীর্ষে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ। এরপরই যথাক্রমে রয়েছে প্রতিবেশী দুই দেশ পাকিস্তান ও ভারত। সেইসঙ্গে সবচেয়ে দূষিত ৩০ শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান ১৭তম। মঙ্গলবার প্রকাশিত আইকিউএয়ার, এয়ারভিস্যুয়াল ও গ্রিনপিসের এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

২০১৮ সালের বায়ুতে দূষণের মাত্রা নিয়ে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। বাতাসের মধ্যে পিএমটুপয়েন্টফাইভ নামে পরিচিত এক ধরনের সূক্ষ্ম কণার উপস্থিতি হিসাব করে এ প্রতিবেদেন করা হয়।

বাতাসে পিএমটুপয়েন্টফাইভ-এর মাত্রা সর্বোচ্চ ১০০ ধরে এ তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এই কণাগুলো মানুষের ফুসফুস ও রক্তপ্রবাহে মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে।

বায়ু দূষণের শীর্ষে থাকা বাংলাদেশের বাতাসে পিএমটুপয়েন্টফাইভ’র গড় মাত্রা ৯৭.১, দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা পাকিস্তানের ৭৪.২৭, তৃতীয়তে থাকা ভারতের ৭২.৫৪। চতুর্থে থাকা আফগানিস্তানের ৬১.৮ বারহাইনের ৫৯.৮। এরপর রয়েছে যথাক্রমে মঙ্গোলিয়া, কুয়েত, নেপাল, সংযুক্ত আরব আমিরাত, নাইজেরিয়া।

অন্যদিকে সবচেয়ে কম দূষিত দেশ হিসেবে তালিকার নিচের দিকে রয়েছে যথাক্রমে আইসল্যান্ড (৫.০৫) ফিনল্যান্ড (৬.৫৭), অস্ট্রেলিয়া(৬.৮২), এস্তোনিয়া(৭.২) ও সুইডেনের (৭.৩৭) ।

এছাড়া বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ৩০ শহরের মধ্যে ২২টি ভারতে। পাঁচটি চীনে, দুইটি পাকিস্তানে ও একটি বাংলাদেশের।

বিশ্বে সবচেয়ে বায়ু দূষিত দেশের তালিকায় প্রথম বাংলাদেশদূষিত শহরগুলোর মধ্যে শীর্ষে থাকা শহরটি গুরুগ্রাম। এর অবস্থান ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির দক্ষিণপশ্চিমে। এরপরই আছে দিল্লির আরেকটি শহর গাজিয়াবাদ। এরপর দূষণের তৃতীয় স্থান আছে পাকিস্তানের ফয়সালাবাদ শহর।

এরপর চতুর্থ, পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে যথাক্রমে আছে ভারতের ফরিদাবাদ, ভিবাডি, নয়ডা ও পাটনা। অষ্টম স্থানে আছে চীনের হোটান শহর, এরপর ভারতের লক্ষ্ণৌ ও দশম স্থানে আছে পাকিস্তানের লাহোর শহর।

নতুন ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, বায়ু দূষণের কারণে আগামী বছর বিশ্বে প্রায় ৭০ লাখ অকাল মৃত্যুর ঘটনা ঘটবে। এর ফলে অর্থনীতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। তথ্য সূত্র: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট, গার্ডিয়ান, সিএনএন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com