বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
এবার সড়কে প্রাণ গেল বীর মুক্তিযোদ্ধার বড়জালেঙ্গা এলাকার রোগীদের সাহায‍্যার্থে এগিয়ে আসলেন মন্ত্রী পরিমল শুক্লবৈদ‍্য বিবার্তা২৪ডটনেট ও জাগরণ টিভি আয়োজিত গোলটেবিল বৈঠক সকালে সাতক্ষীরায় ‘মুজিববর্ষ বিজয় দিবস টেনিস টুর্নামেন্ট-২০২১’র সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ ভারতের পেট্রাপোলে স্পট করোনা পরীক্ষায় দুর্ভোগে বাংলাদেশী যাত্রীরা বঙ্গোপসাগরে জেলে অপহরণের ঘটনায় মুক্তিপণের অর্থ সংগ্রহের মূলহোতা গ্রেফতার সেই মেয়র গ্রেফতার হলেন আবাসিক হোটেল থেকে বাসে আগুন ঘটনায় পুলিশের মামলা সাংবাদিক আজিজুর রহমানের কবিতা “ আঘাত “  শ্রীমন্ত শংকরদেব কলাক্ষেত্রে নিয়োগপত্র বিতরণ করলেন মুখ‍্যমন্ত্রী হিমন্ত

ঈদ শপিংয়ে যে সতর্কতা মানতে হবে

খবরের আলো প্রতিবেদক

ঈদ আগমনের আনন্দ যেন করোনা সংক্রমণের ভয়কেও হার মানিয়েছে। তীব্র দাবদাহ উপেক্ষা করেই ঈদ কেনাকাটায় ছুটছেন অনেকে। করোনার এই সময়ে মনকে প্রফুল্ল রাখার পরামর্শ দেন স্বাস্থ্যবিদরা। তাই শপিং করে মন প্রফুল্ল রাখতেই পারেন। তবে সে ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধির চিন্তাটাকেও একেবারে উড়িয়ে দেওয়া ঠিক হবে না।

পবিত্র রমজান মাস শেষেই ঈদ। নতুন জামা-কাপড়, ঘরকে নতুন করে সাজানো নানা আয়োজন থাকে এই ঈদকে ঘিরে। পরিবারের সবার জন্য় নতুন জামা কিনতে শপিং মলে যেতেই হচ্ছে। তাই বিশেষ কিছু বিষয়ে সতর্কতা মেনে নিরাপদে শপিং করুন।

বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে মাস্ক পরুন এবং তা একমুহূর্তের জন্য়ও খুলবেন না। প্রয়োজনে দুটি বা তিনটি মাস্ক একসঙ্গে পরুন। শপিং মলে থাকার পুরো সময়টা মাস্ক পরেই কাটান।

শপিং মলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা কষ্টকর। তবু নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সামাজিক দূরত্বের বিষয়টি খেয়াল রাখুন। ভিড় এড়িয়ে চলুন। প্রয়োজনে বড় শপিং মলে যাবেন। যেখানে খুব সহজেই প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো কিনে নিতে পারবেন।

অযথা ঘুরে বেড়াবেন না। কী কী কিনবেন তা তালিকা করে রাখুন। কেনাকাটায় সুবিধা হবে। প্রয়োজনীয় জিনিসটি কিনেই বাড়ি ফিরে যান।
গরমে শপিংয়ে যাচ্ছেন। তাই ছাতা ও পানির বোতল সঙ্গে নিন।

শপিং মলে লিফটের বাটনে, সিঁড়ির হাতলে কিংবা দোকানের দরজায় হাত রাখবেন না। দোকানের সিটেও বসার প্রয়োজন নেই। দাঁড়িয়েই কেনাকাটা সারুন। সতর্ক থাকুন যত কম সম্ভব সবকিছু স্পর্শ করুন।

শপিং মলের ট্রায়াল রুমগুলো ব্যবহার করবেন না। সেখানে অনেকেই ট্রায়াল দিয়ে থাকেন। তাই সংক্রমণের ঝুঁকিটাও সেখানে বেশি।
দোকানগুলোতে ঝোলানো পোশাকগুলোতে হাত না দেওয়াই ভালো। অনেকেই সেখানে হাত দিয়ে স্পর্শ করেন। ভুলবশত আপনিও হাত দিয়ে দিলে তা দ্রুত সাবান দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

শপিং মলের লিফট ব্যবহার করবেন না। এসকেলেটর বা সিঁড়ি ব্যবহার করুন।

পরিবারের বাচ্চাদের নিয়ে শপিং মলে না যাওয়াই ভালো। অল্পসংখ্যক মানুষ যাবেন এবং দ্রুত কাজ সেরে চলে আসবেন।

বিল পরিশোধের পর দোকানদারের দেওয়া টাকা হাত দিয়ে স্পর্শ করবেন না। প্রয়োজনে একটি ব্যাগ রাখুন যেখানে টাকাগুলো আলাদাভাবে রাখা যায়। এছাড়া শপিং মলের ব্যাগও ঘরে না আনাই ভালো।

শপিং মলে গ্লাভস ব্যবহার করুন। যেকোনো স্থানেই গ্লাভস ব্যবহার করা উচিত। এতে হাত সুরক্ষিত থাকে। গ্লাভস পরলে শুধু আপনি সুরক্ষিত থাকবেন তা নয়, অন্যরাও সুরক্ষিত হবেন।

অবশ্যই হ্যান্ড স্যানিটাইজার সঙ্গে রাখবেন। ১৫-২০ মিনিট পর পর স্যানিটাইজার ব্যবহার করুন।

বাইরে থেকে বাড়িতে ফিরে কোনো কিছু স্পর্শ করবেন না। সরাসরি বাথরুমে যাবেন। গোসল দেবেন। কাপড়গুলো ভালোভাবে ডিটারজেন্টে ভিজিয়ে ধুয়ে নেবেন। এরপর রোধে শুকিয়ে নেবেন।

শপিং মল থেকে কেনা নতুন জামা কাপড়গুলো একটি নির্দিষ্ট স্থানে তিন দিন রেখে দিন। এরপর রোদের তাপে কিছুক্ষণ রেখে দিতে পারেন। এতে ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com