বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

মারের হাত থেকে বাঁচার জন্য শ্রমিকলীগ করি- শুক্কুর মাহমুদ

খবরের আলো :

 

 

সাহাদাৎ হোসেন শাহীন স্টাফ রিপোর্টারঃজননেত্রী শেখ হাসিনা যদি এইবার নির্বাচিত না হতো তাহলে এইবার আপনারা আমরা কেউ বেঁচে থাকতে পারতাম না। বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে থাকতে হতো। সেই সুবিধাগুলো আজকে কোনো পরিশ্রম ছাড়া নেত্রী আমাদের করে দিয়েছে। এইজন্য আজকে প্রশাসনের লোকেরা বলে এই নির্বাচনতো আওয়ামীলীগের নেতারা করে নাই, আমরা বানিয়ে পাঠিয়ে দিয়েছি। কারণ আমরা যোগ্যতা হারা। আমরা যদি যোগ্যতা অর্জন করতে পারতাম তাহলে আমরা বলতে পারতাম আপনি যেভাবে খুশি সেভাবে নির্বাচন দেন আমরা ৮০ শতংাশ ভোট কাস্ট করবো। এখন যদি আওয়ামীলীগ নির্বাচন দেয় ৭৫ ভাগ ভোট পায় কিনা সন্দেহ আছে। যেহেতু আমরা একটা বড় পরিবারের লোক মারের হাত থেকে বাঁচার জন্য, সমাজে সম্মানের সহিত থাকার জন্য শ্রমিকলীগ করি আর অন্য কিছুর জন্য না।

বৃহস্পতিবার(১৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নগরীর খানপুর বরফকল ঘাট সংলগ্ন বাংলাদেশ জাহাজি শ্রমিক ফেডারেশন ট্রেনিং এন্ড কালচারাল সেন্টারে আসন্ন জাতীয় শ্রমিকলীগের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর শ্রমিকলীগ কতৃক আয়োজিত প্রস্তুতিমূলক সভায় জাতীয় শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ একথা বলেন।

তিনি বলেন, শ্রমিকলীগ করে আমার সাধ মিটেছে, আরও সাধ মিটেছে জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি হয়ে। এই সুখ থেকে আমি অব্যাহতি চাই।কোনো সোনার চামচ মুখে নিয়ে নেতা হই নাই কাজ করার মাধ্যমে নেতা হয়েছি। আমার হাতে ছিলো জাদুর কাঠি আর তা দিয়েই শ্রমিকলীগে সবাইকে পদ দিয়ে দিয়েছি। এক একজনের এতোগুলো পদ যে ভিজিটিং কার্ড দেখলে ৫ মিনিট চলে যায় । আপনারা শুধু আসবেন যাবেন তা তো দরকার নাই আমার এই সাত বছরে সাধ মিটেছে। আমার জন্য এমপি মন্ত্রী বইসা থাকে আর আমি আপনাদের জন্য এখানে ঢাকা থেকে এখানে এসে বসে থাকি। এখনো আপনারা দাতের মর্মতাটা বুঝলেন না।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আওয়ামীলীগের কোনো নেতা কোনো কর্মীর দিকে তাকায় না। আজকে কোনো কর্মী যদি কোনো চিঠি নিয়ে যায় তাও টাকা ছাড়া সই করে না তারা। আজকে কার কাছে যাবো? কার কাছে গিয়ে দুঃখের কথা বলবো। এখন থেকে আপনারা যদি রাজনীতি করতে চান তাহলে দলকে শক্তিশালী করুন। যে নেতাকেই পচ্ছন্দ করেন তার পিছনে থাকেন ,আমার পিছনে থাকতে হবে না। যদি আপনাকে বেঁচে থাকতে হয় তাহলে একটা নেতার পিছনে আপনাকে থাকতে হবে।

তিনি আরোও বলেন, নির্বাচনের সময় যখন বললাম যদি নির্বাচন করতে পারি তখন আমার পিছনে লোকের অভাব ছিলো না কিন্তু যখন বললাম নেত্রী যাকে দিবে তাকেই সমর্থন করবো তখন পিছনে দেখি অর্ধেক লোক নাই। আমার লোক আমাকে রেখে অন্য প্রার্থীদের ব্যানার ফেস্টুন এবং ব্যাচ ধারণ করে ফেলে তখন তো তাদের কিভাবে আমি বলবো যে তার নৌকার লোক! তাদের নৌকার লোকও বলা যাবে না, লাঙ্গলেরও লোক বলা যাবে না কারণ তারা হলো টাকার লোক। শুধু টাকা চিনে তারা। আর এই টাকার সংগঠন দিয়ে কর্মীদের হাত রাখা যাবে না। আগে সাচ্চা কর্মী হতে চেষ্টা করেন তারপরেই নেতা হতে পারবেন। আমার কথা যদি পচ্ছন্দ না হয় তাহলে আমাকে প্রশ্ন করুন , উত্তর দিতে না পারি তাহলে এখান থেকে চলে যাবো।
এসময় আরোও উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুদ্দিন বাবুল, সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফা মাষ্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ শিকদার, মহানগর শ্রমিকলীগের সভাপতি কাজিমুউদ্দিন প্রধান, সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান মুন্না প্রমুখ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com