রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

গরীবের ফেয়ার কার্ডের চাল খায় ধনীরা ….

খবরের আলো :

 

 

হাবিবুর রহমান মাসুদ, স্টাফ রিপোটার : সামাজিক নিরাপত্তা ও খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর আওতায় ফেয়ার কার্ড বিতরনে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এক শ্রেনীর লোভী ধনাঢ্য পরিবারের লোকজন টাকার বিনিময়ে কার্ড ভাগিয়ে নিয়ে প্রকৃত দরিদ্র পরিবার ফেয়ার কার্ড থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, জেলার দুমকি উপজেলার মুরাদিয়া ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের কোটিপতি টাইসকরা দোতলা বিল্ডিং এ বসবাসকারী স্বর্ন ব্যবসায়ী এক পরিবারের তিন ভাই তিনটি ফেয়ার কার্ড ভাগিয়ে নিয়ে ডিলারের কাছ থেকে ৩০ কেজি করে প্রতিবার ৯০ কেজি চাল উত্তোলন করে আসছেন। এ তিন ভাই হচ্ছে- নীলকান্ত তার কার্ড নম্বর-২০০, শ্রীকান্ত তার কার্ড নম্বর ২০৩, মাধব তার কার্ড নম্বর ১৭৭। কার্ড ধারী নীল কান্ত জানায় আমি চার বছর আগে মেম্বরের মাধ্যমে ফেয়ার কার্ড পেয়েছি। পরবর্তীতে আমার দুই ভাই পেয়েছে এতে সমস্য কি। আমি স্বর্ন ব্যাসায়ী না, আমি আরতের ব্যবস্যা করি।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান জাফর উল্লাহ জানান, আমার ইউনিয়নে প্রথম ৬৫৩ টি ও দ্বিতীয়বার ২২৮টি ফেয়ার কার্ড বরাদ্ধ হয়। এ বরাদ্দকৃত কার্ড ৯টি ওয়ার্ডের প্রতি মেম্বরসহ সংরক্ষিত মহিলা মেম্বরকে ৪০টি করে প্রাপ্য লোকদের মাঝে বিতরন করার জন্য দেয়া হয়েছে। বাকি কার্ড আমি যাচাই বাছাই করে বিতরন করেছি। অধিকাংশ মেম্বর দলীয় লোক হওয়ায় তারা হয়তো তার দলের বা তার সমর্থক লোকদের মাঝে বিতরন করে থাকতে পারে। এ অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করায়, তিনি ( দুমকি উপজেলা নির্বাহী অফিসার) সংশ্লিস্ট ডিলারকে উক্ত অভিযোগকৃত কয়েকটি ফেয়ার কার্ডধারীকে চাল দেয়া থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি উক্ত কার্ড সংগ্রহ করে যারা প্রাপ্য তাদের নাম ওই কার্ডে প্রতিস্থাপন করবেন বলে জানান ইউপি চেয়ারম্যান। স্থানীয় একাধিকজন জানান এ রকম অনিয়ম অনেক আছে অনুসন্ধান বা তদন্ত করলে ফেয়ার কার্ডধারী ধনাঢ্য পরিবারের নাম পাওয়া যাবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com