শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:১৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

অবশেষে বেনাপোল বর্ডারে ইমিগ্রেশন ডিজিটাল থার্মাল স্ক্যানার মেশিন স্থাপন

খবরের আলো:
বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোরের আন্তজার্তিক ইমিগ্রেশন বেনাপোল চেকপোষ্টে  ডিজিটাল থার্মাল স্ক্যানার মেশিন সেটিং হলো। দিয়ে প্রতিদিন ৫ থেকে ৭ হাজারেরও বেশি দেশী ও বিদেশী নাগরিক ভারতে যাতায়াত করে থাকে। বর্হিগমণ যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্তা না থাকলেও আগমণ যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরিক্ষার জন্য ইমিগ্রেশন চত্তরে একটি ডিজিটাল থার্মাল মেশিন স্থাপন করা হয়।
মঙ্গলবার(১০শে মার্চ)বিকাল ৫ টার সময় এ মেশিন দিয়ে আগমন যাত্রীদের দেহে কোন ভাইরাস জ্বর আছে কি না নির্ণয় করা হয়। করোনা ভাইরাস সংক্রমণে এই মুহুতে সারা বিশ্ব আত্নক গ্রস্ত। এমনকি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতোমধ্যে জরুরী সর্তকতা জারী করেছে। বাংলাদেশের প্রতিটি ইমিগ্রেশনে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সতর্কতা জারি করা হয়। বেনাপোল আন্তাজার্তিক ইমিগ্রেশনে ভারত থেকে আসা সকল দেশি ও বিদেশি যাত্রীদের কে এ থার্মাল স্ক্যানার মেশিন দিয়ে স্ক্যানিং করা হচ্ছে।  ফলে বেনাপোল আন্তজার্তিক ইমিগ্রেশন হয়ে করোনো ভাইরাস ছড়ানোর ঝুকি অনেকটা লাঘব হলো।
একাধিক পাসপোর্ট যাত্রী জানান, আন্তজার্তিক ইমিগ্রেশনের ভিতরে ডিজিটাল থার্মাল স্ক্যানারটি সঠিক ভাবে ব্যবহার হওয়ার কারণে বেনাপোল সীমান্তে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার আশংষ্কা অনেকটা কম হলো। কারণ প্রতিদিন এ বন্দর দিয়ে ৭ হাজারের অধিক যাত্রী দেশের ভিতরে প্রবেশ করে থাকে। অনেক যাত্রী আছে চীনসহ অন্যান্য দেশ ভ্রমণ করে এ ইমিগ্রেশন দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। তাছাড়া স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে যাত্রীদের সচেতনতায় নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন পরামর্শ ও প্রচার-প্রচারণা।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার বিচিত্রা মল্লিকের কাছে ডিজিটাল থার্মো স্ক্যানার মেশিন সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন,থার্মাল স্ক্যানিং মেশিনটি সুন্দর ভাবে সেটিং হওয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীদের করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণ অনেকটা সহজ হলো।এই মেশিটি মাধ্যে কোন যাত্রীর শরিলে তাপমাত্রা কতো ডিগ্রি আছে তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।আরো বলেন কোন বিদেশি যাত্রীর শরিলে ১০০’ডিগ্রি তাপমাত্রা দেখা দেয় তাকে দেশের ভেতর প্রবেশ করতে না দিয়ে ফেরত পাঠানো হবে।যতো দিন করোনা ভাইরাস থাকবে চেকাব ও নিয়মিত বলে তিনি জানান।
বেনাপোল ইমিগ্রেশন অফিসার ইনচার্জ আহসান হাবিব জানান, ডিজিটাল থার্মাল স্ক্যানার মেশিন স্থাপন হওয়ায় ভারত থেকে আগমণ যাত্রীদের শরীরে করোনো ভাইরাস সুশৃঙ্খল সারিবদ্ধ ভাবে পরীক্ষা করা হচ্ছে। এবং কোন যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ব্যাতিরেকে দেশের ভেতর প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না ।বেনাপোল এই মুহুর্তে করোনো ভাইরাস পরীক্ষা করার জন্য ডিজিটাল মেশিনটি একান্ত প্রয়োজন ছিলো।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com