সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৫১ অপরাহ্ন

শ্রীপুরে ছাত্রকে যৌন নির্যাতন মাদ্রাসা ভাংচুর

খবরের আলো :

 

 

আনোয়ার হোসেন শ্রীপুর গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পশ্চিম খন্ড (মাওনা বাজার) এলাকায় নয় বছর বয়সী এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা ও মাদ্রাসার মসজিদে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে উত্তেজিত জনতা।

রোববার সকাল ১০টার দিকে মাওনা বাজার এলাকার মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসায় এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এসময় মাদ্রাসার মসজিদেও ভাংচুর করা হয়। তবে ঘটনা আঁচ করতে পেরে অভিযুক্ত মাদ্রসার পরিচালক মাওলানা নুরুল ইসলাম (৪০) পালিয়ে যায়। দুই বছর পূর্বে নিজ জমিতে মসজিদ ও মাদ্রাসা স্থাপন করে নিজেই পরিচালনা করে আসছে। সে একই গ্রামের আবেদ আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, অভিযুক্ত মাদ্রাসার পরিচালক নুরুল হকের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে একাধিক মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়ন করার অভিযোগ ছিল। সর্বশেষ গত শুক্রবার দিবাগত রাতে মাদ্রাসার সকল শিক্ষার্থী ঘুমিয়ে গেলে নুরুল হক স্থানীয় ৯বছর বয়সী এক শিশুকে ঘুম থেকে তুলে যৌন নিপীড়ন করে।

শিশুর স্বজনেরা জানান, মাদ্রাসায় পড়ালেখা করা অবস্থায় সে অস্বাভাবিক আচরণ করতো। এর আগেও ওই মাদ্রাসার পরিচালকের বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্রদের সাথে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ থাকায় শিশুকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে সে মাদ্রাসার বড় হুজুর কর্তৃক যৌন নিপীড়নের শিকার বলে জানায়।

এ ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে রোববার সকালে এলাকাবাসী বসে বিষয়টি নিষ্পত্তি কথা জানায়। পরে বোরবার সকালে স্থানীয়রা জড়ো হওয়ার খবরে মাদ্রাসার ওই বড় হুজুর পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে মাদ্রাসা ও মাদ্রাসার মসজিদের ভাংচুর চালায়।

মাওনা ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তবে অভিযুক্ত নুরুল হক পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা যায়নি। যৌন নিপীড়নের শিকার শিশুর স্বজনদের থানায় অভিযোগ দেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com