রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :

সিরাজগঞ্জের ৩নং ক্রসবার বাঁধে ভাঙন, বাঁধের ৭০ মিটার যমুনা গর্ভে

খবরের আলো  :

 

মিঠুন বসাক, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জ শহরের কাটা ওয়াবদা এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মিত শহর রক্ষা বাঁধের ৩-নং ক্রসবারের দুইটি স্থানে যমুনা গর্ভে ধ্বসে গেছে। সরকারি নীতিমালা ও চুক্তি অমান্য করে অপরিকল্পিত ভাবে বালু উত্তোলনের জন্য এই ভাঙনের কারণ বলে দাবি এলাকাবাসীর।

গত রবিবার(৭ অক্টোবর) যমুনার ক্রসবার-৩ এর দক্ষিণ প্রান্তে ভাঙ্গন দেখা দেয়। মাত্র তিন ঘণ্টার ব্যবধানে বাঁধের প্রায় ৭০ মিটার অংশ ধ্বসে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। সিরাজগঞ্জ সদরের শহর রক্ষা বাঁধ সুরক্ষায় পাওবো সদ্য ৪টি ক্রসবার বাঁধ নির্মাণ করেছে। ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত (১৭৮২ মিটার) ৩নং ক্রসবার বাঁধ ২০১৭ সালের জুনে নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়।

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) উপ-সহকারী প্রকৌশলী রণজিৎ কুমার সরকার জানান, যমুনার পানি কমতে থাকায় বাঁধের নিচের অংশ থেকে মাটি সরে যাচ্ছে। এ কারণে বাঁধের ৭০ মিটার অংশ ধ্বসে গেছে।

পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম বলেন, ইতিমধ্যেই বাঁধের ধ্বংস ঠেকাতে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং শুরু করা হয়েছে। পানি কমে গেলে বাঁধের ক্ষতিগ্রস্ত অংশগুলো পুনঃসংস্কার করা হবে। অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের কারণে এই ভাঙন হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, অবৈধ বালু উত্তোলন কারীদের বিরুদ্ধে আমরা সবসময় সোচ্চার। জেলা প্রশাসকের সহযোগিতা নিয়ে আমরা বিভিন্ন সময় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে আসছি। কয়েকদিন আগেই ক্রসবার এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে দুইটি ড্রেজার জব্দ করে ৭ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছি।

সিরাজগঞ্জ স্বার্থ রক্ষা সংগ্রাম কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক নব কুমার কর্মকার বলেন, সরকারি নীতিমালা, চুক্তি বা শর্ত ভঙ্গ করে বালু উত্তোলন করার ফলে নদীর তলদেশে মাটি সরে গিয়ে শহর রক্ষা বাঁধের এই ভাঙ্গন। এতে হুমকীর মুখে পড়েছে বঙ্গবন্ধু সেতু। তিনি দ্রæত অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবী জানান।

এ ব্যাপারে ভাঙ্গন কবলিত এলাকা ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম ভুট্টো অভিযোগ করে বলেন, ইজারাদারগণের সাথে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তি জেলা প্রশাসক, সেতু কতৃপক্ষ ও পাওবো’র নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ড্রেজার দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনই এই ভাঙনের কারণ। বালু উত্তোলন কারীরা রাজনৈতিক ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয়রা কোন প্রতিবাদ করতে পারে না। ১নং থেকে ৪নং ক্রসবার বাঁধের পাশ থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত দিনের পর দিন বড় বড় ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের ফলে শিল্পপার্ক, বঙ্গবন্ধু সেতু, বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও শহর রক্ষা বাঁধ গুলো হুমকীর মুখে বলে তিনি দাবি করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com