মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১২:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বড়াইগ্রামে ট্রাক-পিকআপ মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপ চালক নিহত উদাসীনতায় হিলিতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ মাধবপুরে পানি চলাচলের নালার মুখে ইউপি সদস্যের বাঁধ নির্মাণ শতাধিক পরিবারের দুর্ভোগ মহামারী করোনা ও লকডাউনে মোটরসাইকেল ব্যবসা পরিস্থিতি দীর্ঘ ১২ বছর পর ইসরায়েলে নেতানিয়াহু যুগের অবসান, ক্ষমতায় নাফতালি বেনেট ঋণের অপব্যবহার ঠেকাতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কঠোরতা এবার হজ পালনের সুযোগ পাচ্ছে ৬০ হাজার সৌদি নাগরিক এবার বাংলাদেশে ভ্যাট নিবন্ধন নিয়েছে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুক রুহিয়ায় কৃষকের কার্ড দিয়ে মধ্যস্বত্বভোগীদের ব‍্যবসা জাতীয় সংসদ উপনির্বাচনে তিনটি আসনের প্রার্থী নাম ঘোষণা করেছেন আওয়ামী লীগ 

বাকেরগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২২ টি দোকান পুঁড়ে ছাই

খবরের আলো  :
মুশফিকুর রহমান শাওন বরিশাল জেলা  প্রতিনিধিঃ বাকেরগঞ্জ উপজেলার সদরে থানা সংলগ্ন পুরাতন লঞ্চ ঘাট রোডে রাত ৪ টার দিকে ছত্তারের ভাতের হোটেল থেকে বিদুৎতের সর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুনের সুত্রপাত ঘটে।স্থানীয় ব্যবসায়ী ও দোকানের মালিকরা ফায়ার সার্ভিসে ফোন করেও তাদেরকে যথাসময়ে না পাওয়ায় ২২ টি দোকান পুঁড়ে ছাই হয়ে যায়।ক্ষতির পরিমান প্রায় ১ কোটি টাকা।স্থানীয়রা জানান বাকেরগঞ্জ বন্দরে এ যাবৎ ৩ টি ও বাকেরগঞ্জ বাস স্টান্ডে ৪ টি ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ঘটে।বাকেরগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস নির্মান হলেও কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারনে স্টেশনটি নানা জটিলতার কারনে চালু হয়নি।অগ্নিকান্ড নিভাতে গিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ২০ জন আহত হয়েছেন।অগ্নিকান্ডের ঘটনা শুনে তাৎক্ষনিক ছুটে আসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী সালেহ মুস্তানজীর,থানা অফিসার ইনচার্জ আঃ জাঃ মোঃ মাসুদুজ্জামান,পৌর মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া,বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম(বিপিএম),বরিশাল(বাকেরগঞ্জ)সদর সার্কেল এসপি আব্দুর রফ,সাবেক এমপি আবুল হোসেন খান,মেজর জেনারেল (অবঃ) আব্দুল হাফিজ মল্লিক,সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদ খান ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান,দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন নির্মান হলেও সরঞ্জামাদির কারনে ব্যবসায়ীদের কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়ে যায়।বাকেরগঞ্জ পৌর মেয়র ও মেজর জেনারেল (অবঃ)হাফিজ মল্লিকের কাছে আশস্ত করেন,আগামী দেড় মাসের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের স্টেশনটি চালু হবে।ক্ষতিগ্রস্থ দোকান মালিকরা হলেন,অরুন সাহা মুদি মালের গোডাউন,আব্দুল বারেক বডিং ও চালের দোকান ও বাসা,সুজনের চায়ের দোকান,আব্দুস ছত্তারের হোটেল,ছত্তারের হোটেলের মালিক শাহালোম কাজীর দোকান ঘড়,মিন্টুর টিভি ফ্রীজের দোকান,নুর হোসেনের দোকান,সুকুরঞ্জনের দোকান,তাজেম আলীর দোকান,মহোসীনের দোকান,মস্তফার হোটেল,বাবুলের দোকান,শাজাহানের দোকান,খোকোনের মুদি দোকান,মজিবার মোল্লার দোকান ঘড়,আকাশের ডেকরেটর,ফজলু মোল্লার বসত ঘড়,আব্দুস ছালাম ডেকরেটর,এম এ আজিজ টিভি ফ্রীজের দোকান,মুন টেলিকম,ইসলামীয়া লাইব্রেরী,ইব্রাহীমের ঘড়,আজগরের দোকান ঘড়,নিমাইর দোকান,সবুজের ঘড়,আরিফুর রহমানের ঘড় ও ইশা মেডিকেল সহ ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়।সকল দোকানদার ও ঘড় মালিকরা মালামাল ও পড়নের কাপড় ছাড়া সবকিছুই নিস্ব হয়ে গেছে।ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বাকেরগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা আহসান হাবিব,তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ অনুযায়ী পুড়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্থ দোকান মালিকদের তালিকা করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছে প্রেরন করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com