বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন

তথ্য প্রযুক্তির পৃথিবীতেও ধোয়াশা কাটছেনা ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের

ছবি সংগৃহীত।

তথ্য প্রযুক্তি এখন হাতে হাতে, গোটা বিশ্বের খবরও থাকে হাতের মুঠোতে। তবে গত তিন দিন ধরে জোড়তোড় রাশিয়া কর্তৃক ইউক্রেন আক্রমনের খবর যতটা না ঘটছে তার থেকে বেশি রটছে। আসলে কোন খবরটা যে সঠিক আর কোনটা বেঠিক, এ নিয়ে গোটা বিশ্ব দোটানায়। যুদ্ধের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে সবাই উদগ্রীব। তবে এ ক্ষেত্রে কোন সংবাদ মাধ্যমকে প্রধান্য দেওয়া উচিৎ তা মনে হয় অধিকাংশ মানুষই বুঝতে পারেন নি। আসলে একটা দোটানা চলছেই। 
এই যখন অবস্থা এর মধ্যে ভারতের একটি সংবাদ মাধ্যমের খবর, তাদের তথ্য মতে ইতিমধ্যে এক হাজারেরও বেশি রুশ সেনাকে খতম করার ঘোষণা দিয়েছে ইউক্রেন।
গোটা যুদ্ধ ঘিরে দাবি আর পাল্টা দাবির প্লাবনে প্লাবিত গোটা বিশ্বের ন্যায় ভারত উপ-মহাদেশ। বাংলাদেশ, পাকিস্তান আর ভারতেও এ যুদ্ধের সংবাদের ডালপালা ছড়াচ্ছে জোড় কদমে।
এরই মধ্যে ইউক্রেন দাবি করেছে ইতিমধ্যে তারা শত্রুপক্ষের অন্তত ৮০টি ট্যাঙ্ক, ৫১৬টি সাঁজোয়া গাড়ি, সাতটি হেলিকপ্টার, ১০টি যুদ্ধবিমান এবং ২০টি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করে দিয়েছে।
তবে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা বিভাগ জানাচ্ছে, রুশ সেনা ইতিমধ্যেই ইউক্রেনের ২১১টি সৈন্য ঘাঁটি পুরোপুরি গুঁড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে।
ঘোরতোর যুদ্ধ চলছে ইউক্রেনে। কিভের আনাচে কানাচে চলছে রক্তক্ষয়ী লড়াই। তাই স্বাভাবিক ভাবেই রাশিয়া ও ইউক্রেনের দাবি, পাল্টা দাবি ঘিরে সরগরম বিশ্ব রাজনীতি। আজ শনিবার সকালে ইউক্রেনের সেনা দাবি করেছে, তাঁদের হাতে এখনও পর্যন্ত হাজারেরও বেশি রুশ সেনার মৃত্যু হয়েছে। যদিও এ ব্যাপারে রাশিয়া এখনও পর্যন্ত এ ঘটনার ব্যাপারে কোন বিবৃতি দেয়নি।
এদিকে গতকাল পর্যন্ত উপমহাদেশের সোশ্যাল মিডিয়ায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির ছবি দিয়ে বলা হয়েছে, যুদ্ধ শুরুের েএক ঘন্টা আগেও বিশ্বনেতারা আমাকে সাহস জুগিযেছে, বলেছে সবসময় সাথেই থাকবেন, কিন্তু যুদ্ধ যেই শুরু হলো দেখলাম কেউ নেই। আমাকে একাই লড়তে হচ্ছে শক্তিশালি রাশিয়ার বিরুদ্ধে।
তবে প্রাপ্ত তথ্য মতে ইউক্রেনের রাজধানী কিভের দখল নেওয়ার জন্য যুদ্ধ চলছে। রাশিয়া এখনও পুরোপুরি কিভের দখল নিতে না পারলেও, শহরের আনাচে কানাচে দুই বাহিনীর মধ্যে চলছে তুমুল গুলির লড়াই। ইউক্রেন সরকার নাগরিকদের কাছে রুশ সেনাকে প্রতিহত করতে হাতে অস্ত্র তুলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইতিমধ্যে। আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা জানাচ্ছে, মুহুর্মুহু বিস্ফোরণে কেঁপে উঠছে রাজধানীর আকাশ বাতাস।
তবে এই যখন পরিস্থিতি কোনটা সঠিক বা কোনটা বেঠিক তা খবরের আলো এখনো যাচাই করতে পারেনি। 
তবে সময় হলেই মূল তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে। বিভ্রান্ত হবেন না, সে পর্যন্ত সাথেই থাকুন, চোখ রাখুন দৈনিক খবরের আলোতে।
সজীব আকবর
বার্তা সম্পাদক
দৈনিক “খবরের আলো” 
ঢাকা-বাংলাদেশ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com