বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৮:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নাটোরে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩৭৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার  স্পেনের জাতীয় জাদুঘরে অভিবাসীদের আনন্দ উৎসব পরকীয়া করতে এসে ধরা খেল  প্রেমিক!  থানায় মামলা, প্রেমিক শ্রীঘরে! রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে নারীদের গুরুত্ব নিয়ে ফেসবুকে আবেগময় পোস্ট করেন মামূনি খান (মনি)   ত্রিমোহনী সেতু প্রবেশ মুখে  গর্তের সৃষ্টি হয়েছে,  ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে নতুন সড়কের উদ্ভোদন করলেন নুরুল ইসলাম রাজা শরীয়তপুরে ২ হাজার ৭৩২ পিচ ইয়াবা সহ আটক মাদক ব্যবসায়ী ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের তালিকাভুক্ত কুখ্যাত ডাকাত ফারুক গ্রেপ্তার বড়াইগ্রামে ট্রাক-পিকআপ মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপ চালক নিহত উদাসীনতায় হিলিতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

নৌকার ফলেই সমগ্র বাংলাদেশে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে প্রধানমন্ত্রী

খবরের আলো :

 

রাকিব হোসেন, বরগুনা প্রতিনিধিঃ আওয়ামী লীগ বাংলাদেশকে বিশ্বদরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে জানিয়ে দলটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা যে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে সম্মান লাভ করেছি, সেটা ধরে রাখতে আরেকটিবার আওয়ামী লীগকে ভোট দিন, নৌকায় ভোট দিন। শনিবার (২৭ অক্টোবর) বিকেলে বরগুনার তালতলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই উন্নয়ন করে। আপনারা নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে সেবার সুযোগ দিয়েছেন। এজন্য আমাদের কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জনগণের প্রতি। নৌকা মানেই উন্নয়ন। নৌকায় ভোট দিয়ে মানুষ কখনো ঠকেনি। যখনই ভোট দিয়েছে উন্নয়ন হয়েছে। নৌকার ফলেই সমগ্র বাংলাদেশে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। দক্ষিণবঙ্গ একসময় উপেক্ষিত থাকলেও এখন এখানেও উন্নয়নের হাওয়া লেগেছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী স্মরণ করেন, আমি একসময় স্পিডবোটে চড়ে তালতলীতে আসতাম, তখন এটা ইউনিয়ন ছিল। এখন তালতলী উপজেলায় পরিনত হয়েছে। এখানেও উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। আজ অনেকগুলো প্রজেক্ট উদ্বোধন করেছি। এগুলো বরগুনার মানুষের জন্য আমাদের সরকারের উপহার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের আর্থসামাজিক বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরে তিনি বলেন,বাংলাদেশকে আমরা খাদ্যে সয়ং সম্পূর্ন করেছি।আমরা বয়স্ক ভাতা দিচ্ছি, বিধবা ভাতা দিচ্ছি, প্রতিবন্ধীদের ভাতা দিচ্ছি,আমরা প্রাইমারী থেকে মাধ্যমিক পর্যন্ত বিনা পয়সায় বই দিচ্ছি,বাবা মাকে আর পয়সা খরচ করে বই কিনতে হয়না সে দায়িত্ব আমরা নিয়েছি।আওয়ামী লীগ সরকার নিয়েছে।