রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
অন্ন বস্ত্রের সমাধানের পর গৃহহীনদের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা -তথ্যমন্ত্রী   বিত্ত কখনো রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা -তথ্যমন্ত্রী বাইডেনের শপথের সব আয়োজন সম্পন্ন, নজিরবিহীন নিরাপত্তা শিগগিরই ভ্যাকসিন বিতরণ কার্যক্রম শুরু : সংসদে প্রধানমন্ত্রী সিরাজগঞ্জে অবৈধ ৩টি ইটভাটায়  ভ্রাম্যমান আদালতে ১১ লক্ষ টাকা জরিমানা নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মকর্তা পরিষদের নির্বাচন ১৪ জানুয়ারি বেলকুচিতে আলোচিত পিতা-পুত্র হত্যা মামলার অন্যতম আসামী আটক স্পেনে তীব্র তুষারপাতে জনজীবন অচল: যান চলাচল বন্ধ সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের শিক্ষিকা শিউলী মল্লিকা গ্রেফতার দোহারে অবৈধ ড্রেজার পাইপ ভেঙ্গে দিল প্রশাসন 

সাতক্ষীরা কালিগঞ্জে ডাক্তারর ভুল চিকিৎসায় ডেলিভারির আগেই প্রসূতির মৃত্যু

খবরের আলো :

 

 

শেখ আমিনুর হোসেন, সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফ: ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় অকালেই প্রাণ হারালেন সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের গৃহবধূ ফাতেমা তুজ জোহরা চামেলি ( ২৮)। রবিবার রাতে তার এই মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারের সদস্যরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন। তারা সংশ্লিষ্ট ডা. আকসদুর রহমানের বিচার দাবি করেছেন।
গৃহবধূ চামেলি কালিগঞ্জের নলতা শরিফ গ্রামের লিয়াকত হোসেনের মেয়ে ও শ্যামনগরে কুপোট গ্রামের ফজলুর রহমান আকাশের স্ত্রী।
রবিবার বিকালে প্রসব যন্ত্রণা উঠলে তাকে ভর্তি করা হয় কালিগঞ্জের আহসানিয়া মিশন চক্ষু ও জেনারেল হাসপাতালে। সিজারিংয়ের মাধ্যমে ডেলিভারি করাতে তাকে নেওয়া হয় অপারেশন থিয়েটার। ওই হাসপাতালের পরিচালক ডা. আকসদুর রহমান তাকে সিজার করেন। চামেলির চাচা আব্দুল মান্নান জানান, তাদের মেয়েকে বিকাল ৫টায় অপারেশন থিয়টার নেওয়া হলেও টানা চার ঘণ্টা যাবত কোনা খবর আমরা পাচ্ছিলাম না। রাত ৭ টার দিকে তাকে ওটি থেকে বের করে এনে অ্যাম্বুলেন্স উঠোনো হচ্ছিল। তাকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে বলা হয় তার অবস্থা ভালো নয়, খুলনায় নিতে হবে। এ সময় পরিবারের সদস্যদের চাপের মুখে তাকে দেখত দেওয়া হয়। তারা দেখতে পান চামেলি মারা গেছে। এ খবর প্রচার হতেই হই চই উত্তজনার সৃষ্টি হয়। হাসপাতালের লোকজন এদিক ওদিক পালিয়ে যেতে থাকে। ডা. আকসদুর রহমান নিজেই রুমের দরজা বন্ধ করে পালিয়ে থাকেন। পরিবারের সদস্যরা ছাড়াও স্হানীয়রা সংশ্লিষ্টদের ওপর চড়াও হন। তারা এর বিচার দাবি করেন। খবর পেয়ে কালিগঞ্জ থানা পুলিশ আসে। তিনি বলেন, পুলিশ লাশ দেখেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আব্দুল মান্নান আরও বলেন,স্হানীয় সাবেক মেম্বার আনিসুজ্জামান খোকন আহসানিয়া মিশনের সদস্য হওয়ায় প্রভাব সৃষ্টি করে আমাদের সরিয়ে দেন। রাত ১১ টার দিকে তারা তাদের মেয়ে চামলির লাশ বাড়ি নিয়ে আসেন। আব্দুল মান্নান জানান, আমরা আর থানা পুলিশ করতে সাহস করিনি। কারণ আহসানিয়া মিশনের এনামুল সাহেব ও সাবেক মেম্বার খোকন প্রভাব সৃষ্টি করে আমাদের থামিয়ে দিয়েছেন। দুপুরে মেয়েটির দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তিনি আফসোস করে বলেন, আমরা মেয়েটির পেটের সন্তানটি বের করার অনুরোধ জানিয়েও ব্যর্থ হয়েছি। একই সাথে আমরা দুটি জীবন হারালাম। আর এর জন্য দায়ী ডা. আকসদুর রহমান। এসব বিষয় জানতে ডা, আকসদুর রহমানের সাথে টেলিফোন যোগাযোগ করা যায়নি।
কালিগঞ্জ থানার ওসি হাসান হাফিজুর রহমান জানান, কোন লিখিত অভিযোগ আমরা পাইনি। পেলে ব্যবস্থা নিতে পারি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com