শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ১২:০৭ অপরাহ্ন

দিনাজপুরে আমের মুকুলের মিষ্টি গন্ধে মৌ মৌ করছে চারিদিক 

 খবরের আলো :
তাজ চৌধুরী, স্টাফ রিপোর্টার
দিনাজপুর জেলা ধান চালের জন্য প্রসিদ্ধ হলেও সুনাম অর্জন করেছে লিচু আর আমের বাজার।
এবারে দিনাজপুর জেলার ১৩টি উপজেলায় প্রচুর মুকুল ধরেছে আম গাছগুলোতে। ফুটেছে আমের মুকুল, ছড়াচ্ছে সুবাসিত ঘ্রাণ।
দিনাজপুর জেলার আম গাছগুলোতে এর মধ্যেই মুকুল আসতে শুরু করেছে। নানা ফুলের সঙ্গে সৌরভ ছড়াচ্ছে আমের মুকুলও। আমের মুকুলের মিষ্টি ঘ্রাণে মৌ মৌ করছে প্রকৃতি। আমের মুকুলে তাই এখন মৌমাছির গুঞ্জন। এবার সময়ের আগেই সোনালি মুকুলে ভরে গেছে দিনাজপুর জেলার আম বাগানগুলো। তাই দখিনা বাতাসে দোল খাচ্ছে চাষির স্বপ্ন।
গাছে গাছে ঝুলছে আমের মুকুল। পৌষের আমন্ত্রণে আসা আগাম মুকুল মাঘকে বিদায় জানিয়ে এসেছে ফাল্গুন। বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীদের মনে আশার আলো জ্বালিয়েছে। বিভিন্ন এলাকার কয়েকটি বাগান ঘুরে দেখা গেছে, গাছে গাছে নানা ফুলের সঙ্গে আমের মুকুলের মিষ্টি ঘ্রাণ আকাশে বাতাসে মৌ মৌ গন্ধে মাতোয়ারা করে তুলছে। থোকায় থোকায় হলুদ রঙের মুকুলে গাছগুলো ভরে গেছে। বাগানের মালিকেরা আমের ভালো ফলন পেতে ছত্রাক নাশক প্রয়োগসহ বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ততার সময় পার করছেন। আম চাষিরা খুশি হলেও কৃষি কর্মকর্তারা বলেন। এ জেলাতে প্রধান প্রধান আমের আবাদ হচ্ছে ফজলি, লেংড়া, আম্রপালি, মিশ্রিভোগ, হাড়িভাঙা, মল্লিকা, থাই, গোপালভোগ, বারি ১০, দেশি, বেনারসি সিতাভোগ। দিনাজপুর সদর কসবা এলাকার আম চাষি বাঁধন কুমার জানান, এ বছর আমার আম গাছে প্রচুর পরিমাণে মুকুল  দেখা দিয়েছে। এখন পর্যন্ত আমের মুকুলে কোনো রোগ-বালাই আক্রমণ করেনি। মুকুল ভালোভাবে প্রস্ফুটিত হয়েছে। যদি কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ না আসে আশা করছি প্রতিটি আমগাছেই পর্যাপ্ত পরিমাণে আম ধরবে। গত বছর সাড়ে ১৫ বিঘা জমিতে আমের বাগান ছিলো। যা বিক্রি করেছিলাম ৭ লাখ টাকায়। এবছর ২০ বিঘা আমের বাগান আছে।
এলাকাতে ফসলি চাষের জমি রেখে অনেকেই আম বাগান করেছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ তৌহিদুল ইকবাল জানান, দিনাজপুরে আমের উৎপাদন ভালো হয়। এ বছর একটু আগে ভাগেই আম গাছে মুকুল দেখা দিয়েছে। আবহাওয়া ঠিক থাকলে এ বছরে দিনাজপুরে আমের বাম্পার ফলন হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com