বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১০:০৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সারাদেশে করোনায় আরও ২৩৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫ সহস্রাধিক মাধবপুরে গাঁজা গাছসহ আটক ১ বিচার বিভাগে করোনা শনাক্ত ৯৬৫ জনের, চিকিৎসাধীন ৫৯ বিচারক অব্যাহতির বিরুদ্ধে বাদী নারাজি দিচ্ছে মুনিয়া আত্মহত্যা মামলায় বসুন্ধরার এমডিকে অব্যাহতি দিয়ে প্রতিবেদনের শুনানি আজ হয়নি বাড়ছে ডেঙ্গু: প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ৭ নির্দেশনা নিজের আইসিইউ সিট ছেলেকে দিলেন মা, অবশেষে বাঁচলেন না কেউই সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে বৌভাত অনুষ্ঠান করায় ১০,০০০ টাকা জরিমানা সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে বসতবাড়ির রাস্তা বন্ধ করায় ৪টি পরিবার অবরুদ্ধ মানিকগঞ্জে লকডাউনে কঠোর অবস্থানে গোলড়া হাইওয়ে থানা পুলিশ মাধবপুরে কাশিমনগর বাজারে  অগ্নিকান্ডে ১০ দোকান পুড়ে ছাই, প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি

দু’ সন্তানের জননীকে কালিগঞ্জে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

খবরের আলো :

 

 

শেখ আমিনুর হোসেন, সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফ: যৌতুকের দাবিতে দু’ সন্তানের জননীকে পিটিয় হত্যা করা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার দুপুর দু’ টার দিকে সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার পাইকাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম আফরোজা খাতুন(২৬)। তিনি সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার পাইকাড়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের স্ত্রী ও পার্শ্ববর্তী নওয়াপাড়া গ্রামের রাশেদ আলীর ছেলে।
নওয়াপাড়া গ্রামের আজমল হোসেন জানান, ১০ বছর আগে তার সঙ্গে পাইকাড়া গ্রামের শাহজাহান পাড়ের ছেলে আলমগীর হোসেনের বিয়ে হয়। বর্তমান আলমগীর ভারতের তামিলনাড়ুতে কাজ করে। তাদের সিয়াম (৯) ও শিহাব (দেড়) নামে তাদের দু’ সন্তান আছে। দুলাভাই বিদেশ থাকায় বাবা শ্বশুর শাহাজাহান পাড় ও মা আনোয়ারা বেগম তার বোনকে বাপের বাড়ি থেকে প্রায়ই টাকা ও জিনিসপত্র আনার জন্য চাপ সৃষ্টি করতো। এ নিয়ে কয়েক বার মারপিটের ঘটনা ও ঘটেছে। মা নবী বেগমের নামীয় বীমার নমিনি ছিলো বোন আফরোজা। বীমার টাকা সব বোনকে দিয়ে দেওয়ার কথা বলে বাকী কিস্তি পরিশোধ করার জন্য বোনকে বলেন মা। বিষয়টি জানতে পেরে বোনের শ্বশুর ও শ্বাশুড়ি ব্যাপক মারপিট করে দু’ সপ্তাহ আগে। এ নিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য রবিউল ইসলাম এক শালিসি বৈঠকের মাধ্যমে মীমাংসা করে দেন। বৃহষ্পতিবার সকালে বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলে আফরোজার শ্বাশুড়ি ও শ্বশুর। অপারগতা প্রকাশ করায় আফরোজাকে ব্যাপক মারপিট করা হয়। বিকাল তিনটার দিকে চাচা শ্বশুর মিঞাজান আলী ও গ্রাম ডাক্তার মোঃ নাসিম মোবাইল ফোনে তাদেরকে আফরোজা মারা গেছে বলে জানান। সেখানে এসে আফরোজাকে বসত ঘরের বারান্দায় মৃত অবস্থায় দেখতে পান তারা। আফরোজাকে মেরে ফেলে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করছে এমন প্রচার দিয়ে ঘরে তালা লাগিয়ে শ্বশুর শ্বশুড়ি পালিয়ে গেছে বলে স্থানীয়রা তাদেরকে জানান। তার বোনক হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেন আজমল ও তার মামা শাহীনুর।
নিহতের ছেলে কাশিবাটি দাখিল মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র সিয়াম পাড় জানায়, তার মাকে দাদা ও দাদি প্রায়ই মারপিট করতো। বৃহষ্পতিবার সকালেও মাকে কয়েক দফায় পেটানো হয়। মাকে না মারার জন্য দাদীর পায়ে ধরছিলো সে। তবুও শোননি। দুপুরে যখন মায়ের অবস্থা খুব খারাপ তখন ছোট ভাইকে বাড়িতে রেখে দাদা তাকে নিয়ে মাঠে যায়। বিকাল তিনটার দিকে বাড়ি এসে মাকে বারান্দায় মৃত দেখতে পায় সে। তার মাকে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে বলে দাবি করেন সিয়াম।
গ্রাম ডাক্তার শেখ মোঃ নাসিম জানান, খবর পেয়ে দুপুর আড়াইটার দিকে আফরোজাকে পরীক্ষা করে কমপক্ষে আধ ঘণ্টা আগে মারা গেছে বলে জানতে পারেন তিনি। মৃতের শরীরের দু’ হাতের তালু, দু’ উরু, কোমর ছাড়াও শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত ছিলো।
কালিগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক আমজাদ হোসেন জানান, আফরোজার শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্তাক্ত জখম রয়েছে। তবে তাকে হত্যা করা হয়েছে না নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে ময়না তদন্ত ছাড়া এখনই বলা যাবে না। লাশের ময়না তদন্তের জন্য শুক্রবার সকালে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com