সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
তামুলপুরে মুখ‍্যমন্ত্রী ডঃ হিমন্ত ১১শ ৫ জন প্রাক্তন ক‍্যাডারদের মাঝে ৪লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট সার্টিফিকেট বিতরণ করলেন। রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির শ্রেষ্ঠ স্বেচ্ছাসেবকদের সম্মাননা ও পুরস্কার প্রদান শেরপুরে শীত বাড়াতে লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা          আম গাছে ঝুলছিল স্কুল ছাত্রীর লাশ অর্থ আত্মসাৎ অভিযোগে নায়িকা জ্যাকুলিন আটক চন্দনাইশের সাতবাড়ীয়া নির্বাচনে সাফাত বিন ছানাউল্লাহ্’র মনোনয়নপত্র সংগ্রহ মানবিক মেম্বার আলম হাওলাদারের সাথে ড্রিম লাইট’র সৌজন্য সাক্ষাৎ শেরপুরে সেবার মান নিশ্চিতকরণে নাগরিক কমিটির মতবিনিময় রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় অভিযুক্ত হলেন সাংবাদিক মৌলভীবাজারে “মেছো বাঘ” হত্যার দায়ে সাজা

ফুলবাড়ী সদরে এবার দুই সতীনের লড়াই

হাবিবুর রহমান হাবিব, কুড়িগ্রাম থেকেঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে আসন্ন ২৮নভেম্বর,২০২১এর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফুলবাড়ী ৩নং সদর ইউনিয়নের ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের একই আসনে প্রার্থী হিসেবে ভোট যুদ্ধে লড়ছেন দুই সতীন। জনশ্রুতি আছে সতীনের সংসার মানেই পরিবারে ঝগড়া লেগে থাকা নানাভাবে।এ ঝগড়া এখন শুধু পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। ছড়িয়ে গেছে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী মাঠেও।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এমনই দেখা গেছে তাঁরা হলেন চন্দ্রখানা বুদারবান্নি গ্ৰামের ফজলু আলী ওরফে ফজু কসাইয়ের প্রথম স্ত্রী আঙুর বেগম এবং তৃতীয় স্ত্রী জাহানারা বেগম। অবশ্য ফজু কসাইয়ের নাজমা নামের আরও একজন স্ত্রী রয়েছে। প্রথম স্ত্রী আঙুরের পক্ষে স্বামী ফজলু আলী ও দ্বিতীয় স্ত্রী প্রচারে নামলেও তৃতীয় স্ত্রী জাহানারা একাই প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। ফজলু কসাই বলেন, ‘আমার ও পাড়া প্রতিবেশীদের সমর্থন নিয়ে আঙুর ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাই আমি এবং এলাকাবাসী তাঁর জন্য ভোট চাচ্ছি। জাহানারাকে বারবার নিষেধ করা সত্ত্বেও আঙুরের বিরুদ্ধে লড়ছে।’ জাহানারা বলেন, ‘২০১৭ সালের ইউপি নির্বাচনে স্বামীর সমর্থন নিয়েই আমি প্রার্থী হয়েছিলাম। সেবার ভোটের লড়াইয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিলাম। আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে আমার সতীন স্বামীকে ফুসলিয়ে প্রার্থী হয়েছেন। চাপ দিচ্ছেন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে। তাতে আমি ভীত নই। জনগণ আমার সঙ্গে রয়েছেন। জনগনের মহামূল্যবান ভোট পেয়ে আমিই শেষ হাসি হাসব।’

গত শুক্রবার দুই সতীনই প্রতীক পেয়েছেন।আঙুর পেয়েছেন কলম মার্কা এবং জাহানারা পেয়েছেন তালগাছ মার্কা। স্থানীয়রা জানান, আগে থেকেই তিন স্ত্রীকে নিয়ে ফজলু কসাইয়ের দিনকাল ভালো যাচ্ছিল না। ঝগড়া বিবাদে বিপর্যস্ত হয়ে শেষ পর্যন্ত জাহানারাকে আলাদা বাড়িতে রেখে তিনি প্রথম ও দ্বিতীয় স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা বাড়িতে বসবাস করছেন। এরপরও জাহানারা স্বামীর মতামত ও সুপরামর্শ না পাওয়া সত্বেও নির্বাচনে সতীনের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নামায় ফজলু কসাই তাঁর প্রতি নাখোশ হয়েছেন। আগামী ২৮ নভেম্বর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দুই সতীন ছাড়াও ওই সকল ওয়ার্ডে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে আরেক আঙুর বেগম, নুরি বেগম এবং আনজুমা বেগম প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com