মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :

ক নজরে দেখে নিন ভারতের প্রথম ইঞ্জিন বিহীন দূরপাল্লার ট্রেন ‘ট্রেন এইটটিন’

এর নাম ‘ট্রেন এইটটিন’। ভারতের প্রথম ইঞ্জিন বিহীন দূরপাল্লার ট্রেন এটি। ১৬ কোচের এই ট্রেনে শতাব্দীর মতো আলাদা কোনো ইঞ্জিন থাকছে না। চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল ফ্যাক্টরিতে তৈরি এই ট্রেনের ট্রায়াল রান হবে ২৯ অক্টোবর। শতাব্দী এক্সপ্রেসের পরবর্তী পর্যায়ের গতিশীল ট্রেন হিসেবে ভাবা হয়েছে এই ট্রেন এইটটিনকে। শতাব্দী এক্সপ্রেসের চেয়ে ১৫ শতাংশ কম সময় লাগবে এই ট্রেনে। ঘণ্টায় ১৬০ কিমি বেগে ছুটবে এই ট্রেনটি। শতাব্দী এক্সপ্রেসের পরবর্তী পর্যায়ের গতিশীল ট্রেন হিসেবে ভাবা হয়েছে এই ট্রেন এইটটিনকে। শতাব্দী এক্সপ্রেসের চেয়ে ১৫ শতাংশ কম সময় লাগবে এই ট্রেনে। ঘণ্টায় ১৬০ কিমি বেগে ছুটবে এই ট্রেনটি। বিগত ১৮ মাস ধরে চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরিতে সম্পূর্ণ বাতানুকূল এই ট্রেনটি তৈরি হয়েছে। ইঞ্জিন বিহীন দূরপাল্লার ‘ট্রেন এইটটিন’ এমনভাবে তৈরি হয়েছে, যাতে যাত্রীরা চালকের কেবিনটি অনায়াসেই দেখতে পাবেন। বিগত ১৮ মাস ধরে চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরিতে সম্পূর্ণ বাতানুকূল এই ট্রেনটি তৈরি হয়েছে। ইঞ্জিন বিহীন দূরপাল্লার ‘ট্রেন এইটটিন’ এমনভাবে তৈরি হয়েছে, যাতে যাত্রীরা চালকের কেবিনটি অনায়াসেই দেখতে পাবেন। ট্রেন এইটটিন-এ রয়েছে ডিফিউস লাইটিং, স্বয়ংক্রিয় দরজা, জিপিএস ভিত্তিক প্যাসেঞ্জার ইনফরমেশন সিস্টেম। ট্রেনটি কোনো স্টেশনে পৌঁছলে স্বয়ংক্রিয় দরজা খুলে যাবে এবং সিড়িও বেরিয়ে আসবে, যাতে যাত্রীরা নির্বিঘ্নে ও সাবধানে নামতে পারেন। ট্রেন এইটটিন-এ রয়েছে ডিফিউস লাইটিং, স্বয়ংক্রিয় দরজা, জিপিএস ভিত্তিক প্যাসেঞ্জার ইনফরমেশন সিস্টেম। ট্রেনটি কোনো স্টেশনে পৌঁছলে স্বয়ংক্রিয় দরজা খুলে যাবে এবং সিড়িও বেরিয়ে আসবে, যাতে যাত্রীরা নির্বিঘ্নে ও সাবধানে নামতে পারেন। ট্রেন এইটটিন-এর ভিতরের সজ্জাতেও রয়েছে নতুনত্বের ছোঁয়া। ট্রেনের ভিতরে থাকছে সিসিটিভি, থাকছে কেন্দ্রীয় তাপানুকূল ব্যবস্থা। ৫২ আসন বিশিষ্ট দুটি একজিকিউটিভ কমপার্টমেন্ট থাকছে। বাকি কম্পার্টমেন্টের আসন সংখ্যা ৭৮। ট্রেন এইটটিন-এর ভিতরের সজ্জাতেও রয়েছে নতুনত্বের ছোঁয়া। ট্রেনের ভিতরে থাকছে সিসিটিভি, থাকছে কেন্দ্রীয় তাপানুকূল ব্যবস্থা। ৫২ আসন বিশিষ্ট দুটি একজিকিউটিভ কমপার্টমেন্ট থাকছে। বাকি কম্পার্টমেন্টের আসন সংখ্যা ৭৮। ট্রায়াল রানের পর ট্রেনটি তুলে দেওয়া হবে রিসার্চ ডিজাইন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ড অর্গানাইজেশনের হাতে। সূত্রের খবর অনুযায়ী প্রথমে এই ট্রেন চলবে বরেলি থেকে মোরাদাবাদের মধ্যে। পরে অন্য রুটে চালানো হবে। ট্রায়াল রানের পর ট্রেনটি তুলে দেওয়া হবে রিসার্চ ডিজাইন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ড অর্গানাইজেশনের হাতে। সূত্রের খবর অনুযায়ী প্রথমে এই ট্রেন চলবে বরেলি থেকে মোরাদাবাদের মধ্যে। পরে অন্য রুটে চালানো হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2018 Dailykhaboreralo.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com