মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০৩ অপরাহ্ন

মুক্তিযুদ্ধের কথা স্মরণ করিয়ে দেবে ‘অনুপ্রেরণা ১৯’

খবরের আলো :

 

মো: জসীম উদ্দীন চৌধুরী: ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ গাজীপুরের প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ সংগ্রামের স্মৃতিকে চির অ¤øান করে রাখার জন্য গাজীপুর সার্কিট হাউস প্রাঙ্গণে নির্মাণ করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন স্মারক ভাস্কর্য ‘অনুপ্রেরণা ১৯’।
শনিবার বিকেলে এ ভাস্কর্যের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মুক্তিযুদ্ধবিষযক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। এ উপলক্ষে গাজীপুর সার্কিট হাউজ প্রাঙ্গণে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক এমপি ও সাবেক সেনাপ্রধান কে এম সফিউল্লাহ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো আসাদুল ইসলাম, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুর মহানগর পুলিশের কমিশনার ওয়াইএম বেলালুর রহমান, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছাত্তার মিয়া, মোহর আলী, শেখ আবুল হোসাইন, আওয়ামী লীগ নেতা ওয়াজ উদ্দিন মিয়া ও আতাউল্লাহ মন্ডল প্রমুখ।
ভাস্কর্যটিতে লুঙ্গি পরা বয়স্ক কৃষকের হাতে বল্লম, কিশোরের হাতে বাঁশের লাঠি, তার পাশেই টগবগে এক যুবকের হাতে দোনালা বন্দুক রয়েছে। তাদের পেছনে বাঁ হাতে মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের পতাকা, আর ডান হাতে সেবাদানের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন প্রেরণাদায়ী এক নারী।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসকের পরিকল্পনা ও অর্থায়নে ভাস্কর্যটি নির্মাণে সময় লেগেছে প্রায় তিন মাস। সার্কিট হাউজের সবুজ মাঠের মাঝখানে সাড়ে তিন ফুট উঁচু বেদিতে দাঁড়িয়ে আছে ভাস্কর্যটি। দৃষ্টিনন্দন ও স্বাধীনতা আন্দোলনের স্মৃতি বিজড়িত ভাস্কর্যটি এক নজর দেখার জন্য এরই মধ্যে শত শত মানুষ ভিড় জমাচ্ছেন সার্টিক হাউস প্রাঙ্গণে। তরুণ ভাস্কর মুহম্মদ আরিফæজ্জামান নূরনবী মনের মাধুরী মিশিয়ে ভাস্কর্যটি নির্মাণ করেছেন। এটি তার প্রথম ভাস্কর্য।
গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর দৈনিক খবরের আলোকে
বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের স্মৃতিকে ধরে রাখতে এবং একাত্তরের বীরদের নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে ‘অনুপ্রেরণা ১৯’ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয় প্রায় এক বছর আগে। গত মে মাসের শেষের দিকে সার্কিট হাউস প্রাঙ্গণে ভাস্কর্যটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। এটি তৈরির জন্য দায়িত্ব দেয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের এক সময়ের মেধাবী শিক্ষার্থী ভাস্কর মুহম্মদ আরিফæজ্জামান নূরনবীকে।
তিনি আরও বলেন, ‘অনুপ্রেরণা ১৯’ ভাস্কর্যের মধ্যেই সেই প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ সংগ্রামের ইতিহাস ফুটে উঠেছে। এ প্রজন্ম যাতে সহজে স্বাধীনতার ইতিহাস জানতে পারে, শহীদদের আত্মত্যাগ, তখনকার মানুষের দেশের প্রতি কেমন মমত্ববোধ ছিল সেটা জানাতে ‘অনুপ্রেরণা ১৯’ নির্মাণ করা হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com