বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৫:০২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

ডোমারে কলেজ শিক্ষককে মারধরের ঘটনায় ৩ জন গ্রেপ্তার

খবরের আলো রিপোটঃ

 

 

মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর : জেলার ডোমার সরকারী ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক সোলায়মান আলীকে মারধরের ঘটনায় কলেজের তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে ডোমার থানা পুলিশ। সোমবার দিনভর অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটকদের আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করা হয়েছে।

আটক ছাত্ররা হলো, উপজেলার ডোমার সদর ইউনিয়নের বড়রাউতা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে আল আমিন(১৭), পশ্চিম চিকনমাটি এলাকার নাজমুল হকের ছেলে আব্দুল হালিম(১৮) এবং পশ্চিম চিকনমাটি দোলাপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে নাজিমুল ইসলাম(১৭)। গ্রেপ্তার সবাই ডোমার সরকারী ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র। গত ৭ই সেপ্টম্বর ডোমার সরকারী কলেজের প্রভাষক সোলায়মান আলীকে কলেজের বখাটে ছাত্র শান্ত ও সৈকতের নেতৃত্বে প্রায় ২০ জনের একটি বখাটে দল শিক্ষক সোলায়মানকে মারধর করতে করতে তিনতলা থেকে নিচে নেমে আনে। সেখানেও প্রকাশ্যে ছাত্র-ছাত্রীদের সামনে তারা শিক্ষককে মারধর করে।

এ ঘটনায় শিক্ষকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। বখাটে ছাত্রদের শাস্তির দাবিতে ডোমার ও নীলফামারীতে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকরা। এ ঘটনায় শিক্ষক সোলায়মান মামলা করলে পুলিশ আসামিদের ধরতে রাতভর অভিযান পরিচালনা করছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোঃ রেজাউল করিম জানান, শিক্ষক মারধরের ঘটনায় এ পর্যন্ত তিন ছাত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এদিকে কলেজের সাধারন ছাত্র/ছাত্রীদের নানাভাবে হুমকি প্রদান করছে ঐসব বখাটে ছাত্র ও তার সহযোগীরা। বখাটে ছাত্রের সহযোগীরা ছাত্রদের সাক্ষী দিতে বারন করে বলেন এই ঘটনা শেষে হলে তাদের উপর আরো বেশি করে অত্যাচার করা হবে। শিক্ষক সোলায়মান জানান, বখাটেরা তাকে এবং ছাত্রদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। মামলা প্রত্যাহারের জন্যও আমাকে চাপ প্রয়োগ করছে নানভাবে।

ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, শিক্ষকরা জাতীর মেরুদন্ড। শিক্ষকদের গায়ে হাত দেওয়া কোন মতেই বরদাশত করা হবে না। এর সাথে জড়িত সকলকেই আইনের আওতায় আনা হবে। বাকী আসামিদের ধরার জন্য কাজ করছে পুলিশ বলেও তিনি জানিয়েছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com