রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:৩১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জে অবৈধ ৩টি ইটভাটায়  ভ্রাম্যমান আদালতে ১১ লক্ষ টাকা জরিমানা নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মকর্তা পরিষদের নির্বাচন ১৪ জানুয়ারি বেলকুচিতে আলোচিত পিতা-পুত্র হত্যা মামলার অন্যতম আসামী আটক স্পেনে তীব্র তুষারপাতে জনজীবন অচল: যান চলাচল বন্ধ সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের শিক্ষিকা শিউলী মল্লিকা গ্রেফতার দোহারে অবৈধ ড্রেজার পাইপ ভেঙ্গে দিল প্রশাসন  সালমান এফ রহমানের দোহার – নবাবগঞ্জে উন্মুক্ত হলো ওয়াজ মাহফিল বদলগাছীর কোলা ইউনিয়ন কে মডেল ইউনিয়ন গড়ার প্রত্যয়ে কাজ করছেন চেয়ারম্যান স্বপন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন রাজধানীর মিরপুরে নতুন বছর উদযাপনের বিশেষ আয়োজন

ঝুঁকিতে প্রায় ২ কোটি বাংলাদেশী শিশু: ইউনিসেফ

খবরের আলো  ডেস্ক :

 

 

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশে ১ কোটি ৯০ লাখেরও বেশি শিশুর জীবন বিধ্বংসী ঝড়, বন্যাসহ অন্যান্য আকস্মিক প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকিতে রয়েছে। শুক্রবার জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এক বিবৃতিতে এ কথা বলেছে। সংস্থাটি বলেছে, শিশুদের ওপর জলবায়ু পরিবর্তনের এই হুমকি মোকাবেলা করার জন্য বিভিন্ন কর্মসূচি নেয়া জরুরি। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব থেকে শিশুদের সুরক্ষা দেয়ার কর্মসূচি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়সহ অন্য অংশীদারদেরদের প্রতি আহবান জানিয়েছে ইউনিসেফ।

সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর বলেন, বাংলাদেশে দরিদ্র গোষ্ঠী বর্তমানে যে পরিবেশগত হুমকির মুখে রয়েছে, জলবায়ু পরিবর্তন সে হুমকি আরো বাড়িয়ে দিচ্ছে। ফলে ওই পরিবারগুলো তাদের শিশুদের জন্য আবাসন, খাদ্য, স্বাস্থ্যসেবা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারছে না। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ শিশু সুরক্ষা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে যে সফলতা অর্জন করেছে, জলবায়ু পরিবর্তন সে সফলতাকে উল্টে দিতে পারে।
ইউনিসেফ বলেছে, সমতল ভূ-ত্বক, ঘনবসতি ও দুর্বল অবকাঠামোর কারণে বাংলাদেশ শক্তিশালী ও আকস্মিক দুর্যোগের ঝুঁকিতে রয়েছে।

বন্যা ও খরা-প্রবণ উত্তরাঞ্চল থেকে শুরু করে বঙ্গোপসাগরের উপকূল পর্যন্ত সবখানেই এই দুর্যোগের হুমকি বিদ্যমান। বাংলাদেশের বিভিন্ন পরিবার, কম্যুনিটি নেতা ও কর্মকর্তাদের সাক্ষাৎকারের কথা উল্লেখ করে ইউনিসেফ আরো বলেছে- বন্যা, খরা ও সাইক্লোনের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ বাংলাদেশে দরিদ্র পরিবারগুলোকে আরো দরিদ্রতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে। অনেকক্ষেত্রে তারা স্থানান্তরিত হতে বাধ্য হচ্ছে। বারবার প্রাকৃতিক দুর্যোগে আক্রান্ত অনেক পরিবার সর্বস্ব হারিয়ে এক পর্যায়ে কাজের খোঁজে শহরে চলে আসছে। এই পরিবারের শিশুরা অর্থ উপার্জনের জন্য কোন কাজে যোগ দিতে বাধ্য হচ্ছে। এর ফলে শিশুদের নানা ধরনের নির্যাতনের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ছে। এসব শিশুদের জন্য পাচার ও যৌনপেশায় বাধ্য হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।  এছাড়া, অনেক পরিবার দায়িত্ব নিতে না পেরে মেয়ে শিশুদের দ্রুত বিয়ে দিয়ে দিচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের বিশটি জেলার শিশুরা সবচাইতে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে। সামুদ্রিক ঝড়, আকস্মিক বন্যা, খরার মতো দুর্যোগের শিকার হতে পারে এসব জেলা। এর মধ্যে উপকূলীয় জেলাগুলোতে জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি বেশি। ঝুঁকিতে থাকা ২০টি জেলা হলো- কক্সবাজার, রাজশাহী, হবিগঞ্জ, নোয়াখালী, নেত্রকোনা, বাগেরহাট, যশোর, ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, টাঙ্গাইল, ফরিদুপর, খুলনা, সাতক্ষীরা, জামালপুর, সিরাজগঞ্জ, নীলফামারী, গাইবান্ধা ও সুনামগঞ্জ। এসব জেলায় শিশুরা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৮ বছরের নিচে ১ কোটি ৯৪ লাখ ১৯ হাজার ৮২৯ শিশু এ জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হবে। এ ছাড়া ৫ বছরের নিচে ঝুঁকিতে আছে ৫৩ লাখ ৫৯ হাজার ৬৭ শিশু। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে এক কোটি ২০ লক্ষ শিশু। যাদের বসবাস বাংলাদেশে নদী উপকূলে। তাদের ক্ষেত্রে নদী ভাঙন একটি নিয়মিত ব্যাপার। আর নিয়মিত সাইক্লোনের ঝুঁকিতে রয়েছে ৪৫ লাখের মতো শিশু, যারা সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চলে বসবাস করে। তাদের মধ্যে রয়েছে বহু রোহিঙ্গা শিশু। যারা খুব দুর্বল আবাসন ব্যবস্থায় বসবাস করছে।

হেনরিয়েটা ফোর বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন বহু শিশুর বাল্যকাল কেড়ে নিচ্ছে। জীবনের তাগিদে তাদেরকে দ্রুত বড় হয়ে উঠতে হচ্ছে এবং নিজের দায়িত্ব নিতে হচ্ছে ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com