শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
তামাকজাত পণ‍্যের বিজ্ঞাপন, শাহরুখ, অমিতাভ ও অজয়ের বিরুদ্ধে মামলা আগামী নির্বাচনের পর শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিলেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী রাজনীতিবিদরা বলেন ক্ষমতায় গিয়ে দেশ চালাবেন, ক্ষমতা নয়, আসলে এটা দায়িত্ব–সিইসি কোলকাতায় নতুন ঠিকানা দাদার, বাড়ির দাম শুনলে চমকে যাবেন স্ত্রী ও শ্বাশুড়ি গ্রেফতার, আদমদীঘিতে ভটভটি চালককে কৌশলে হত্যার অভিযোগ  সান্তাহার রেলওয়ে থানায় মোবাইল ছিনতাই চেষ্টা ও চুরি ঘটনায় দুইজন গ্রেফতার বিশিষ্ট সাংবাদিক আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর মৃত্যুতে লাখাই প্রেসক্লাবের শোক শেরপুরে জেলা প্রশাসকের বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের ধর্মীয় শিক্ষক আবু সাদ’র বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীকে বলাৎকারের অভিযোগ, স্বস্ত্রীক আত্মগোপনে এক সুন্দরী বিমানবালাকে নিজের উত্থিত লিঙ্গ প্রদর্শণ করেন ধনকুবের এলন মাস্ক

কোনভাবেই থামছে না ফতে ও দুলালের মাদক বাণিজ্য

খবরের আলো :

 

 

মোঃ আব্দুল করিম রনি : রাজধানীর মিরপুর শাহআলী থানাধীন এলাকার নিউ-সি বøকের ১৭ নং রোডে বেপরোয়া মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে কুখ্যাত মাদক স¤্রাজ্ঞী ফাতেমা ওরফে ফতে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতের নাগালে মাদকের বড় সিন্ডিকেট চালিয়ে যাচ্ছে ফাতেমা ওরফে ফতে গং। বার বার আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর মাদকের ব্যাপক অভিযান চালালেও কোনভাবে ধরা যাচ্ছে না এই মাদকের স¤্রাজ্ঞী ও তার সিন্ডিকেটের লোকদের। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কৌশল পাল্টিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে তারই মাদক সিন্ডিকেটের ব্যবসা। তার নামে শাহআলী থানাসহ বিভিন্ন থানায় রয়েছে একাধিক মাদকের মামলা। অনুসন্ধানে জানা যায়, নিউ-সি বøকে ৪টি বাড়ী নিয়ে তার এই মাদক সিন্ডিকেটের ব্যবসা চালিয়ে আসছে। নিউ-সি বøক ১৭ নং রোডের ১,২ ও ৩নং বাড়ীতে সে বিভিন্ন সময়ে আতœ গোপনে থাকে বলে জানা যায় এবং তারই নিজ বাড়ী ২২ নং বাড়ীতে হিরোইনচী সুমনের মাকে দিয়ে সেই মাদক স¤্রাজ্ঞী ফাতেমা ওরফে ফতে পাইকারী ইয়াবা ও ফেনসিডিল সরবরাহ করে বলে জানা যায়। তার মূল সহযোগী হিসেবে কাজ করে সুজন। সুজনকে বিভিন্ন সময় মিরপুর থানা পুলিশ গ্রেফতার করলেও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে আবার বেরিয়ে আসে।
ঢাকা কমার্স কলেজের পাশে হাজী রোডের ঝিলপাড় বস্তিতে দুলালের একটি বড় মাদকের সিন্ডিকেট চালিয়ে আসছে দীর্ঘদিন যাবৎ। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন সময়ে অভিযান করলেও কোনভাবেই এ মাদক ব্যবসাকে বন্ধ করতে সক্ষম হচ্ছেন না। হাজী রোডের মাদকের তথ্য সংগ্রহের জন্য গেলে বাবু ওরফে ভাগিনা বাবু তার লোকজনকে নিয়ে সাংবাদিকদের আক্রমণ করেন এবং বিভিন্ন প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন। দুলাল গোপনে থাকার কারণে তার মাদক ব্যবসাকে নিয়ন্ত্রণ করেন বাবু ওরফে ভাগিনা বাবু। বাবু ও দুলালের নামে মিরপুর মডেল থানায় একাধিক মাদকের মামলা আছে বলে জানা যায়।
গোপন সূত্রে জানা যায়, সপ্তাহ খানেক আগে মিরপুর থানা পুলিশ সুজনকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে কিন্তু মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে আবার ছাড়া পায়। অনুসন্ধানে আরও জানা যায়, নিউ-সি বøক ১৭ নং রোডের ১ ও ২ নং বাড়ীর মাঝখানে আসা-যাওয়ার রাস্তা তৈরি করে রেখেছেন মাদক স¤্রাজ্ঞী ফাতেমা ওরফে ফতে। যদি পুলিশ বা অন্য কোন আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ১টি বাসায় অভিযান চালায় মুহুর্তেই ভিতরেই সে অন্য বাড়ীতে গিয়ে অন্যত্র পালিয়ে যায়। ফাতেমা ওরফে ফতের বোনের স্বামী চিড়িয়াখানা রোডের কেন্দ্রীয় মুরগীর খামারে ভেতরে মাদক ব্যবসা চালায়। তার রয়েছে একাধিক সেলসম্যান। বার বার প্রতিবেদন করার পরেও কোনভাবেই ব্যবস্থা নিচ্ছেন না আইনশঙ্খলাবাহিনী। অতএব, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আবেদন রইল যে, এই মাদকের স¤্রাজ্ঞী ও স¤্রাটদের আইনের আওতায় আনা হউক।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, এই মাদক স¤্রাজ্ঞী গোটা সমাজটাকে মাদক দিয়ে যুব সমাজকে নষ্ট করে ফেলছে। তাই এই মাদক ব্যবসায়ী ও সিন্ডিকেটের লোকদের আইনের আওতায় নিয়ে কঠোর ও কঠোরতর শাস্তি প্রদান করার দাবী জানাই। বিস্তারিত জানতে চোখ রাখুন পরবর্তী সংখ্যায়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com