বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন

পল্লবীতে মাদক ব্যবসায়ী,মাদক সেবনকারী, সন্ত্রাসী ,কিশোর গ্যাং ও জুয়ার ঠাঁই নেই :ওসি পল্লবী

খবরের আলো:

নাহিদ পারভেজ, 

পল্লবীতে মাদক ,সন্ত্রাস,  কিশোর গ্যাং ও  জুয়ার, বিরুদ্ধে যুন্ধ ঘোষনা করেছেন পল্লবী থানার ওসি । থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. পারভেজ ইসলামের নেতৃত্বে মাদক ,সন্ত্রাস,  কিশোর গ্যাং ও  জুয়া, মুক্ত সুন্দর ওয়ার্ক করে থানা পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে। মাদক ব্যবসায়ী,জুয়াড়ী ও মাদক সেবনকারীদের এ থানায় আর ঠাঁই নেই। এ ধরনের অপরাধীদের রুখতে তিনি একাধীকবার সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করেছেন। ওসি পারভেজ ইসলাম এই থানায় যোগদানের পর থানার সব দিক ঘুরে দাঁড়িয়েছে।  তিনি তার দায়িত্ব পালন করছেন সততা ও দক্ষতার সাথে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ মিরপুর। মিরপুরের মধ্যে অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে পল্লবী থানা। এই থানা এলাকায় জনবসতি বেড়ে উঠায় অপরাধীদের বিচরণও বাড়ছে। অন্যান্য থানার চেয়ে আয়তনে ও জনসংখ্যায় বড়ো হলেও  এলাকার নিরাপত্তা ও মাদকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ।

এমন একটি থানায় গত ২৭/০৫/২০২১ ইং ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) দায়িত্ব নিয়ে যোগদান করেছেন জনাব মো. পারভেজ ইসলাম। তিনি আসা মাত্রই নড়েচড়ে বসেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। কারণ মাদকের বিরুদ্ধে এক রকম জেহাদ ঘোষণা করেছেন থানার ওই ওসি। পল্লবী থানায় মাদককে জিরো টলারেন্স দেখানোর জন্য নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছেন। এজন্য স্থানীয়দের কাছ থেকে সহযোগিতামূলক সমর্থনও পেয়েছেন তিনি। সম্প্রতি যুগের কন্ঠস্বরের সঙ্গে ওসি পারভেজ ইসলামের একান্ত সাক্ষাৎকার হয়েছে।

 

ওসি পারভেজ ইসলাম বলেন, পল্লবী থানাটির আশেপাশের কয়েকটি এলাকা রয়েছে। যেখানে অপরাধীদের বিচরণ ও জন সাধারণের চলাফেরায় সাংঘাতিক ঝুঁকিপূর্ণ। জনবসতিও বাড়ছে। সে কারণে ক্রমশই থানাটির গুরুত্ব বাড়ছে। এখানে প্রধান সমস্যা মাদক। মাদকের কারণে এখানকার উঠতি যুবক/যুবতী, মধ্যে বয়েসি নারী ও পুরুষ নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছিল। নারী মাদক ব্যবসায়ীরা এখানে বেশি সক্রিয়। এছাড়া বড় কোনো ডাকাতি বা চুরির ঘটনা নেই বললেই চলে। তবে ছোট খাটো ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।  পল্লবী থানা এরিয়া আমার প্রধান চ্যালেঞ্জ মাদক ব্যবসা বন্ধ ও মাদকমুক্ত পল্লবী উপহার দেয়া। বলতে পারেন মাদকের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করেছি। তবে আমি বদ্ধপরিকর। মাদক নিয়ন্ত্রণে আমি নিয়মিত অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। নিজেই অভিযানে যাচ্ছি। যেখান থেকেই অভিযোগ আসছে, সময়ক্ষেপন না করে সেখানেই অপারেশন চালাচ্ছি। যদিও রিস্ক থেকে যাচ্ছে তবুও পিছু হঠছি না।