আমরা বৃত্তি দিচ্ছি, আমরা একেবারে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত উপবৃত্তি পেয় পরাশুনা করতে পারে তার ব্যাবস্থা নিয়েছি, প্রাইমারী থেকে একেবারে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত দুই কোটি চার লক্ষ শিক্ষার্থী তাদেরকে আমরা বৃত্তি এবং উপবৃত্তি দিচ্ছি যেন তাদের পড়াশুনায় কোনো বাঁধা না হয় এর মধ্যে যারা প্রাইমারী শিক্ষার্থী এই প্রাইমারী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা মায়ের নামে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমরা টাকাটা পৈৗছে দিচ্ছি, আমরা যখন মোবাইল ফোনে এই টাকা দিতে গেলাম প্রায় এক কোটি ৪০লক্ষ প্রাইমারী শিক্ষার্থী এই টাকা পাচ্ছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে, আজকে মোবাইল ফোন সকলের হাতে আছে সেটা কে দিয়েছে?আওয়ামী লীগ সরকার আমরা সরকারে আসার পর এটা উন্মুক্ত করে দিয়েছি।আমরা প্রত্যেকটি এলাকায় ডিজিটাল সেন্টার করে দিয়েছি সারা বাংলাদেশে এখন ইন্টারনেট সার্ভিস আছে এই ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্রয় বিক্রয় থেকে শুরু করে জন্মনিবন্ধন করা সহ প্রায় দুইশত প্রকারের সেবা পাচ্ছেন আপনারা, এলাকার মানুষ এই যে আপনাদের তালতলী দুর্গম একটা এলাকা নদি নালা খাল বিল পার হয়ে আসতে হয় এখন কিন্তু সকলেই আপনারা যোগাযোগ করতে পারেন ইন্টারনেটের মাধ্যমে অনলাইনে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এটাকে আরো আমরা উন্নত করার জন্য ইতমধ্যে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১ আমরা উৎক্ষেপন করেছি যার ফলে কোন দুর্যোগ আসলে খুব দ্রুত খবর পাওয়া যাবে এবং চিকিৎসা সেবা থেকে শুরু করে নানারকম সেবা ঘরে বসে পেতে পারবেন সেই ব্যাবস্থা আমরা করেছি। দেশের প্রতিটি গ্রামকে শহরে রূপান্তরিত করা হবে। শহরের মতো সেবা প্রতিটি গ্রামের মানুষ ঘরে বসে পাবে। সারাবিশ্বে আমরা উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে সম্মান লাভ করেছি। এই উন্নয়ন ধরে রাখতে আরেকটিবার আওয়ামী লীগকে ভোট দিন, নৌকায় ভোট দিন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ হবে একটি শান্তিপূর্ণ দেশ। সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ এবং মাদকের স্থান এ দেশে হবে না। ইতোমধ্যে জঙ্গি দমন করতে সক্ষম হয়েছি। এখন প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম করে দেব যাতে খেলাধুলার মাধ্যমে সন্তানরা জঙ্গিবাদ এবং মাদক থেকে দূরে থাকতে পারে। তারা খেলাধুলার পাশাপাশি সংস্কৃতি চর্চা করবে। কোনো মানুষকে আমরা মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে দেব না। জনসভায় ১৫ আগস্টে স্বজনদের হারানো কথা স্মরণ করে কান্না জড়িত কণ্ঠে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জীবনে আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। আমি সব হারিয়েছি। আমরা দুই বোন সেদিন বিদেশে ছিলাম বলে বেচে গেছি। স্বজন হারানোর বেদনা নিয়ে অনেক দিন বিদেশে ছিলাম। আওয়ামী লীগ আমাকে যখন সভানেত্রী নির্বাচিত করল, তখন অনেক প্রতিকূল পরিবেশের মধ্যে দেশে ফিরে আসি। আমার জন্য আপনারা দোয়া করবেন। আপনাদের মাঝেই আমি ফিরে পাই আমার বাবার স্নেহ, মায়ের ভালোবাসা। এসময় তিনি জনসভায় উপস্থিত জনতার কাছে ওয়াদা চেয়ে বলেন, আপনারা ওয়াদা করুন, যাকেই আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় পাঠাবো, তাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে আওয়ামী লীগকে দেশের সেবা করার সুযোগ দিবেন। তখন উপস্থিত জনতা আওয়ামী লীগ সভাপতির সামনে হাত তুলে ওয়াদা করেন। জবাবে শেখ হাসিনা জনতাকে ধন্যবাদ জানান।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com