সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বদলগাছীতে নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত  যশোর ডিবির পৃথক তিনটি সফল অভিযান অপহরণের এক সপ্তাহেও উদ্ধার হয়নি ফুলবাড়ীর কলেজ ছাত্রী নূপুর মহন্ত বাচ্চাদের তাড়াতে গিয়ে গুলি নিক্ষেপ করল মন্ত্রী পুত্র, জনতার হাতে গণধোলাই ফুলবাড়ীতে অর্ধশত এতিম শিশুর মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ আসামের নগাঁওয়ে পুলিশের এনকাউন্টার, তীব্র প্রতিক্রিয়া কাটলিছড়ায় শ্রীমন্দির ও শ্রীবিগ্রহ দ্বাদশতম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উৎসব উপলক্ষে অনলাইন সৎসঙ্গ অনুষ্ঠিত বরগুনার সাংসদ ও ওসির ফোনালাপ ভাইরাল সাতক্ষীরা আদালত চত্তরে অনলাইন প্রেসক্লাবের মাস্ক ও সাবান বিতরণ চুয়াডাঙ্গার জে.আর পরিবহনের সাথে মোটরসাইকেলের ধাক্কা; চালক পঙ্গুতে

পায়ের পাতায় ঝি ঝি ধরলে করণীয়

খবরের আলো :

 

অনেকক্ষণ ধরে কোথায় বসে আছেন, উঠবার সময় খেয়াল করলেন পা অবস হয়ে গেছে। এই অবস্থাকে আমরা প্রচলিত ভাষা “ঝি ঝি” ধরা বলে থাকি। পা ঝি ঝি ধরে না এমন মানুষ খুবী কম আছে।

পায়ে ঝি ঝি ধরার কারণ

পায়ে ঝি ঝি ধরতে পারে এমন অনেক কারণ থাকে। অনেক সময় একইভাবে বসে থাকলে পায়ে ঝি ঝি বোধ হতে পারে। আমাদের নিতম্ব, উরু এবং পায়ের পেশিগুলোতে সংবেদন প্রেরণ করে সায়াটিক স্নায়ু, যা এসব অংগের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে। দীর্ঘ সময় বসে থাকার কারণে অনেক সময় সায়াটিক স্নায়ুর উপর চাপ পড়ে। তখন পায়ে সংবেদন পাওয়া যায় না।

আবার অনেক সময় বসে বিশেষ ভঙ্গিতে বসে থাকলে পায়ের গোড়ালি অঞ্চলে রক্ত জমাট বেঁধে যায়। এর ফলে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত ধমনীপথে বের হতে পারে না। ফলে ধীরে ধীরে পায়ে অক্সিজেনের অভাব অনুভূতি জাগায়।

ডায়াবেটিস, লাম্বার স্পন্ডালাইসিস এবং পুষ্টিহীনতার কারণে মারাত্মক দুর্বলতাও এ ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। চলুন জেনে নেই পায়ে পায়ে ঝি ঝি ধরলে কি করবেন।

মাথা এপাশ থেকে ওপাশে দুলান:

বেকায়দায় বসা বা শোয়ার জন্য অনেক সময় আমাদের হাতে-পায়ে ঝি ঝি ধরে যায়। সাধারণত ঘাড়ের নার্ভে চাপ পড়ার জন্য হাতে ঝি ঝি ধরে। হাতে ঝি ঝি ধরলে আপনার মাথা এপাশ থেকে ওপাশে দুলান। এত ঝি ঝি ধরলে আস্তে আস্তে কমে যাবে।

দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ হাঁটুন:

ঘাড় এদিক হতে ওদিক করার মাধমে ঘাড়ের মাসল শিথিল হয়। পায়ে ঝি ঝি ধরে শরীরের নিচের অংশের মাসল সংকোচনের জন্য। এক্ষেত্রে দাঁড়িয়ে কিছুক্ষণ হাঁটা শুরু করুন, ঝি ঝি চলে যাবে।

সাধারণত: দেহে ওয়াটার স্যলুবল বি ভিটামিন, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়ামের অভাব হলে এই লক্ষণটি দেখা দেয়। এরূপ পরিস্থিতিতে চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়ার সঠিক পদক্ষেপ হবে।

ভিটামিনের অভাব পূরণে সবুজ শাক, কাঠবাদাম, তাল, কমলা, কলা, চীনাবাদাম, ডাবের পানি, কিশমিশ, কাজু বাদাম ইত্যাদি রাখুন খাদ্যতালিকায়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com