সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

শিশুসন্তানকে ‘হত্যা’র পর মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

মঙ্গলবার, ২৭ অগাস্ট : পুরান ঢাকার গেণ্ডারিয়ার স্বামীবাগের একটি বাসায় শিশুসন্তানকে ‘হত্যা’র পর সোনিয়া আক্তার (২৬) নামে এক মা আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। এক বছর বয়সী শিশু জান্নাত আক্তারকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শিশুটির মা সোনিয়া ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শিশুটির মৃত্যুসনদে চিকিৎসকরা ‘পয়জনিং’ কারণে মৃত্যুর কথা উল্লেখ করেছেন। তবে পুলিশ বলছে, বাসাটিতে বিষ বা কীটনাশক জাতীয় কিছু পাওয়া যায়নি। সাধারণ কিছু ওষুধ পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত ওষুধ খাওয়ানোর পর শিশুটি মারা গেছে। এরপর হয়তো তার মা আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছেন।

স্বজনরা জানিয়েছেন, শিশু জান্নাত একমাত্র সন্তান ছিল সোনিয়ার। এক বছর আগে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার জন্ম হয়। এর পর থেকে সোনিয়া অসুস্থ। সর্বশেষ মাসখানেক আগে তার জরায়ুতে অস্ত্রোপচার করা হয়। গুরুতর অসুস্থ হয়ে তিনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন। তার স্বামী আনোয়ার হোসেন পেশায় নৈশপ্রহরী। তাদের বাড়ি খুলনার খালিশপুরে।

আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, সোমবার রাতে তিনি ডিউটিতে ছিলেন। ভোরে বাসায় ফিরে স্ত্রী সোনিয়া ও মেয়ে জান্নাতকে অচেতন অবস্থায় পান। সোনিয়া কিছুটা কথা বলতে পারায় দ্রুত দু’জনকে হাসপাতালে নিয়ে যান। এরপর চিকিৎসক মেয়েকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার সময় তার দুই শিশু ভাগ্নে বাসায় থাকলেও তারা ঘুমিয়ে ছিল।

আনোয়ার হোসেন বলেন, কষ্টে জীবনযাপন করলেও তাদের কোনো পারিবারিক কলহ ছিল না। তার অসুস্থ স্ত্রী মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন। তা ছাড়া সোনিয়া তার ভাইয়ের স্ত্রীকে গ্রাম থেকে ঢাকায় বেড়াতে আসতে বলেছিলেন। এতে তিনি বলেছিলেন, কিছু দিন পরে আসতে। এজন্যও তার স্ত্রী অভিমান করতে পারেন। কেন এমন হলো তিনি কিছুই বুঝতে পারছেন না। পুলিশ বলেছে, সবকিছু তদন্ত করে বের করা হবে।

জানতে চাইলে গেণ্ডারিয়া থানার ওসি সাজু মিয়া বলেন, তারা শুরুর দিকে ধারণা করেছিলেন, বিষপানে শিশুটিকে হত্যার পর তার মা আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। তবে বাসায় আপাতত সে ধরনের আলামত মেলেনি।

তিনি বলেন, প্রাথমিক তদন্তে মনে হয়েছে, শিশুটিকে অতিরিক্ত ওষুধ খাওয়ানো হয়েছে। এখন সেটা ভুলে নাকি পরিকল্পিতভাবে করা হয়েছে, তা সোনিয়া সুস্থ হওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। শিশু জান্নাতের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনেও মৃত্যুর কারণ পরিষ্কার হবে।ওসি বলেন, ঘটনাটি নিয়ে এখনও তারা সঠিক কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেননি। এজন্য সব বিষয় মাথায় রেখে পুরো ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে।সমকাল

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com