বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
অন্ন বস্ত্রের সমাধানের পর গৃহহীনদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা -তথ্যমন্ত্রী   বিত্ত কখনো রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা -তথ্যমন্ত্রী বাইডেনের শপথের সব আয়োজন সম্পন্ন, নজিরবিহীন নিরাপত্তা শিগগিরই ভ্যাকসিন বিতরণ কার্যক্রম শুরু : সংসদে প্রধানমন্ত্রী সিরাজগঞ্জে অবৈধ ৩টি ইটভাটায়  ভ্রাম্যমান আদালতে ১১ লক্ষ টাকা জরিমানা নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মকর্তা পরিষদের নির্বাচন ১৪ জানুয়ারি বেলকুচিতে আলোচিত পিতা-পুত্র হত্যা মামলার অন্যতম আসামী আটক স্পেনে তীব্র তুষারপাতে জনজীবন অচল: যান চলাচল বন্ধ সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের শিক্ষিকা শিউলী মল্লিকা গ্রেফতার দোহারে অবৈধ ড্রেজার পাইপ ভেঙ্গে দিল প্রশাসন 

নভেম্বর-জুন পর্যন্ত জাটকা ধরা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ

খবরের আলো রিপোটঃ

 

 

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু বলেছেন, নভেম্বর থেকে জুন পর্যন্ত ৮ মাস ১০ ইঞ্চি সাইজের জাটকাধরা সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ এবং ২২ দিন মা ইলিশ ধরা বন্ধ রাখতে হবে।

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার সামরাজ মাছঘাটে ১৬ থেকে ২২ মার্চ পর্যন্ত জাতীয় জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ-২০১৯ -এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনকালে তিনি এই কথা বলেন।

এতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রইছউল আলম মন্ডলের সভাপতিত্বে উদ্বোধনীতে অন্যান্যের মধ্যে চরফ্যাশন ৪ আসনের এমপি আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, ওয়াল্ড ফিসের কান্ট্রি পরিচালক ম্যাল্কম ডিকশন, মৎস্য অধিদফতরের ডিজি আবু সাইদ মো. রাশেদুল হক বক্তৃতা করেন।

আশরাফ আলী খান খসরু বলেন, ইলিশ আহরণে উপকূলীয় মৎস্যজীবীদের সরাসরি প্রায় ৫ লাখ এবং পরিবহন, বিক্রয়, জাল ও নৌকাতৈরি, বরফ উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, পরিবহন, রপ্তানি ইত্যাদি কাজে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ২৫ লাখ লোক জড়িত রয়েছে।

পৃথিবীর আরো ১৩টি দেশে ইলিশ পাওয়া গেলেও বাংলাদেশই বিশ্বের সর্বোচ্চ ইলিশ-উৎপাদনকারী দেশের মর্যাদা পেয়েছে। দেশের জিডিপিতে ইলিশের অবদান ১ শতাংশ এবং দেশের মোট মৎস্য উৎপাদনের ১২ শতাংশ। ইলিশের এই অবদান আরো বৃদ্ধির জন্য সরকার উপকূলীয় ৬টি এলাকাকে ইলিশের অভয়াশ্রম ঘোষণা করেছে।

ইলিশ সম্পদ রক্ষা ও এর ক্রমবর্ধমান উন্নয়নে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের গৃহীত কার্যক্রমের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, জাটকাআহরণে বিরত থাকলে জেলেরাই বড়বড় ইলিশ আহরণ করে অধিক আয় করতে পারবেন। তাই তিনি মা-ইলিশরক্ষায় প্রধান প্রজননমৌসুমে মোট ২২দিন (আশ্বিন মাসের প্রথম উদিত চাদেঁর পূর্ণিমার ৪দিন আগে, ১৭দিন পরে ও পূর্ণিমার দিনসহ মোট ২২দিন) এবং একটানা নভেম্বর থেকে জুন পর্যন্ত ৮ মাস জাটকা নিধন রোধে কোনো প্রকার জাল না ফেলতে সবাইর প্রতি আহবান জানান।

এ সময় উপকূলীয় ৩৬ জেলায় জাটকাসহ অন্যান্য মৎস্যসম্পদ ধ্বংসকারী অবৈধ জালনির্মূলে ‘সম্মিলিত বিশেষ অভিযান’ পরিচালনার কাজেও তিনি সবার সহায়তা কামনা করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com