বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৬:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :

সোনারগাঁয়ে ২২০ ড্রাম চোরাই পাম তেল উদ্ধার গ্রেফতার:১

খবরের আলো :

 

 

স্টাফ রিপোর্টার সাহাদাৎ হোসেন শাহীনঃসোনারগাঁয়ের ছয়হিশ্যা নদী ঘাটে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ২২০ ড্রামে ৪১৮০০ লিটার চোরাই পাম তেল উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১ ৷ এ সময় রফিকুল ইসলাম নামের(৪২) একজনকে গ্রেফতার করা হয়৷ তিনি সোনারগাঁও থানার ছয়হিশ্যা গ্রামের আবুল কাশেম সরকারের ছেলে।

শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নগরীর সেন্ট্রাল ঘাট এলাকায় সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক (সিইও) লে. কর্ণেল কাজী শামসের উদ্দিন৷

তিনি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব -১১ এর একটি আভিযানিক দল বৃহস্পতিবার (০৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে সোনারগাঁও থানার ছয়হিশ্যা নদী ঘাটে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ২২০ ড্রামে ৪১৮০০ লিটার চোরাই পাম তেল উদ্ধার করা হয় ও চোরাই কাজে ব্যবহৃত ৩ টি ইঞ্জিন চালিত তেলের ট্রলার জব্দ করে৷ যার আনুমানিক মূল্য ২১ লক্ষ টাকা। এই সময় চোরাই তেলের ব্যাপারটি আইনের আওতায় না আনার জন্য চোরাই তেলের মূল হোতা রফিকুল ইসলাম ১০ লক্ষ টাকা ঘুষ দেয়ার চেষ্টা করে। ঘুষের টাকাসহ মোঃ রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার করে র‌্যাব সদস্যরা। পরে গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি স্বীকার করেছেন যে তিনি দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে পাম অয়েল ও অন্যান্য ভোজ্য ও জ্বালানি তেল চোরাই ভাবে কেনা বেচা করে আসছিল। এই চোরাই পাম ওয়েল নারায়ণগঞ্জ সহ ঢাকার বিভিন্ন তেল ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করতো।

তিনি আরো বলেন, রফিকুল ইসলামকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে আমরা জানতে পারি যে ছয়হিশ্যা ঘাটে বেশকয়েকটি চোরাই পাম অয়েলের সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। ছয়হিশ্যা ঘাটে চলমান জাহাজ হতে তেল চুরি করে আসছে। চক্রটি পাম অয়েলের সাথে ভেজাল তেল মিশিয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়ীকে সরবরাহ করতো এবং এই চোরাই তেল সিন্ডিকেটের মূল হোতা গ্রেফতারকৃত মোঃ রফিকুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও থানায় আইনী কার্যক্রম চলছে। এইসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, র‌্যাব-১১ এর মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান৷

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com