শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৭:৫৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নদীভাঙন কবলিত এলাকা ঝুঁকিমুক্ত করার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে: এনামুল হক শামীম সিরাজগঞ্জে (ঢাকা-বগুড়া) মহাসড়কে ৩ দিন ধরে যানজটে যাত্রী সাধারণ ভোগান্তির শিকার  হিলিতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত গাজীপুরের শ্রীপুরে আওয়ামী লীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে আ.লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে কাজ করতে হবে:  এনামুল হক শামীম প্রেস বিজ্ঞপ্তী সড়কে দুর্ঘটনা এড়াতে চালকদের মাদকমুক্ত রাখা জরুরী ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের ক্যাম্পেইন মানিকগঞ্জে নতুন জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করলেন মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ মাধবপুর পৌরসভার বাজেট ঘোষণা স্পেনে রাষ্ট্রদূতের সাথে নোয়াখালী জেলা সমিতি নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ

সিরাজগঞ্জ শাহজাদপুরের বাঁধের জায়গা থেকে গাছ ও মাটি কেটে সাবার

খবরের আলো  :

 

 

মিঠুন বসাক, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার ভাটপাড়া গ্রামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মাণাধীন বাঁধের অধীগ্রহণের জায়গা থেকে ম‚ল্যবান বড় বড় গাছ ও মাটি কেটে সাবার করছে স্থানীয়রা। তারা বলছে ঠিকাদারের লোকজনকে ম্যানেজ করেই তারা এ কাজ করছেন। অপর দিকে ঠিকাদারের লোকজন গাছ ও মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার সত্যতা স্বীকার করলেও উৎকোচ নিয়ে গাছ ও মাটি কেটে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ।

এ ব্যাপারে মেসার্স গোলাম রব্বানি কনসট্রাকশনের প্রজেক্ট ম্যানেজার তন্ময় হোসেন বলেন,এ গুলো দেখার এখতিয়ার আমাদের নেই। এ গুলো দেখবে পানিউন্নয়ন বোর্ড। তারা ইচ্ছা করলে এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে পারেন। আমরা শুধু আমাদের কোন মালামাল ক্ষতি হলে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পারব।

তিনি জানান, কৈজুরি ইউনিয়নের পাঁচিল থেকে ভাটপাড়া পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার তার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স গোলাম রব্বানি কনসট্রাকশন কাজ পেয়েছে। সে অনুযায়ী তারা গত ১ মাস ধরে এখানে কাজ শুরু করেছে।
তিনি বলেন, এ কাজের জন্য প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যয় হবে। এডিবির অর্থায়নে এ কাজ পানিউন্নয়ন বোর্ড বাস্তবায়ন করছে।

গত (১২ নভেম্বর) সোমবার বিকালে সরেজমিন ভাটপাড়া গিয়ে দেখা যায়,যে সব বাড়িঘর অধীগ্রহণের মধ্যে পড়েছে। তা সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। সেই সাথে ওই সব বাড়িঘরের ভিটার মাটি গভীর করে কেটে নিচ্ছে। এ ছাড়া বড় বড় আম,কড়ই, ইউকালেকটাস সহ বহু ম‚ল্যবান গাছ কেটে নেয়া হচ্ছে। কেনো কেটে নেয়া হচ্ছে তা জানতে চাইলে তারা বলেন,ঠিকাদারের লোকজনকে কিছু উৎকোচ দিয়ে ম্যানেজ করেই তারা এ কাজ করছে। এটা দোষের কিছু না।

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার(ভ‚মি) হাসিব সরকার বলেন, অধীগ্রহণ করা সম্পত্তির উপর থেকে কেবল বাড়িঘর সরিয়ে নিতে পারবে। জমি ও গাছপালার ম‚ল্য নির্ধারন করে তা পরিশোধ করা হয়েছে। অতএব,ওখান থেকে বিন্দুমাত্র মাটি ও গাছপালা পানিউন্নয়ন বোর্ড ছাড়া আর কেউ কেটে নিতে পারবে না। এটা কেউ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

১০

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com