মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন

শীত আসতে না আসতেই সাতক্ষীরায় সবজির বাজারে আগুন

খবরের আলো :

 

শেখ আমিনুর হোসেন,সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফ: দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সীমান্তবর্তী সাতক্ষীরা জেলায় শীত আসতে না আসতেই শীতের নতুন সবজির বাজারে আগুন। শীত সমাগত, আর তাই শীতের আগমনী বার্তার সাথে বাজারে উঠতে শুরু করেছে শীতকালিন সবজি। সাতক্ষীরার হাট বাজার গুলোতে বাহারী সব সবজির সরব উপস্থিতি ক্রেতা সাধারনদেরকে নতুন সবজির প্রতি টান টানছে। ব্যবসায়ীরা নানান ধরনের সবজির পরসা সাজিয়ে বিক্রিতে ব্যস্ত। সাতক্ষীরার বাস্তবতা বলে দীর্ঘ যুগের পর যুগ এই জেলা সবিজর জন্য বিখ্যাত, জেলাটি শষ্য ভাণ্ডার হিসেবে পরিচিত। সারাবছরই বিভিন্ন ধরনের সবজির উৎপাদন হলেও শীত মৌসুমে সবজির উৎপাদন হয় বেশী গত কয়েকদিন যাবৎ শীতের সবজির আগমন ঘটলেও দাম কিন্তু উর্ধমুখি। বছরের অন্যান্য সময়ে সবজির চড়ামূল্য থাকলেও শীত মৌসুম সবজির উপযুক্ত, উর্বর আর মোক্ষম সময় বিধায় এই সময়ে সবজির মুল্য নিন্মমুখি হওয়ার কথা কিন্তু মুল্য সহনীয় পর্যায়ে নেই।  সাতক্ষীরা শহরের কদমতলা, হাটের মোড়, বড় বাজার সহ জেলার বিভিন্ন বাজারের খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সবজির মুলে শীতকালিন সবজির কথা মনে হলেই ছিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, ওলকপি, টমেটো, পেচেঙ্গা, বিটকপি, গোলআলু, মেটে আলু, সহ নানান ধরনের সবজির নাম উঠে আসে। বর্তমানে বিখ্যাত সবজির যোগান বাজার গুলোতে প্রবাহমান, বাজার ঘুরে সবজির মূল্য হিসেবে কেজি প্রতি ফুলকপি ষাট হতে পয়ষট্টি টাকা, পাতা কপি পঁচিশ হতে সাতাশ টাকা, ছিম আশি হতে নব্বুই, ঢেড়স পনের হতে আঠার, মুলো বিশ হতে পঁচিশ, বরবটি ত্রিশ হতে বত্রিশ, টমেটো আশি হতে পঁচাশি, পুইশাক পনের হতে আঠার, উচ্চে চল্লিশ হতে পয়তাল্লিশ টাকা, পটল পঁচিশ হতে ত্রিশ, মেটে আলু চল্লিশ হতে বিয়াল্লিশ, গোলআলু তেইশ হতে পঁচিশ, মিষ্টি কুমড়ো পঁচিশ হতে ত্রিশ, জিঙে পনের হতে বিশ, লাউ মাঝারী বিশ হতে পঁচিশ, কাচকলা ত্রিশ হতে পয়ত্রিশ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। শীতের সবজি সহনীয় বাজার দর সব শ্রেণীর মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকাই দীর্ঘদিনের রেওয়াজ কিন্তু এখনও পর্যন্ত মুল্য সহনীয় পর্যায়ে আসেনি। সরেজমিন বাজার পরিদর্শনে বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানাজায় শীতকালীন সবজি বর্তমান সময়ে যথযাথ নয়, রোপন করা সবজি এখনও পর্যন্ত খেতে, আগামী এক দুই সপ্তাহের মধ্যে রোপন করা সবজির উঠলে তখন মুল্য সহনীয় পর্যায়ে আসবে। সবজির বাজার, মুল্য উৎপাদন বিষয়ে কৃষকদের সাথে যোগাযোগ করলে আঃ কাদের নামের এক জন সবজি চাষি বলেন বর্তমান সময়ে বীজ, সেচ, কীটনাশক সারের মূল্য যেমন অধিক অনুরুপ ভাবে শ্রমিকমুল্য গত কয়েক বছরের কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। বিধায় সঙ্গত কারনে সবজির মুল্য কিছুটা চড়া হওয়াটা স্বাভাবিক। উৎপাদন খরচ ও মূল্য পারস্পরিক সম্পর্কযুক্ত কৃষক আঃ কাদির আরও বলেন কৃষকরা তাদের উৎপাদিত সবজি অপেক্ষাকৃত দাম মূল্যেই বিক্রি করে, শ্রমমুল্য, চাষ খরচ এবং উৎপাদন মুল্য ধরে বিক্রি করে। বিক্রিত সবজি একাধিক হাত বদলের মাধ্যমে ভোক্তা তথা ক্রেতাদের কাছে পৌছায় ততোক্ষনের মধ্যে স্বত্ত্বভোগীরা মুনাফা লুটে নিয়ে সবজি বাজারে অসহনীয় মূল্যবৃদ্ধির পাগলা ঘোড়া ছুটিয়ে থাকে। সাতক্ষীরা শহরের বাজার ব্যবস্থায় ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়েছে। শহরের বড় বাজার এক ধরনের মুল্য অন্যদিকে অপরাপর সবজি বাজারের মুল্য ভিন্নতর। শহরের ন্যায় উপজেলা পর্যায়ের বাজার গুলোকেও ভিন্ন ভিন্ন মূল্য পরিলক্ষিত হয়ে থাকে। একই সবজি বাজার ভেদে ভিন্ন ভিন্ন মূল্যে বিক্রি হচ্ছে। সাতক্ষীরার বাজার ব্যবস্থার অনুসন্ধান করে যে বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে তা হলো প্রতিটিপন্যে অনেক শ্রেণীর সিন্ডিকেট সক্রীয় সেই সিন্ডিকেটই সবজি বাজার নিয়ন্ত্রন করে যাদের উপস্থিতি কেবল বাজার কেন্দ্রীক নয় উৎপাদন ব্যবস্থা হতে কৃষকদের ক্ষেত পর্যন্ত।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com