ওসি পারভেজ ইসলাম গত ২৭/০৫/২০২১ইং তারিখে পল্লবী থানায় যোগদান করার পর সর্বোচ্চ  প্রধান্য দিয়ে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনায়, ২০ কেজি ৮২৬ গ্রাম হেরোইন, ১,৩১,৯১২ পিচ বিভিন্ন কালারের ইয়াবা, ৪০৩ কেজি ৩৬৮ গ্রাম গাঁজা, ৬৮৪ বোতল ফেন্সিডিল, ২৪৯ বোতল চোলাই মদ, ৬০ টি বিয়ার উদ্ধারে ১৩৯১ জন আসামী গ্রেফতার পূর্বক ১২০৩ টি মাদক মামলা নথিভুক্ত করেন। এবং পল্লবী থানা এরিয়ায় অবস্থানরত, ৭ জন ভুয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাইকারীকে তথ্য প্রযুক্তি ব্যাবহার করে গ্রেফতার, ২ টি হত্যা মামলার মূল হত্যাকারিসহ ১৩ জন আসামী গ্রেফতার। ১টি বিদেশি পিস্তল ও ১২ রাউন্ড গুলি সহ ১ জন গ্রেফতার করা হয়।

বিজ্ঞ আদালত হতে ৯০৪ টি জিআর, ৮৪৪ টি সিআর- ১৩৬ টি সাজা প্রাপ্ত ও ২৩১ টি সিআর সাজা প্রাপ্ত মোট ২১১৫ পরোয়ানা প্রাপ্ত হয়ে, ১২৩০ টি জিআর, ৮৭৮ টি সিআর ও জিআর সাজাপ্রাপ্ত ১৩৮ টি, সিআর সাজাপ্রাপ্ত ২৪০ টি মামলার পরোয়ানাসহ ২৪৮৬ টি পরোয়ানা পূর্বক বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করেন।

ওসি পারভেজ ইসলাম গত জুন ২০২১ হতে মে ২০২২ পর্যন্ত প্রতি মাসে শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে নির্বাচিত হওয়ায় উপ-পুলিশ কমিশনার, মিরপুর বিভাগ ডিএমপি, মহোদয়ের নিকট থেকে ক্রেস্ট গ্রহন ও আগষ্ট/২০২১ এবং নভেম্বর /২০২১ এ ডিএমপি ৫০ টি থানার মধ্যে পল্লবী থানা শ্রেষ্ঠ থানা হিসেবে প্রাধান্য লাভ করেন।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি পারভেজ ইসলাম আরো জানান, আমার থানায়  ৮৪ জন পুলিশ রয়েছে। আমরা পরিকল্পনা করে কাজ করার চেষ্টা করছি। তাতে সফলতাও আসছে এবং সামনের দিকেও অব্যাহত থাকবে।

এখানে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসা হতো। নারী মাদক ব্যবসায়ীও জড়িত। তবে বিগত কয়েকমাসের অভিযানে মাদকবিক্রেতা ও সেবন কারি কমে এসেছে। যতো দিন এখানে থাকবো মাদকের ব্যাপারে কোনো আপসে যাবো না। এলাকায় স্থায়ী চেকপোস্ট এবং মাঝে মধ্যে পল্লবীর বিভিন্ন মূল পয়েন্ট গুলোতে চেকপোস্ট বসানো হয়। এলাকায় অনেকটাই অপরাধ কমে গেছে। এছাড়াও কিন্তু আমাদের মোবাইল টিম সার্বক্ষণিক টহল দেয়। মোবাইল টিমের মাধ্যমে আমরা সম্ভাব্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে নজরদারি রাখি। এখানে আসার পর নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব পেয়েছে। আপাতত কোনো চাপ নেই। আর চাপকে আমি পাত্তাও দেই না। অপরাধী যেই হোক ছাড় পাবে না।
ওসি পারভেজ বলেন, দেশের সেবায় কাজ করতে পারাটা সৌভাগ্যবান মনে হয়। আর এই পেশায় থেকে নানা মানুষের সঙ্গে মেশার সুযোগ রয়েছে। যা অন্য কোথাও নেই। দারুন লিডারশীপ, অ্যাডভেঞ্চার জব, মানুষের সেবা করার সুযোগ তো এখানেই। চাকরিটা ভীষণ উপভোগ করছি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com