শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৮:১৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

পরকীয়া প্রেমিকের চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি

প্রতীকী ছবি

খবরের আলো:

 

 

বৃহস্পতিবার, ১২ মার্চ :পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে ঘর বাঁধতে স্বামী হুমায়ুন কবিরকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দিতে দুই লাখ টাকা চুক্তি করেছিলেন স্ত্রী আমেনা খাতুন। এ জন্য তিনি খুনিচক্রকে লাখ টাকা অগ্রিমও দিয়েছিলেন। তারপর কবিরকে ১ মার্চ বিকালে মহাখালী ওয়ারলেস গেট এলাকা থেকে অপহরণ করা হয়। কিন্তু বাকি টাকা পরিশোধ করতে না পারায় অপহরণের পরও তাকে হত্যা করেনি চক্রটি।

তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে একটি গোপন আস্তানা থেকে অপহরণের ৯ দিন পর মঙ্গলবার রাতে (১০ মার্চ) কবিরকে উদ্ধার করে বনানী থানা পুলিশ। ওই রাতেই জুরাইন থেকে তার স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমিক আমজাদ হোসেন দেওয়ানকে গ্রেপ্তার করা হয়। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে আমজাদ চাঞ্চল্যকর সব তথ্য জানায়।

এ বিষয়ে বনানী থানার এসআই আবু তাহের বলেন, ভোলার লালমোহন থানার ফুলবাগিচা গ্রামের হুমায়ূন সাত বছর ওমানে ছিলেন। এ সুযোগে প্রতিবেশী আমজাদের সঙ্গে তার স্ত্রী আমেনার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ কারণে হুমায়ূন তিন বছর আগে দেশে আসেন। এরপর ঢাকায় তিনি সুপারির ব্যবসা শুরু করেন। কারওয়ান বাজার থেকে সুপারি কিনে মহাখালী ওয়ারলেস গেট এলাকার দোকানে দোকানে তিনি তা সরবরাহ করেন এবং কড়াইল বস্তিতে বসবাস করেন। ১ মার্চ বিকালে মহাখালী ওয়ারলেস গেট এলাকা থেকে তিনি অপহৃত হন।

তিনি বলেন, তার ছেলে নাজিউর রহমান বাবলু পরদিন বনানী থানায় জিডি করেন। তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে পুলিশ আমেনার পরকীয়া প্রেমিক আমজাদের অবস্থান ঢাকায় নিশ্চিত করে। এরপর মঙ্গলবার রাতে জুরাইন এলাকা থেকে আটক করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, হুমায়ূনকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণ করে শ্যামপুর থানার জুরাইন করিমুল্লাবাগ এলাকার আওলাদ ডাকাতের ডেরায় রাখা হয়েছে। এরপর ওইদিন মধ্যরাতে সেখানে অভিযান চালিয়ে হাত-পা ও চোখ বাঁধা অচেতন অবস্থায় হুমায়ূনকে উদ্ধার করা হয়। ওই বাসা থেকে একটি রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি ও দুটি ছুরি জব্দ করা হয়।

এ বিষয়ে বনানী থানার ওসি নুরে আযম মিয়া জানান, এ ঘটনায় হুমায়ূনের ছেলে বাবুল বাদী হয়ে বুধবার বনানী থানায় মামলা করেন। মামলায় আমজাদ, আমেনা খাতুন, আওলাদ হোসেন ওরফে আওলাদ ডাকাত ও বাচ্চু মেম্বারসহ আরও ২-৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে বুধবার (১১ মার্চ) বিকালে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বাকি বিল্লাহর আদালতে আমজাদ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। সে জানায়, আমেনার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে তার পরকীয়ার সম্পর্ক চলে আসছিল। আমেনা তাকে বারবার বিয়ের জন্য চাপ দিত। স্বামী ও সন্তান থাকায় তাকে বিয়ে করতে সে রাজি ছিল না। কিছুদিন আগে আমেনা তাকে ডেকে স্থানীয় ইউপি মেম্বার বাচ্চুর কাছে নিয়ে যায়। সেখানে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে হুমায়ূনকে হত্যার চুক্তি হয়।

অ্যাকাউন্ট থেকে এক লাখ টাকা উত্তোলন করে আমেনা বাচ্চু মেম্বারকে দেয়। হুমায়ূনকে হত্যার পর বাকি এক লাখ টাকা দেওয়ার কথা ছিল। বাচ্চু মেম্বার হুমায়ূনকে হত্যার জন্য আওলাদ ডাকাতকে দায়িত্ব দেন। চুক্তি অনুযায়ী ১ মার্চ হুমায়ূনকে মহাখালী ওয়ারলেস গেট এলাকা থেকে অপহরণ করে আওলাদ ডাকাত ও তার সহযোগীরা।

বাকি এক লাখ টাকার জন্য তারা আমেনাকে চাপ দিতে থাকে। অপরদিকে হুমায়ূনকে হত্যা করা হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে আমজাদকে ঢাকায় পাঠায় আমেনা। এরপর পুলিশ তাকে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করে।

এদিকে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অপহৃত হুমায়ূন জানান, ১ মার্চ বিকাল ৪টার দিকে এক ব্যক্তি (আওলাদ) তার কাছে সুপারি কিনতে আসে। সে দুই হাজার টাকার সুপারি কেনে। এরপর সে জানায়, বাড্ডায় তার ম্যাডামের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান। সেখানে আরও সুপারি লাগতে পারে। তাই ম্যাডামের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কথা বলে একটি সিএনজি অটোরিকশায় আমাকে তোলে। কিছুক্ষণ পরই আমি অচেতন হয়ে যাই।

এ বিষয়ে তার ছেলে বাবলু বলেন , আমজাদ গ্রেপ্তার হয়েছে এমন খবর পেয়ে তার মা আমেনা গা-ঢাকা দিয়েছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com