সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন

“অপরাধী যেই হোক অপরাধ করলে তাকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না : পুলিশ সুপার

খবরের আলো :

 

 

স্টাফ রিপোর্টার সাহাদাৎ হোসেন শাহীনঃ ০১/০৮/২০১৯ তারিখ ১৯.৩০ ঘটিকার সময় জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি চৌকশ টিম এসআই/ মোঃ আব্দুল জলিল মাতুব্বর, এসআই/ খোকন চন্দ্র সরকার, এএসআই/আমিনুল ইসলাম ও সঙ্গীয় অন্যান্য ফোর্সসহ নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন এলাকায় মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে নবীগঞ্জ ফেরী ঘাটে অবস্থান কালে গোপন সূত্রে সংবাদ পায় যে, চাষাড়া হতে একটি সাদা রং এর মিনি হায়েচ গাড়ী যার নম্বর-ঢাকা মেট্রো-চ-৫৩-৯৪৮ ‘তে করে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী মাদক বহন করিয়া নবীগঞ্জ ঘাটের দিকে যাইতেছে। উক্ত সংবাদের সত্যতা যাচায়ের জন্য ডিবির উক্ত চৌকশ টিম ইং ০১/০৮/২০১৯ তারিখ রাত ২১.৪০ মিনিটের সময় উক্ত মিনি হায়েচ গাড়ীটি নবীগঞ্জ ফেরী ঘাটে পৌছা মাত্রই থামানো সংকেত দিয়ে ফেরী ঘাটের রোডে যাত্রী ছাউনির সামনে পাকা রাস্তার উপর থামানো হয়। উক্ত যাত্রী ছাউনিতে ও আশপাশে থাকা উপস্থিত সাক্ষীদের মোকাবেলায় উক্ত গাড়ী সহ গাড়ীর ভেতরে থাকা যাত্রীদের তল্লাশী কালে আসামী সাইফুদ্দীন আহম্মেদ দুলাল প্রধান(৩৮) এর দেহ তল্লাশী কালে তার পরিহিত প্যান্টের সামনে ডান পকেটে ০২(দুই) বোতল অবৈধ মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল, অপর আসমী কামাল হাসান (৪৭) এর পরিহিত প্যান্টের সামনে ডান পকেটে ০২(দুই) বোতল অবৈধ মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল পাওয়া যায় এবং আটককৃত গাড়ী তল্লাশী কালে গাড়ীর মাঝখানের ছিটের নিচে একটি শপিং ব্যাগের মধ্যে ২০ বোতল অবৈধ মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল, গাড়ীর পিছনের ছিটের নিচে অপর আরেকটি শপিং ব্যাগের মধ্যে আরো ২০ বোতল অবৈধ মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল এবং ড্রাইভারের ছিটের পিছনে পকেটে রাখা ০৬ বোতল অবৈধ মাদক দ্রব্য ফেন্সিডিল সর্বমোট ৫০(পঞ্চাশ) বোতল মাদক জাতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয় এবং বিধি মোতাবেক জব্দ করা হয়। ধৃত আসামী দুলাল প্রধানের শার্টের বুক পকেট হইতে ফেন্সিডিল বিক্রির নগদ ৩২,০০০/- টাকাও বিধি মোতাবেক জব্দ করা হয়। আরো অপর সহযোগী আসামীরা হলো মনির হোসেন মনু(৫০), তানভীর আহম্মেদ সোহেল(৪১), মোঃ মজিবর রহমান(৫২)। উক্ত আসামীদের জিজ্ঞাবাদ করিলে মূল আসামী দুলাল প্রধান স্বীকার করে যে, তিনি একজন কাউন্সিলর এবং মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক উক্ত পরিচয়ের আড়ালে সে এবং তার সহযোগীরা একে অপরের সহায়তায় ফেন্সিডিলের ব্যবসা করে আসতেছিল। উক্ত বিষয়ে সদর থানায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের ০৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়তেছে। নারায়ণগঞ্জ জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার) মহোদয় বলেন, মাদকের সাথে কোন আপোস নাই। অপরাধী যেই হোক না কেন, অপরাধ করলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com