শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:০৭ অপরাহ্ন

ভোলায় ২ মাস ই‌লিশ শিকা‌রে নি‌ষেধাজ্ঞা, জে‌লে‌দের ত্রান সহায়তা প্রদান সরকা‌রের

খবরের আলো  :
মোঃ ওমর ফারুক,  ভোলা  থে‌কেঃভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে অাগামী দুই মাস সব ধরনের মাছ শিকারে নি‌ষেধাজ্ঞা জারী ক‌রে‌ছে সরকার। ফ‌লে ১ মার্চ থে‌কে ৩০ এ‌প্রিল পর্যন্ত  মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলো‌মিটার এলাকায় ইলিশের অভয়াশ্র‌মে সকল ধরনের মাছ ধরা বন্ধ থা‌কবে।
মেঘনা নদীর ইলিশা থেকে চরপিয়াল পর্যন্ত ৯০ কিলোমিটার এবং তেঁতুলিয়া নদীর ভেদুরিয়া থেকে চর রুস্তুম পর্যন্ত ১০০ কিলোমিটার এলাকায় এ নিষেধাজ্ঞার অাওতায় থাকবে। নি‌ষেধাজ্ঞা চলাকালে ইলিশসহ যেকোনো মাছ আহরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও সরবরাহ নিষিদ্ধ থাকবে বলে জানায় ভোলা মৎস বিভাগ।
জেলা মৎস বিভাগ আরো জানায় , জেলেদেরকে জাটকাসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ থেকে বিরত থাকার জন্য ইতোমধ্যে সচেতনতামূলক সভা করা হয়েছে। নদী উপকূলীয় এলাকায় মাইকিং করা, জেলে পাড়ায় লিফলেট বিতরণ ও আড়ৎগুলোতে ব্যানার সাঁটানোসহ সকল ধর‌নের প্রস্তু‌তি নেয়া হয়েছে। এই  অভিযা‌নে আইন অমান্য করে জে‌লেরা নদী‌তে জাল ফে‌লে জাটকা ই‌লিশ নিধন করার চেষ্টা কর‌লে তাদের বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে যথাযথ  ব্যবস্থা গ্রহণ কর‌বে ভ্রাম্যমান অাদালত।
জাটকা ই‌লিশ নিধ‌নে জে‌লে‌দের নিরুৎসা‌হিত কর‌তে অ‌ভিযা‌নের দুই মা‌সের জন্য ত্রান সহায়তা দি‌বে সরকার। ভোলা জেলায় ৭০,৯৪৩ টি নিবন্ধিত জেলে পরিবার রয়েছে । এসব জেলেদের প্র‌ত্যেক প‌রিবার‌কে  ৪০ কেজি করে  ৫৬৭৫.৪৪০ মেঃটন চাল বরাদ্ধ দেয়া হ‌য়ে‌ছে। এর ম‌ধ্যে ভোলা সদ‌র উপ‌জেলায় ১৪২২২ প‌রিবা‌রে ১১৩৭.৭৬০মেঃ টন, দৌলতখা‌নে ১১৮৮২ প‌রিবা‌রে ৯৫০.৫৬০ মেঃ টন, বোরহানউ‌দ্দি‌নে ১০৪৫১ প‌রিবা‌রে ৮৩৬.০৮০মেঃ টন, তজুম‌দ্দি‌নে ৭৫৫৫ প‌রিবা‌রে ৬০৪.৪০০মেঃ টন, লাল‌মোহ‌নে ৯০৬৬ প‌রিবা‌রে ৭২৫.২৮০মেঃ টন, চরফ্যাস‌নে ১৩৫৪৯ প‌রিবা‌রে ১০৮৩.৯২০মেঃ টন ও মনপুরা ৪২১৮ প‌রিবা‌রে ৩৩৭.৪৪০মেঃ টন চাল বরাদ্ধ দেয়া হ‌য়ে‌ছে। যার কার্যক্রম ই‌তিম‌ধ্যেই  শুরু করা হ‌য়ে‌ছে।
ভোলা সদর উপজেলার জেলে সিরাজ, অালাউ‌দ্দিন ও আব্দুর রহিম বলেন, মেঘনায় নিষিদ্ধ সময়ে যেই পরিমাণ চাল দেওয়া হয়, তা দিয়ে সংসার চালানো কঠিন। তাই নিষিদ্ধ সময়ে চালের পাশাপাশি বিকল্প কর্মসংস্থান কিংবা আর্থিক সহায়তা বা‌ড়ি‌য়ে দেওয়া উচিত।
ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম আজহারুল ইসলাম বলেন, জেলেরা যাতে ইলিশ শিকার না করে সে জন্য প্রচার-প্রচারণা ও সচেতনতামূলক সভা করা হয়েছে। ভোলা জেলায় জে‌লে‌দের চা‌হিদার তুলনায় বরাদ্ধ কম হওয়ায় সকল জে‌লে‌দের ত্রান সহায়তা দেয়া সম্ভব নয়।
২৯ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টার পর থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ বলে তিনি জানান।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com