সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:৪৫ অপরাহ্ন

সারোয়ারসহ ৩ জনের ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা বাতিল চেয়ে রিট

ফাইল ছবি

খবরের আলো:

 

 

বুধবার, ১১ মার্চ :ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ এনে র‌্যাবের তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ক্ষমতা (ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা) বাতিল করার নির্দেশনার আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টে একটি সম্পূরক রিট আবেদন করা হয়েছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা হলেন- সারোয়ার আলম, আক্তারুজ্জামান ও নিজাম উদ্দিন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শিশুদের দণ্ডের বিরুদ্ধে জারি করা রুলের সঙ্গে সম্পূরক আবেদনটি আদেশের জন্য রাখা হয়েছে।

বুধবার (১১ মার্চ) হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ বিষয়ে রায় দেবেন।

চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের (সিসিবি ফাউন্ডেশন) পক্ষে হাইকোর্টে এ সম্পূরক রিট আবেদনটি করা হয়েছে।

আর্জিতে এই তিন ম্যাজিস্ট্রেটের বিরুদ্ধে চারটি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আনা হয়েছে।

১. একই সময়ের মধ্যে দুই জায়গায় ( শিশুমেলা ও ফার্মগেট) মোবাইল কোর্ট পরিচালনার অভিযোগ, যা ক্ষমতার অপব্যবহার।

২. একই সাক্ষীরা বার বার বিভিন্ন জায়গায় এসেছে।

৩. এক ধারার অপরাধ দেখিয়ে ভিন্ন ধারায় চার্জ গঠন।

৪. চলন্ত ভ্যান থেকে কলা চুরির অপরাধে ছয় মাসের দণ্ড যা মোবাইল কোর্ট দিতে পারে না।

৯, ১০ ও ১১ বছর বয়সী শিশুদের দণ্ড দেওয়া হয়েছে যেখানে দণ্ডবিধির ৮৩ ধারা মোতাবেক ১২ বছরের নিচের শিশুদের দণ্ড দেওয়া যায় না। আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সাজানো সাক্ষী, সাজানো মামলা আর ক্ষমতার চূড়ান্ত অপব্যবহার করেছেন তারা।

আর্জিতে বলা হয়, জোর করে শিশুদের স্বীকারোক্তি আদায়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। সংবিধানের ৩৩ ও ৩৫ অনুচ্ছেদর লঙ্ঘন বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে ২০১৯ সালের অক্টোবরের ৩১ তারিখ ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শিশুদের দেওয়া সাজা ও আটকাদেশ কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

একইসঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দেওয়া দণ্ডে যশোর ও টঙ্গীর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে অন্তরীণ ১২১ শিশুকে মুক্তির নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত।

আদালতের আদেশে পরে এসব শিশুদের মুক্তি দেওয়া হয়।

শিশুদের দণ্ড দেওয়া নিয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন ছাপা হয়। প্রতিবেদনটি নজরে নিয়ে আদালত শিশুদের মুক্তির নির্দেশ ও রুল জারি করেন।

চিলড্রেন’স চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের (সিসিবি ফাউন্ডেশন) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম ও সংস্থাটির পরিচালক অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান প্রতিবেদনটি আদালতের নজরে আনেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com