রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৬:১১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মাধবপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শহীদ মিনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান গাজীপুরে পোশাক নারী শ্রমিক গণধর্ষণের শিকার ত্রিশালে রাস্তার দূর্ভোগে লালপুর-কৈতরবাড়ী ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হলে অপরাধীদের মধ্যে ভীতিও থাকবে: কাদের ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পাহাড়পুর একিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিনব কায়দায় রোগীর সাথে প্রতারণা নবাবগঞ্জে অজ্ঞাত পরিচয় নারীর লাশ উদ্ধার মাধবপুরে করোনার ভাইরাসের সুযোগে বালু খেকোদের রমরমা ব্যবসা নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে বিএনপি দলগতভাবেই এইসব অপকর্ম করেছিল -তথ্যমন্ত্রী বড়াইগ্রামে জোর পুর্বক ঘরবাড়ি ভাংচুর করে রাস্তা নির্মাণ

দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলেও ধানের শীষের প্রার্থী

খবরের আলো রিপোর্ট :

 

 

যুদ্ধাপরাধে আজীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে শামীম সাঈদী আসন্ন নির্বাচনে বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

তার ছোট ভাই ইন্দুরকানি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ সাঈদী মনোননয়নপত্র জমার শেষ দিন বিকালে পিরোজপুর-১ আসনের জন্য রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে ওই মনোনয়নপত্র জমা দেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের স্বাক্ষরে শামীম সাঈদীর প্রাথমিক মনোনয়নের একটি প্রত্যয়নপত্রের ছবিও মাসুদ সাঈদী তার ফেইসবুকে দিয়েছেন।

নিবন্ধন হারানো দল জামায়াতে ইসলামীর সাংগঠনিক সম্পাদক মতিউর রহমান আকন্দ দাবি করেছেন, তাদের প্রার্থীরা এবার জোট শরিক বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়েই নির্বাচনে অংশ নেবে।

বুধবার ঢাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে ঢাকা-১৫ আসনে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানের পক্ষে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোট থেকে তাদেরকে ২৪টি আসন নিশ্চিত করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, “আমরা ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করব ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে।”

পিরোজপুরে শামীম সাঈদী এবং সিলেটে জামায়াত নেতা ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর নামে ধানের শীষের প্রত্যয়নপত্রের ছবি ফেইসবুকে ঘুরলেও এ বিষয়ে মুখ খোলেননি বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতাদের কেউ।

মতিউর রহমান আকন্দ ২৫টি আসনে জোটের সম্মতি পাওয়ার কথা বললেও সারা দেশে জামায়াত নেতারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ৩০টির বেশি আসনে।

প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্য অনুযায়ী, এর মধ্যে কিছু আসনে জামায়াত নেতারা ধানের শীষ প্রতীকের প্রত্যয়ন নিয়ে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। আবার কিছু আসনে তাদের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে স্বতন্ত্র হিসেবে।

বেশিরভাগ আসনে বিএনপির বিকল্প প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিলেও চট্টগ্রাম-১৫ আসন বিএনপি তাদের জোটসঙ্গী জামায়াতকে পুরোপুরি ছেড়ে দিয়েছে।

আবার ঢাকা-১৫ আসনে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানের পাশাপাশি অনেকটা আকস্মিকভাবেই বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয় সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপনের মনোনয়নপত্র জমা পড়েছে বুধবার।

তিনি বলেন, “দল থেকে গতকাল রাতে আমাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মিরপুর-কাফরুল আসন থেকে মনোনয়নপত্র জমা দিতে। মহাসচিবের স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্র নিয়ে আমি মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি।”

একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামী নির্বাচন কমিশনের শর্ত পূরণ করতে না পারায় আদালতের আদেশে নিবন্ধন হারায়। পরে তাদের প্রতীক দাঁড়িপাল্লাও প্রতীকের তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়।

নিবন্ধন না থাকলেও জামায়াত নেতাদের দুইভাবে নির্বাচন করার সুযোগ রয়ে গেছে। তারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেন, আবার নিজেদের পরিচয় বাদ দিয়ে সরাসরি অন্য দলের প্রার্থী হিসেবে ওই দলের মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচন করতে পারেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ২০ দলীয় জোট শরিকদের ৫০টির মতো আসন ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানালেও জামায়াতের বিষয়ে কিছু বলেননি।

পিরোজপুর-১ আসনে শামীম সাঈদী ও ঢাকা-১৫ আসনে শফিকুর রহমান ছাড়াও দিনাজপুর-১ আসনে জামায়াতে ইসলামীর কর্মপরিষদের সদস্য মো. হানিফ, দিনাজপুর-৬ আসনে জামায়াকের দক্ষিণাঞ্চলীয় আমির আনোয়ারুল ইসলাম, নীলফামারী-২  আসনে জামায়াতের নায়েবে আমির মনিরুজ্জামান মন্টু, গাইবান্ধা-১ আসনে জেলা জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী মাজেদুর রহমান, সিরাজগঞ্জ-৪ আসনে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, সিলেট-৫ আসনে ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী ধানের শীষের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জাম দিয়েছেন বলে দলটির নেতারা দাবি করেছেন।

এছাড়া খুলনা-৫ আসনে নগর জামায়াতের আমির সাবেক এমপি মিয়া গোলাম পরওয়ার, খুলনা-৬ আসনে জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য আবুল কালাম আযাদ, বাগেরহাট-৩ আসনে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি আব্দুল ওয়াদুদ, বাগেরহাট-৪ আবদুল আলিম, ঝিনাইদহ-৩ আসনে সদর উপজেলা জামায়াতের আমির মতিউর রহমান, কুমিল্লা-১১ আসনে সাবেক সাংসদ সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের,কক্সবাজার-২ আসনে জামায়াত ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল সাবেক এমপি এ এইচ এম হামিদুর রহমান আজাদও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপির প্রার্থী হিসেবে।

আবার রাজশাহী-১ আসনে জামায়াতের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমান, পাবনা-৫ আসনে জামায়াতের ইকবাল হুসেইন ঠাকুরগাঁও-২ আসনে আব্দুল হাকিম, গাইবান্ধা-৪ আসনে ডা. আব্দুর রহিম, সাতক্ষীরা-৩ আসনে রবিউল বাশার,সাতক্ষীরা-২ আসনে আব্দুল খালেক,সাতক্ষীরা-৪ আসনে গাজী নজরুল ইসলাম, যশোর-১ আসনে মাওলানা আজিজুর রহমান, যশোর-২ আসনে আবু সাঈদ মুহাম্মদ শাহাদত হোসাইন,যশোর-৫ আসনে গাজী এনামুল হক, যশোর-৬ আসনে অধ্যাপক মোক্তার আলী, সিলেট-৬ আসনে হাবিবুর রহমান, ময়মনসিংহ-৬ আসনে অধ্যাপক জসিম উদ্দিন, লালমনিরহাট-১ আসনে আবু হেনা মো. এরশাদ হোসেন সাজু, চট্টগ্রাম-১৫ আসনে আ ন ম শামসুল , চট্টগ্রাম-১৬ আসনে বাঁশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান মাওলানা জহিরুল ইসলাম এবং চট্টগ্রাম-১০ আসনে শাহজাহান চৌধুরী স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছে বলে জামায়াত নেতাদের ভাষ্য।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com