মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বেনাপোল দিয়ে ভারতের রফতানি বন্ধ অধিনায়কত্ব ছাড়লেও বিরাটই আমাদের নেতা বললেন বুমরা মুখ‍্যমন্ত্রীর পরিবারের সঙ্গে জড়িত জমি কেলেঙ্কারির বিরুদ্ধে শিলচর কংগ্রেসের প্রতিবাদ ও স্মারকলিপি প্রদান বৃদ্ধাকে ঘাড়ধাক্কা দিয়ে মাথা ফাটানোর ঘটনায় মামলা, মা-মেয়ে গ্রেফতার দামুড়হুদায় বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ হুদাপাড়ার লালুকে আটক নালিতাবাড়ীতে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ ভারত থেকে আমদানি-রপ্তানি চালুর লক্ষ্যে কাস্টম্স, সিলেট চেম্বার ও সুনামগঞ্জ চেম্বারের প্রতিনিধিদলের জাদুকাটা নদী পরিদর্শন  নকলায় বোরো ধান রোপণের ধুম আদমদীঘিতে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা আদমদীঘিতে র‌্যাবের অভিযানে ১৫৬ পিস ট্যাপেন্টাডলসহ একজন গ্রেফতার

স্ত্রীর দাবি স্বামীর ভিটা,প্রতিপক্ষের দাবি তিনি ভাড়াটিয়া

খবরের আলো :

 

শেখ আমিনুর হোসেন, সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফ: ১৯৬৭ সালে আমার স্বামীর কেনা জমিতে আমি বসবাস করছি টানা ২৫ বছর। সেই জমি ও বাড়ি থেকে আমাকে উচ্ছদ করে দিয়েছেন ইউনিয়ন ভূমি অফিসার মোকলেছুর রহমান। আমি এখন দাঁড়াবো কোথায় ?
সাংবাদিকদের সামনে এই প্রশ্ন রেখে শহরের সুলতানপুরের নাজিরা বেগম বলেন, শুধু উচ্ছদ করা নয় আমার বাড়িঘর ভাংচুর করে সব কিছু লুটপাট করে নিয়ে গেছেন মোকলেছুরছ।আমি এর বিচার দাবি করছি।
তবে মোকলেছুর রহমান জানালেন, উচ্ছদের সাথে তার নিজের কোন সম্পর্ক নেই। কারণ ওই জমি তার শ্যালক জিয়াউল হকের। ২০১৫ সালে তিনি এ জমি কিনছিলেন এলাকার সফিউর রহমানের ওয়ারেশ সাবাহা নাজ ও সারাহা নাজের কাছ থেকে। সে সময় নাজিরা বেগম ওই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তিনি কয়েক বছর ধরে ভাড়ার টাকা দিচ্ছেন না। উল্টো কিছু কাগজপত্র দেখিয়ে তিনি বলছেন এ জমি তার। এ নিয়ে মামলাও করেন তিনি।
বৃহস্পতিবার সকালে এই জমি দখল বেদখলের ঘটনা ঘটে ।
নাজিরা বেগম আরা বলেন, তিনি শহরের পিটিআই মোড় করাত কলের পাশে ১০ শতক জমিতে বসবাস করেন। তার স্বামী আবদুল ওয়াহদ তার জীবদ্দশায় কিনেছিলেন এ জমি। তবে জমির মূল দলিল নাই । আছে একটি সার্টিফায়ড কপি। এ নিয়ে আমি মামলা করছি আদালতে। কি তার রায় ঘোষনার আগেই মোকলেছুর রহমানের লোকজন তার ঘরবাড়ি ভাঙ্গচুর দিয়ে সব কিছু লুটপাট করে নিয়ে গেছেন। তিনি বলেন, আমি এ সময় বাড়িতে ছিলাম না। আমার মেয়ে সানজিদা ওয়াহিদকে ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে দেয় তারা। ঘর থাকা  টাকা সোনা গয়না সবই লুট করে নিয়ে গেছে তারা। কয়ক বছর আগে তার স্বামী মারা গেছেন বলে জানান নাজিরা।
তবে মোকলছুর রহমান জানান, এই জমি নিয়ে থানায় দফায় দফায় বসাবসি হয়েছে। নাজিরা জমির মালিক নন তিনি ভাড়াটিয়া উল্লেখ করে তিনি বলেন, তিনি কিছু জাল কাগজপত্র প্রস্তুত করেছেন। এর বলে নাজিরা নিজেই আদালতে মামলা দিয়েছেন। দুটি মামলায় তিনি হরেও গেছেন। তারপরও ঘর থেকে নামতে চান না। ভাড়াও দেন না দীর্ঘদিন। বৃহস্পতিবার গ্রামবাসী এক জোট হয়ে জমির মালিক জিয়াউল হককে সাথে রেখে তাদের উচ্ছদ করছে। এ সময় আমি ছিলাম অফিসে।
নাজিরা বেগম জানান, তিনি সাতক্ষীরা সদর থানায় এ ব্যাপার একটি লিখিত অভিযাগ দিয়েছেন। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তাকে জানিয়েছে পুলিশ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com